শনিবার, ৮ আগস্ট ২০২০ | ২৪ শ্রাবণ ১৪২৭

Select your Top Menu from wp menus

৬৫ বছরের বেশী নাগরিককে বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দেবে সরকার

এসবিনিউজ ডেস্ক:এক বছরের নিচে ও ৬৫ বছরের বেশী বয়সী নাগরিককে সরকার বিনামূল্যে স্বাস্থ্যসেবা দেবে বলে জানিয়েছে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক স্বপন, এমপি। এসময় ১০০ দিনের ১২ দফা কর্মসূচী ঘোষণা করে তিনি বলেন, সরকারি হাসপাতালে নামমাত্র ফি দিয়ে ব্যয়বহুল চিকিৎসাসেবার সুব্যবস্থা রয়েছে। তবে বিভিন্ন সময় স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের ক্ষেত্রে নানা অভিযোগ উঠে। তাই সরকারি হাসপাতালকে রোগীবান্ধব হিসাবে গড়ে তুলতে সর্বোচ্চ আন্তরিকতা ও সচ্ছতার সাথে সকলকে কাজ করতে হবে। এই একশ’ দিনের কর্মসূচী বাস্তবায়নের মাধ্যমে চিকিৎসা ও স্বাস্থ্যসেবা প্রদানের ক্ষেত্রে বিদ্যমান প্রতিবন্ধকতাসমূহ দূর করা হবে।
বুধবার (১৬ জানুয়ারি)সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় আয়োজিত ‘ ১০০ দিনের কর্মসূচী অবহিতকরণ ’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, এমপি এসব কথা বলেন। সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. মুরাদ হাসান, স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব মো. আসাদুল ইসলাম, স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব জি এম সালেহ উদ্দিন, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদ প্রমুখ।
ঘোষিত ১২ দফা কর্মসূচিগুলো হলো- সরকারের নির্বাচনি ইশতেহারে ঘোষিত কার্যক্রমের ভিত্তিতে কর্ম পরিকল্পনা প্রণয়ন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ সেবা সপ্তাহ উদযাপন, নতুন প্রকল্পসমূহের ডিপিপি বাস্তবায়নের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের পর পরিকল্পনা কমিশনে প্রেরণ, মন্ত্রণালয় থেকে মাঠ পর্যায়ের কার্যক্রমের তদারকির প্রক্রিয়া চালু করে বিশেষ করে যন্ত্রপাতি ও জনবল কর্মক্ষেত্রে উপস্থিতি তদারকি।
ঘোষিত ১২ দফায় আরো বলা হয়েছে, মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তারা মাঠ পর্যায়ের বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান ও কার্যক্রম পরিদর্শন করা হবে। স্বাস্থ্য সেবা বিভাগ ও স্বাস্থ্য শিক্ষা ও পরিবার কল্যাণ বিভাগের সচিব বিভাগীয় পর্যায়ে প্রতিষ্ঠান ও কার্যক্রমসমূহ পরিদর্শনের জন্য বিভাগীয় পর্যায়ে সফর করা হবে। ইতোমধ্যেই স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের বিভিন্ন পদে গৃহিত পদোন্নতি প্রক্রিয়া শেষ করা হবে। এ বিভাগের বিভিন্ন কার্যক্রম সম্পর্কে যথাযথ প্রচার প্রচারণা কার্যক্রম প্রহণ হবে। হাসপাতালসমূহে সহজে দৃশ্যমান সাইনবোর্ডকে নিওন সাইনের সাইনবোর্ড স্থাপন করতে হবে।
এছাড়া প্রতিটি হাসপাতালে প্রদেয় সেবা ও গৃহীতব্য ব্যবহারিক চার্জের তালিকা যথাযথভাবে প্রদর্শন, সেবা গ্রহীতাগণ স্বাস্থ্যসেবা গ্রহণের ক্ষেত্রে যে সব সমস্যার সম্মুখীন হন সে সব সমস্যা সমাধানের বিষয়ে সেবা গ্রহীতাদের পরামর্শ গ্রহণের জন্য ওয়েবসাইট চালু এবং হাসপাতাল অ্যাম্বুলেন্স ও উপজেলায় স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের জন্য জিপ গাড়ি প্রদান করা হবে বলে ঘোষিত ১০০ দিনের কর্মসূচীতে উল্লেখ করা হয়েছে।
জনগণের দোরগোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার ওপর জোর দিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, স্বাস্থ্যসেবার মান উন্নয়ন ও সিন্ডিকেট বন্ধে তদারকি জোরদার করা হবে। এসময় সরকারি হাসপাতালে উদ্দেশ্যে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, টেন্ডার ছাড়া কোন যন্ত্রপাতি কেনা হবে না। চিকিৎসকরা যাতে গ্রাম থেকে তৃণমূল জনগণকে স্বাস্থ্যসেবা দিতে পারে সেজন্য উপজেলা পর্যায়ে চিকিৎসকদের বাড়ি-গাড়ির ব্যবস্থা করা হবে বলে জানিয়েছেন জাহিদ মালেক।
অতীতের ক্রটি বিচ্যূতি সংশোধন করে স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখা হবে বলে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেন, হাসপাতালে জনবলের উপস্থিতি, যন্ত্রপাতির সঠিক পরিচর্যা, পরিস্কার পরিচ্ছন্নতা এবং ওষুধের পর্যাপ্ততা নিশ্চিত করতে শীঘ্রই মন্ত্রণালয়ে একটি মনিটরিং সেল গঠন করা হবে।

Related posts