শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০ | ২৬ আষাঢ় ১৪২৭

Select your Top Menu from wp menus

সাতক্ষীরার জানমাল ও কৃষি রক্ষায় ৪৭৫ কোটি টাকার প্রকল্প

এসবিনিউজ ডেস্ক: উপকূলীয় জেলা সাতক্ষীরায় ঘূর্ণিঝড় আম্পান অনেকক্ষণ ধরেই তাণ্ডব চালিয়েছে। এ ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে শ্যামনগর, আশাশুনি, কালীগঞ্জ এবং সদর উপজেলায় সবচেয়ে বেশি ক্ষতি হয়েছে। ১২-১৫ ফুট উচ্চতার জলোচ্ছ্বাসের কারণে এসব জায়গার কমবেশি ২০টি বেড়িবাঁধ ভেঙে গেছে। কাঁচা ঘরবাড়ি ভেঙেছে অনেক। প্লাবিত হয়েছে চিংড়ি ঘের। মূলত চিংড়ি ঘের এবং আমের ক্ষতি বেশি হয়েছে।

তবে এবার সামনের প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবিলায় ক্ষয়ক্ষতি কমাতে ৪৭৫ কোটি ২৬ লাখ ১৪ হাজার টাকার প্রকল্প হাতে নিতে যাচ্ছে সরকার। এ প্রকল্পের মাধ্যমে সাতক্ষীরা জেলার পোল্ডার ১, ২, ৬ থেকে ৮ এর (এক্সটেনশন) ও নিষ্কাশন ব্যবস্থার উন্নয়ন প্রকল্প হাতে নিয়েছে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়।

মন্ত্রণালয় সূত্র জানায়, মঙ্গলবার (০২ জুন) প্রকল্পটি একনেক সভায় উপস্থাপন করা হবে। প্রকল্প অনুমোদন পেলে জরুরি ভিত্তিতে কাজ শুরু হবে। চলতি সময় থেকে জুন ২০২৩ নাগাদ কাজ শেষ হবে। প্রকল্পের আওতায় এসব পোল্ডারের অন্তর্ভুক্ত নদী খালসমূহ পুনর্খনন করা হবে। বাঁধ পুনর্নির্মাণের মাধ্যমে প্রকল্প এলাকায় লবণাক্ত পানি প্রবেশ রোধ, বন্যা নিয়ন্ত্রণসহ কৃষি কাজের উন্নয়ন করা হবে। 

প্রকল্পের মোট এলাকা এক লাখ ৫৩ হাজার হেক্টর। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে বছরে অতিরিক্ত চার লাখ ২৭ হাজার মেট্রিক টন ধান ও ৫০ হাজার ৯৫০ মেট্রিক টন অন্য ফসল হবে। প্রকল্পের আওতায় ৬১ কিলোমিটার নদী পুনর্খনন করা হবে। ২১ কিলোমিটার নদী খননসহ ১১৩ কিলোমিটার বাঁধ পুনর্নির্মাণের কাজ করা হবে। এক হাজার ৭০০ মিটার বাঁধের ঢাল প্রতিরক্ষা করা হবে। ২৭টি নিষ্কাশন রেগুলেটর মেরামত ও পুনর্গঠন করা হবে।   

পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম প্রধান মন্টু কুমার ঘোষ বাংলানিউজকে বলেন, বাঁধ নির্মাণসহ অন্য কাজের জন্য ৪৭৫ কোটি টাকার প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে। প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে দুর্যোগের হাত থেকে এই জেলার জানমাল ও কৃষি রক্ষা পাবে। আম্পানে অনেক বাঁধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। এগুলোকে পুনর্নির্মাণ করে উঁচু করা হবে। 

Related posts