সাগরের তলদেশ দিয়ে বিদ্যুৎ-ইন্টারনেট পেলো সন্দ্বীপবাসী

এসবিনিউজ ডেস্ক: দেশের মূল ভূখণ্ড থেকে বিচ্ছিন্ন চট্টগ্রামের সন্দ্বীপ প্রথমবারের মতো জাতীয় গ্রিডের অন্তর্ভুক্ত হলো। বুধবার (৬ ফেব্রুয়ারি) গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে এ কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।
জানা যায়, চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ড থেকে সন্দ্বীপ পর্যন্ত দীর্ঘ ১৬ কিলোমিটার সাবমেরিন কেবল (সাগরের তলদেশ দিয়ে যাওয়া বিদ্যুতের তার) স্থাপন করে বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট সেবা পৌঁছে দেওয়া হয় সন্দ্বীপে।
বিদ্যুৎ উন্নয়ন বোর্ড সূত্র জানায়, সাগরের তলদেশে ৩৩ হাজার ভোল্টের দুটি কেবল স্থাপন করতে চীনের একটি বিশেষায়িত জাহাজ থেকে ১০ ফুট দীর্ঘ এবং ৫ ফুট প্রস্থের একটি রোবট পানিতে নামানো হয়। যেটি সাগরের তলদেশের মাটি সরিয়ে তার বসায়। জাহাজে থাকা মনিটরের মাধ্যমে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠানের প্রকৌশলীরা এই কাজ তদারকি করে।
শুরুতে সন্দ্বীপে ১০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে। এর মাধ্যমে প্রথমে ১০ হাজার গ্রাহক বিদ্যুৎ পাবেন। সন্দ্বীপে বিদ্যুৎ সঞ্চালন লাইন বাড়ানোর পর সেখানে ৬০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করা যাবে।
এর আগে, সন্দ্বীপে জেনারেটরের (জ্বালানি তেল দিয়ে চলে) মাধ্যমে মাত্র এক মেগাওয়াট বিদ্যুৎ সরবরাহ করে আসছে পিডিবি। প্রতিদিন সন্ধ্যা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত সর্বোচ্চ ছয় ঘণ্টা বিদ্যুৎ পায় আড়াই হাজার গ্রাহক। উপজেলা সদরের বাইরে বেশ কিছু পরিবার সৌরবিদ্যুৎ ব্যবহার করে। আবার অনেকে ছোট জেনারেটর দিয়ে একটি নির্দিষ্ট সময় বিদ্যুৎ–সুবিধা পায়।
প্রসঙ্গত, ৮০ বর্গমাইল আয়তনের সন্দ্বীপের জনসংখ্যা প্রায় চার লাখ। এই দ্বীপ চট্টগ্রাম শহর থেকে নদী ও সাগরপথে ৫০ কিলোমিটার দূরে।

Related posts