শুক্রবার, ৫ মার্চ ২০২১ | ২০ ফাল্গুন ১৪২৭

Select your Top Menu from wp menus

শীতে বিপর্যস্ত খুলনাঞ্চলের জনজীবন

স্টাফ রিপোর্টার: প্রবাদ আছে মাঘের শীত বাঘের গায়ে। সেই মাঘের হিমেল হাওয়ায় বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে খুলনাঞ্চলের জনজীবন। বিভাগের বিভিন্ন জেলায় কমেছে তাপমাত্রা।
তাপমাত্রা কমার সঙ্গে সঙ্গে ঘন কুয়াশা আর কনকনে ঠাণ্ডায় স্থবির হয়ে পড়েছে স্বাভাবিক জীবনযাত্রা। মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ আরও দুই থেকে তিন দিন স্থায়ী হতে পারে বলে জানিয়েছে স্থানীয় আবহাওয়া অফিস।
তীব্র শীতের কারণে ব্যস্ততম মহানগরীতে প্রয়োজন ছাড়া ঘর থেকে লোকজন বের হচ্ছে না। যাত্রী কম থাকায় যান চলাচলও কমে গেছে। ঘন কুয়াশায় যানচলাচলে বিঘ্ন ঘটছে।
হঠাৎ শীতের দাপট বাড়ায় কাবু হয়ে পড়েছে খুলনার খেটে খাওয়া সাধারণ মানুষ। এছাড়া তীব্র শীতে কাতর হয়ে পড়েছে শিশু ও বৃদ্ধরা। খড়কুটোতে আগুন জ্বালিয়ে শীত নিবারণের চেষ্টা করছে হতদরিদ্র মানুষ। সূর্যের দেখা মিললেও ঠাণ্ডা বাতাসে বাড়িয়ে দিয়েছে শীত।
শীতজনিত নিউমোনিয়া, ডায়রিয়া, শ্বাসকষ্ট, পেটব্যথা, জন্ডিস, সর্দি-জ্বরে ভুগছে শিশু ও বৃদ্ধরা। এ কারণে খুলনা মেডিক্যাল কলেজ (খুমেক) হাসপাতাল ও শিশু হাসপাতালে বাড়ছে শীতজনিত রোগীর সংখ্যা।
শনিবার (১৬ জানুয়ারি) সকালে খুলনা আঞ্চলিক আবহাওয়া অফিসের সিনিয়র আবহাওয়াবিদ মো. আমিরুল আজাদ বলেন, খুলনা বিভাগে মৃদু থেকে মাঝারি শৈত্যপ্রবাহ শুরু হয়েছে গত দু’দিন আগে। বিভাগের সবচেয়ে বেশি শীত পড়ছে চুয়াডাঙ্গা ও যশোর জেলায়। সকালে খুলনার তাপমাত্রা ছিল ১২ দশমিক ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াস। বিভাগের সবচেয়ে কম তাপমাত্রা চুয়াডাঙ্গায় নয় দশমিক ছয় ডিগ্রি সেলসিয়াস। চলমান এ শৈত্যপ্রবাহ দুই থেকে তিন দিন স্থায়ী হতে পারে।

Related posts