মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল ২০২০ | ২৪ চৈত্র ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

রাশিয়াকে টপকে অস্ত্র উৎপাদনে দ্বিতীয় চীন

এসবিনিউজ ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে আমরা যে অস্ত্রের ঝনঝনানি দেখছি তার বেশির ভাগের কারিগর পশ্চিমা দেশগুলো। কিন্তু এশিয়ার দেশ চীনও বিগত শতাব্দী থেকে অস্ত্র উত্পাদনে টেক্কা দেওয়ার মতো অবস্থান তৈরি করেছে। সম্প্রতি প্রকাশিত এক পরিসংখ্যান বলছে, রাশিয়াকে টপকে বিশ্বের মোট অস্ত্র উত্পাদনের দ্বিতীয় বৃহত্তম অংশীদার এখন চীন।

সুইডেনের স্টকহোমভিত্তিক সমরাস্ত্র গবেষণা সংস্থা স্টকহোম ইন্টারন্যাশনাল পিস রিসার্চ ইনস্টিটিউট (এসআইপিআরআই) সোমবার বৈশ্বিক অস্ত্র আমদানি-রফতানি নিয়ে প্রতিবেদনে বলছে, যুক্তরাষ্ট্রের পর এখন বিশ্বে সবচেয়ে বেশি অস্ত্র উত্পাদন করে চীন। আর এই অবস্থানে যেতে তারা পেছনে ফেলেছে রাশিয়াকে।

সংস্থাটি তাদের ওই গবেষণা প্রতিবেদনে জানিয়েছে, বিদেশি অস্ত্র ও সামরিক সরঞ্জামের ওপর চীনের নির্ভরশীলতা এখন আগের চেয়ে অনেক কম। দেশটির অস্ত্র বিক্রির বাজার মূল্য এখন ৮০ বিলিয়ন ডলার। ২০১৭ সালে যা ছিল ৭০ বিলিয়ন ডলার। যুক্তরাষ্ট্রের এই বাজার এখন ২২৬ দশমিক ৬ এবং রাশিয়ার ৩৭ দশমিক ৭ বিলিয়ন ডলারের।

সুইডেনভিত্তিক ওই থিঙ্কট্যাঙ্ক বিশ্বের শীর্ষ ১০০ অস্ত্র উত্পাদনকারী কোম্পানির তথ্যের ভিত্তিতে তালিকাটি তৈরি করেছে। তথ্যের স্বচ্ছতা না থাকার কারণে বিগত বছরগুলোতে সংস্থাটি তাদের বার্ষিক প্রতিবেদনে চীনা কোম্পানিগুলোকে অন্তর্ভুক্ত করত না। কিন্তু এবারের তালিকায় দেখা যাচ্ছে প্রথম ২০ কোম্পানির চারটিই চীনের।

বর্তমান প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের শাসনামলে চীন তাদের অস্ত্র উত্পাদন শিল্পকে ব্যাপক সম্প্রসারিত করার সঙ্গে সঙ্গে সামরিক বাহিনীকে নতুনভাবে গড়ে তুলেছে। ২০৩৫ সালের মধ্যে বেইজিং তার সশস্ত্র বাহিনীকে আরো আধুনিকায়ন করতে চায়। এসআইপিআরআই-এর দেওয়া হিসাব অনুযায়ী, ২০১৭ সালে চীন তার সামরিক খাতে ব্যয় করেছে ২২৮ বিলিয়ন মার্কিন ডলার, যা দেশটির আনুষ্ঠানিক প্রতিরক্ষা বাজেট ১৫১ বিলিয়নের চেয়ে অনেক বেশি। প্রতিবেদনে তুলে ধরা পরিসংখ্যান বলছে, চীনের চার কোম্পানি মিলে ওই বছর ৫৪ দশমিক ১ বিলিয়ন ডলারের অস্ত্র বিক্রি করেছে।

Related posts