বুধবার, ২৫ জানুয়ারি ২০২৩ ❙ ১১ মাঘ ১৪২৯

রসুন কেন রাখতেই হবে!

প্রতিদিন অন্তত চার কোয়া রসুন খাওয়ার পরামর্শ দেন বিশেষজ্ঞরা।
কারণ:
• উচ্চরক্তচাপ কমায়
• হার্ট অ্যাটাক ও স্ট্রোকের ঝুঁকি কমে
• চর্বি ঝরিয়ে দেয়
• শরীর থেকে ক্ষতিকারক কোলেস্টেরল দূর করে
• রসুনের মধ্যে থাকা অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট মস্তিষ্কের সুস্থ বিকাশ ঘটায়
• রসুন মস্তিষ্কের রোগ আলঝেইমার বা স্মৃতিভ্রংশ ও ডিমনেশিয়া বা স্মৃতিভ্রম প্রতিরোধ করে
• স্বাস্থ্যকর গুণাবলী থাকায় রসুন মানুষকে বেশি বাঁচতে সাহায্য করে
• ক্লান্তি দূর করে শরীরে কাজ করার ক্ষমতা বাড়িয়ে দেয়
• নারীদের ইস্ট্রোজেনের (জরায়ু, স্তন ও প্রজনন অঙ্গের গঠনের ভূমিকা রাখে এমন হরমোন) অভাব দূর করে
• হাড়ের ক্ষয় কমাতে সাহায্য করে
• হজমে সাহায্য করে
• রসুন ছত্রাকের সংক্রমণে প্রতিষেধকরূপে কাজ করে
• রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ে, ফলে আয়ুও বাড়ে।
বুঝতেই পারছেন, প্রতিদিনের খাবারে কেন রসুন রাখতেই হবে। তবে অনেকেই কাঁচা রসুনের গন্ধ সহ্য করতে পারেন না। তারা রসুনের আচার খেতে পারেন।
জেনে নিন রসুনের আচারের রেসিপি:
উপকরণ: রসুন ১ কেজি, সরিষাবাটা আধা কাপ, আদাবাটা ২ টেবিল-চামচ, পাঁচফোড়ন ২ চা-চামচ, হলুদ গুঁড়া ১ চা-চামচ, মরিচ গুঁড়া ১ চা-চামচ, ভিনেগার ১ কাপ, সরিষার তেল ২ কাপ, চিনি ও লবণ স্বাদমতো।
প্রণালী: আদা ও সরিষা বাটা অল্প ভিনেগার দিয়ে গুলিয়ে রাখুন। হাঁড়িতে তেল দিয়ে পাঁচফোড়ন ফোঁড়ন দিয়ে চুলা থেকে হাঁড়ি নামিয়ে নিন। এবার আদা ও সরিষা বাটার মিশ্রণ, হলুদ ও মরিচ গুঁড়া ভালোভাবে তেলে মিশিয়ে রসুন দিয়ে আবার চুলায় দিন। বাকি ভিনেগার মিশিয়ে ঢাকনা দিয়ে মাঝারি আঁচে রান্না করুন।
স্বাদমতো চিনি ও লবণ মেশান। মাঝে মাঝে নেড়ে দিন।
শুকিয়ে তেল বের হলে নামিয়ে নিন। এবার ঠাণ্ডা করে বয়ামে ভরে সংরক্ষণ করুন।

Related posts