শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩ ❙ ১২ মাঘ ১৪২৯

ভারতের হাতে অভিনন্দনকে তুলে দিল পাকিস্তান

এসবিনিউজ ডেস্ক: ভারতের হাতে ‘ইন্ডিয়ান এয়ার ফোর্স’র(আইএএফ) পাইলট অভিনন্দনকে তুলে দিয়েছে পাকিস্তান। এরপর তিনি ভারতের আত্তারি ও পাকিস্তানের ওয়াগাহ সীমান্ত হয়ে দেশের উদ্দেশে রওনা হন।
এসময় আত্তারি সীমান্তে তাকে স্বাগত জানাতে উপস্থিত ছিলেন তার বাবা-মা এবং এয়ার ভাইস মার্শাল আরজিকে কাপুরসহ অসংখ্য ভারতীয়। ভারতীয় সময় শুক্রবার রাত নয়টা ৫৫ মিনিটে ভারতীয় গণমাধ্যম ‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’ এসব কথা জানায়।
এর আগে রাত আটটা ৫০ মিনিটে অভিনন্দন ওয়াগাহ সীমান্তে পৌঁছান বলে জানায় এবিপি নিউজ। এদিকে পাকিস্তানি গণমাধ্যম ‘ডন’ স্থানীয় সময় আটটা ২৯ মিনিটে জানায়, অভিনন্দনকে কঠোর নিরাপত্তার সঙ্গে ওয়াগাহ সীমান্তে নেয়া হয়েছে। কিছুক্ষণের মধ্যেই সীমান্ত পার হয়ে তিনি ভারতে পৌঁছাবেন।
এদিন বিকেল তিনটা ৩৬ মিনিটে পাকিস্তানি গণমাধ্যমটি জানায়, আইএএফের উইং কমান্ডার অভিনন্দন লাহোর পৌঁছেছেন। এরপর বিকেল চারটা ২৩ মিনিটে গণমাধ্যমটি জানায়, লাহোর থেকে ওয়াগাহ পৌঁছানোর পর তার মেডিকেল চেকআপ চলছে।
এরপর রাত সাতটা ৪৪ মিনিটে ভারতীয় গণমাধ্যম ‘দ্য হিন্দু’র বরাত দিয়ে ডন জানায়, ভারতীয় সময় নয়টায় অভিনন্দনকে ভারতের কাছে হস্তান্তর করবে পাকিস্তান। রাত সাতটা ৫৪ মিনিটে ভারতীয় গণমাধ্যম ‘নিউজ১৮’র বরাত দিয়ে গণমাধ্যমটি জানায়, শেষ মুহূর্তে ‘পেপারওয়ার্ক’র জন্য ভারতীয় পাইলটকে দেশে ফিরতে দেরি হচ্ছে।
ভারতের পক্ষ থেকে অভিনন্দনকে বিমানে ফেরত পাঠানোর দাবি করা হলেও পাকিস্তান তা প্রত্যাখ্যান করে। দেশটি জানায়, আত্তারি-ওয়াগাহ সীমান্ত দিয়ে তাকে ভারতের হাতে তুলে দেয়া হবে। একাধিক সরকারি সূত্রের বরাত দিয়ে এই তথ্য জানায় ‘টাইমস অব ইন্ডিয়া’।
গত ১৪ ফেব্রুয়ারি জম্মু-কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় পাকিস্তানে নিষিদ্ধ সংগঠন জইশ-ই-মোহাম্মদের হামলায় ৪০ ভারতীয় সৈন্য নিহত হওয়ার পর গত মঙ্গলবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ভোরে পাকিস্তানের খাইবার-পাখতুনখাওয়া প্রদেশের বালাকোটে সংগঠনটির শিবিরে বিমান হামলা চালিয়ে তিন শতাধিক জঙ্গি হত্যা করেছে বলে জানায় ভারত।
তবে ভারতের হামলা চালানোর দাবি স্বীকার করলেও হতাহতের দাবি প্রত্যাখ্যান করে পাকিস্তান। এরপর বুধবার সকালে লাইন অব কন্ট্রোল (এলওসি) পার হওয়া আইএএফের দুটি বিমান ভূপাতিত এবং উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে আটক করে হয়েছে বলে জানায় পাকিস্তানি প্রধানমন্ত্রী ইমরান।
এদিন পাকিস্তানি গণমাধ্যমগুলোতে প্রকাশিত একটি ভিডিও ক্লিপে অভিনন্দনকে বলতে শোনা যায়, পাকিস্তানের সেনাবাহিনী তার সঙ্গে খুব সুন্দর ব্যবহার করেছে এবং তারা খুবই ভালো। পরে নয়াদিল্লিতে নিযুক্ত পাকিস্তানি হাইকমিশনারকে তলব এবং অভিনন্দনকে ছেড়ে দেয়ার আশাবাদ ব্যক্ত করে ভারত।
বৃহস্পতিবার পাকিস্তানের সংসদে দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান শান্তির বার্তা হিসেবে আটক ভারতীয় পাইলট অভিনন্দনকে শুক্রবার ছেড়ে দেয়া হবে বলে ঘোষণা করেন। কিন্তু আইএএফর এয়ার ভাইস মার্শাল আরজিকে কাপুর বলেন, আমরা এটাকে শুধু জেনেভা কনভেনশনের চুক্তি বাস্তবায়ন হিসেবেই দেখছি।

Related posts