শুক্রবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩ ❙ ১২ মাঘ ১৪২৯

ভারতের বিমান হামলায় পাকিস্তানে ৩০০ জঙ্গি নিহত

এসবিনিউজ ডেস্ক: পাকিস্তানের নিয়ন্ত্রণরেখায় (লাইন অব কন্ট্রোল) ভারতের বিমানবাহিনীর হামলায় ৩০০ জন জঙ্গি নিহত হয়েছে বলে দাবি করেছে ভারত। ভারতীয় গণমাধ্যমের এক প্রতিবেদনে অনুযায়ী, হামলায় মারাত্মক ক্ষতি হয়েছে জইশের। অন্তত ২০০-৩০০ জঙ্গিকে নিকেশ করেছে যুদ্ধ বিমান। সূত্র মারফত এমনটাই খবর পাওয়া যাচ্ছে। তবে ভারতের হামলার কথা স্বীকার করে নিলেও কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলেই জানিয়েছে পাকিস্তানী সেনা।
মঙ্গলবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) ভোরে পাকিস্তানের জয়েশ-ই-মোহাম্মদ, হিজবুল্লাহ মুজাহেদীন ও লস্কর-ই-তায়েবার স্থাপনায় এ বিমান হামলা চালানো হয়। ভারতীয় সময় ভোর সাড়ে ৩টা নাগাদ মোট ১২টি মিরেজ ২০০০ জেট বিমান এ হামলায় অংশ নেয় এবং ১ হাজার কেজি বোমা বর্ষণ করে অনেক স্থাপনা গুঁড়িয়ে দিয়েছে। যুদ্ধ বিমান। ১ হাজার কেজি বোমা ফেলা হয়। প্রায় ৩০-৪০ মিনিট ধরে হামলা চালানো হয়। লাগাতার হামলায় ল-ভ- হয়ে হয়ে যায় পাক মাটিতে থাকা যুদ্ধ বিমান।
তবে পাকিস্তান এ ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি অস্বীকার করেছে। হামলার পর নিজ বাসভবনে নিরাপত্তা উপদেষ্টা অজিত দোভাল, প্রতিরক্ষামন্ত্রী নির্মলা সীতারমনসহ উচ্চপদস্থ মন্ত্রীদের নিয়ে জরুরি নিরাপত্তা বৈঠকে বসেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রধানমন্ত্রীর ওই বৈঠকের পর বিজয় কেশব গোখলে বিবৃতি দেন বলে আনন্দবাজার অনলাইনের এক প্রতিবেদনে বলা হয়। ১৪ ফেব্রুয়ারি পুলওয়ামায় সিআরপিএফ গাড়িবহরে আত্মঘাতী হামলায় ৪০ জন জওয়ানের মৃত্যু হয়। এর জবাব দিতেই ভারত এ হামলা চালিয়েছে।
আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমে জানা গেছে, ভারতের বিমান হামলার বিষয়টি টের পাওয়ার পর পাকিস্তানি সেনারা প্রতিরোধের চেষ্টা চালায়। তাদের তরফে পাঠানো হয় এফ-১৬ যুদ্ধবিমান। কিন্তু ভারতের শক্তি দেখে পালিয়ে যেতে বাধ্য হয় পাকিস্তানি সেনারা। কোনো রকম প্রতিরোধের সাহসই তারা দেখাতে পারেনি। এদিকে পাকিস্তান বলছে, হামলা চালানো হয়েছে পাকিস্তানের বালাকোটে। পাকিস্তানি বিমানবাহিনী প্রতিরোধ করেছে। তবে কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি বলে তাদের দাবি।
প্রসঙ্গত পুলওয়ামা হামলার পরেই কড়া জবাব দেয়া হবে বলে ইসলামাবাদকে হুঁশিয়ারি দিয়েছিল ভারতীয় সেনা। তার ঠিক পরেই পাকিস্তানের মাটিতে জঙ্গিদের উপর এই হামলা চালাল ভারতীয় বায়ুসেনা।

Related posts