বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারি ২০২০ | ৯ মাঘ ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

বিতর্কিত এ রায়ের পরিণাম হবে ভয়াবহ: মঞ্জু

বিএনপি চেয়ারপার্সন তিনবারের সফল সাবেক প্রধানমন্ত্রী দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজকে ‘বিতর্কিত’ অ্যাখ্যা দিয়ে বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেছেন, দেশবাসী এই ফরমায়েশি রায় মানে না। আমরা বিশ্বাস করি, সরকার আদালতকে প্রভাবিত করে এই রায় দিয়েছে। এই বিতর্কিত রায়ের পরিণাম হবে ভয়াবহ। জামিন না দিয়ে বেগম খালেদা জিয়াকে অন্যায়ভাবে কারাগারে আরও দীর্ঘ সময় আটক রাখার ষড়যন্ত্রে মেতে উঠেছে ফ্যাসিষ্ট সরকার।

সরকারকে উদ্দেশ্যে করে নগর বিএনপি’র সভাপতি আরও বলেন, আপনি বলছেন খালেদা জিয়া জেলখানায় রাজার হালে আছেন। তখনি দেশবাসী বুঝে নিয়েছিল, আপনি কি ইঙ্গিত করেছেন আদালতকে। সেদিন বেশি দূরে নয়; দেশবাসীও আপনাকে নিশ্চয়ই রাজার হালে রাখবে। আমরাও আপনাকে রাজার হালে রাখতে চাই।

সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ করার প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার তাৎক্ষনিক বিক্ষোভ মিছিল পূর্ব সমাবেশে তিনি উপরোক্ত কথা বলেন।

সর্বস্তরের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, এখন আর ঘরে বসে থাকলে চলবে না। খালেদা জিয়াকে কারামুক্ত করতে সকল বাঁধা উপেক্ষা করে রাজপথে নামতে হবে। সরকার খালেদা জিয়াকে জামিন না দিতে বিচার বিভাগ এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে প্রভাবিত করছে। আন্দোলনের মাধ্যমেই ফ্যাসিস্ট সরকারের উপযুক্ত জবাব দেয়া হবে বলে হুশিয়ারি উচ্চারণ করেন বিএনপির এই কেন্দ্রীয় নেতা।

বৃহস্পতিবার সকাল থেকেই নগরীর কে.ডি ঘোষ রোডস্থ দলীয় কার্যালয়ে ও আশ-পাশের এলাকায় জড়ো হয় বিএনপি নেতাকর্মীরা। সকলের দৃষ্টি ছিল টিভি পর্দায়; অপেক্ষা ‘মাদার অব ডেমোক্রেসি’ দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়ার জামিন আবেদনের রায়ের। স্লোগানে স্লোগানে প্রকম্পিত হয় দলীয় কার্যালয় এলাকা। নগরীর বিভিন্ন স্থান থেকে খন্ড খন্ড বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে জমায়েত হয় নেতাকর্মীরা। এরপর দলীয় কার্যালয়ের নিচে নেমে নেতাকর্মীদের সাথে স্লোগান দিয়ে শান্তিপুর্ণ অবস্থান এবং আদালতের ওপর পূর্ণ আস্থা ও শ্রদ্ধা রাখতে তৃণমূল নেতাকর্মীদের প্রতি আহ্বান জানান সাবেক এমপি নজরুল ইসলাম মঞ্জু। জোহরের নামাজের বিরতির পর আদালতের রায় শুনে তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়ায় তিনি উপরোক্ত বক্তব্য করে বিক্ষোভ মিছিল শুরু করেন। থানা মোড়ে পৌঁছালে পুলিশ বিএনপির মিছিলে বাঁধা দেয়। সেখান থেকে ফিরে এসে সংক্ষিপ্ত বক্তৃতার মধ্যদিয়ে সমাবেশ শেষ হয়।

এসময়ে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা বিএনপি’র সভাপতি এ্যাড. এসএম শফিকুল আলম মনা, সাবেক সিটি মেয়র মনিরুজ্জামান মনি, সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, আমীর এজাজ খান, মীর কায়সেদ আলী, জাফরউল্লাহ খান সাচ্চু, সিরাজুল ইসলাম মেঝভাই, এ্যাড. ফজলে হালিম লিটন, সৈয়দা রেহানা ঈসা, স ম আব্দুর রহমান, শেখ ইকবাল হোসেন, শাহ জালাল বাবলু, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, মনিরুজ্জামান মন্টু, শেখ আব্দুর রশিদ, মোল্লা খায়রুল ইসলাম, সিরাজুল হক নান্নু, মাহবুব কায়সার, নজরুল ইসলাম বাবু, আসাদুজ্জামান মুরাদ, আশরাফুল আলম নান্নু, মোল্লা মোশাররফ হোসেন মফিজ, সুলতান মাহমুদ পিন্টু প্রমুখ। খবর বিজ্ঞপ্তির

Related posts