সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

বাগেরহাটের সাবেক এমপি সেলিমের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ

স্টাফ রিপোর্টার: বাগেরহাট-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও বিএনপি নেতা এ এইচ সেলিমের বিরুদ্ধে জমি দখলের অভিযোগ করেছেন একই জেলার কচুয়া উপজেলার রাড়িপাড়া গ্রামের ডাকুয়া জাহিদুল ইসলাম। বুধবার (৬ নভেম্বর) খুলনা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ অভিযোগ করেন।

লিখিত অভিযোগে ডাকুয়া জাহিদুল ইসলাম বলেন, আমার পৈত্রিক ও ক্রয়কৃত রাড়িপাড়া মৌজার ২৭১১ ও ১২ দাগে কচুয়া গোয়াল মাঠ বাজারের কাছে মোট মোট ৫২ শতক জমি রয়েছে। বাগেরহাট-২ আসনের সাবেক সংসদ সদস্য ও ভূমিদস্যু এ এইচ সেলিম আমার এই জমি বিভিন্ন সময় হামলা, মামলা ও বিভিন্ন ধরনের হুমকি দিয়ে তার মায়ের নামে করা মাজেদা বেগম কৃষি প্রযুক্তি কলেজের নামে দখল করে নেয়। সম্প্রতি কলেজটি এমপিওভুক্ত হয়েছে। ওই সময় দখলদারদের বাধা দিলে আমার ভাই শহিদ ডাকুয়াকে পুলিশ দিয়ে থানায় ধরে নিয়ে শারীরিকভাবে নির্যাতন করে। অমানসিক নির্যাতনের ফলে জমি দেয়ার কথা স্বীকার করলে তাকে থানা থেকে ছেড়ে দেওয়া হয়। এরপর ২০০৫ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি আমার জমিতে থাকা রাইস মিলসহ বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ওই ভূমিদস্যুরা ভেঙ্গে ফেলে। পরে জমি ও মিলের ক্ষতিপূরণের অর্থ দেয়ার কথা স্বীকার করলেও অদ্যাবধি কোন মূল্য পরিশোধ করেনি। বিভিন্ন জায়গায় ধর্ণা দিয়েও ক্ষতিপূরণ পাইনি। আজ-কাল দেব বলে ঘোরাচ্ছে।  বিগত জোট সরকারের আমলে ওই ভূমিদস্যুদের অত্যাচারে ভিটা-মাটি ছেড়ে পরিবার পরিজন নিয়ে ভাড়া বাসায় বসবাস করছি। শুধু আমিই নয়, আমার মাকে বিভিন্ন হুমকি-ধামকি ও ভয়ভীতি দেখিয়ে ৪ কাঠা জমি লিখে নেয়। সেই জমির টাকা এখনও আমার মা পায়নি। এমনিভাবে এলাকার নিরীহ বহু লোকের জায়গা কলেজের নাম করে নিজ নামে লিখে নেয় ভূমিদস্যু সেলিম। ওই কলেজের অধ্যক্ষ আমার জমির মূল্য পরিশোধের উদ্যোগ নিয়েও বিভিন্ন রকম তালবাহানা করছে। এর আগে ২০০৭ সালের ২৯ অক্টোবর কলেজের অধ্যক্ষ কলেজের প্যাডে পুলিশ সুপারের বরাবরে একটি লিখিত অভিযোগ দেন। অভিযোগে আমার জমি দখলের বিশদ ব্যাখ্যা দেন। কিন্তু আজও আমি আমার জমি ফিরে পাইনি।

সংবাদ সম্মেলনে আরো বলা হয়, বিগত বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের শাসনামলে ক্ষমতার দাপটে ত্রাসের রাজত্ব কায়েমসহ এহেন কোন কর্মকা- নেই যা এ এইচ সেলিম করেননি। সে সময় ভয়ে এলাকার মানুষ মুখ খুলতে সাহস পায়নি। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর ভূমিদস্যু চক্রটি গাঁ ঢাকা দিলেও অদৃশ্য ইশারায় চালিয়ে যাচ্ছে দখল কর্মকা-।

Related posts