বৃহস্পতিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

ফুল ফুটুক না ফুটুক আজ বসন্ত

এসবিনিউজ ডেস্ক: কবি বলেছেন, ফুল ফুটুক না ফুটুক আজ বসন্ত। পাতাঝরা শীতের রুক্ষতা কাটিয়ে কোকিল-কণ্ঠে বসন্তের আগমনী গান শোনা যাচ্ছে প্রকৃতিতে। দখিনা বাতাসের দোলা লেগেছে ।

এ বছর বাংলা দিনপঞ্জিতে পরিবর্তন আসায় পয়লা ফাল্গুন পিছিয়েছে একদিন। অর্থাৎ আগামীকাল ১৪ ফেব্রুয়ারি পয়লা ফাল্গুন। তারপরও চিরায়ত নিয়মের রেশ কি সহজেই মুছে যায় মন থেকে! তাই তো প্রতিবছরের ন্যায় এবারও ১৩ ফেব্রুয়ারি বসন্তের সাজ সাজ রব উঠেছে ঢাবি ক্যাম্পাসে।

টিএসসি থেকে শুরু করে কার্জন হল, কলাভবন, বটতলা সবখানেই চোখে পড়ছে বসন্তের আমেজ। অনেকেই সেজেছেন বাসন্তী সাজে। বন্ধুরা সবাই মিলে আনন্দ-হুল্লোড়ে মেতে উঠেছেন। এরই মধ্যে মিলে যাচ্ছে চার চোখের চোরা চাউনি। অর্থাৎ একদিন আগেই এভাবে বসন্ত বরণে মেতেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অনেক শিক্ষার্থী।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহাসিক বটতলায় ইএমকে সেন্টার ও ঢাবি নৃত্যকলা বিভাগ যৌথভাবে বসন্ত আবাহন নামে বসন্ত উৎসবের আয়োজন করেছে। প্রতিবছর পয়লা ফাল্গুন বটতলায় বসন্ত উৎসবের আয়োজন হলেও এবছর একদিন আগেই হচ্ছে এই উৎসব। ‘বসন্ত এলো এলো এলো রে…’ ‘বসন্ত বাতাসে সই গো…’ প্রভৃতি গানে মেতে উঠেছে শ্রোতা। মার্কিন রাষ্ট্রদূত আর্ল রবার্ট মিলার এই উৎসবে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামান অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করেন।

একদিন আগেই বসন্ত উৎসবের আয়োজন করার কারণ জানতে চাইলে ইএমকে সেন্টারের প্রোগ্রাম কো-অর্ডিনেটর আকিব মো. সাতিল বলেন, ‘আগামীকাল যেহেতু বিশ্ববিদ্যালয় এবং অফিস-আদালত ছুটি তাই আজকেই আমরা বসন্ত বরণ উৎসবের আয়োজন করেছি।’

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী তালহা প্রান্ত বলেন, ‘আগে বসন্ত বরণ এবং বিশ্ব ভালোবাসা দিবস দুদিনে হতো। এবার যেহেতু ভালোবাসা দিবসেই পয়লা ফাল্গুন পড়েছে তাই আগামী কাল ভালোবাসা দিবস উদযাপন করব। আজ আমরা বসন্ত বরণ করছি।’

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, কাল বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকবে বিধায় কয়েকটি ডিপার্টমেন্টের শিক্ষার্থীরা আজকেই বসন্ত বরণ উৎসবের আয়োজন করেছে। তবে তাদের অনেকে আগে থেকে জানতেন না, প্রতিবছর এই দিনে বসন্ত বরণ উৎসব হলেও এ বছর দিনটি আগামীকাল পালিত হবে।

উল্লেখ্য বাংলাদেশের ঐতিহাসিক, সামাজিক দিবসগুলোকে গ্রেগরিয়ান ক্যালেন্ডারের সঙ্গে সমন্বয় করার জন্য বাংলা ক্যালেন্ডার পরিবর্তন করা হয়েছে। এখন থেকে পয়লা বৈশাখসহ জাতীয় গুরুত্বপূর্ণ দিনগুলো সেই তারিখ অনুযায়ী নির্দিষ্ট দিনে পালন করা হবে।পয়লা ফাল্গুন অতীতে প্রতিবছর ১৩ ফেব্রুয়ারি পালন করা হতো। ক্যালেন্ডার পরিবর্তন করায় ২০২০ সাল থেকে ফাল্গুন মাসের প্রথম দিন ১৪ ফেব্রুয়ারি।

Related posts