বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই ২০২০ | ৩১ আষাঢ় ১৪২৭

Select your Top Menu from wp menus

প্রস্তুত স্টেডিয়াম: একক অনুশীলনের অনুমতি দিল বোর্ড

স্পোর্টস ডেস্ক: ক্রিকেটারদের বরণ করে নিতে দেশের সবগুলো স্টেডিয়াম এখন প্রস্তুত। ক্রিকেটাররাও ব্যক্তিগত অনুশীলনের জন্য মাঠে নামার জন্য মুখিয়ে আছে। মুশফিকুর রহমানের মত কিছু সিনিয়র খেলোয়াড় বাংলাদেশ ক্রিকটে বোর্ডের(বিসিবি) কাছে ‘হোম অব ক্রিকেট’ খ্যাত মিরপুরের শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামসহ অন্যান্য স্টেডিয়ামে অনুশীলনের অনুমতি চেয়েছিলেন।
দ্বিধা-দ্বন্দ্বে থাকা বিসিবি প্রথমে অবশ্য বিষয়টি নাকচ করে দিয়েছিল। তবে শেষ পর্যন্ত সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে একক অনুশীলনের অনুমতি দিয়েছে বোর্ড। এ ক্ষেত্রে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট কাউন্সিলের (আইসিসি) গাইডলাইন অনুসরণ করছে বাংলাদেশের ক্রিকেটের নিয়ন্ত্রণ সংস্থাটি।
তবে সবার আগে বিসিবির প্রধান কাজ ছিল ভেন্যুগুলোকে জীবানু মুক্ত করা। যেটি তারা ইতোমধ্যে শেষ করেছে। বিসিবির গ্রাউন্ড কমিটির ম্যানেজার সৈয়দ আবদুল বাতেন বলেন, দেশের সবগুলো ক্রিকেট ভেন্যু এখন সম্পূর্ণভাবে জীবানু মুক্ত এবং অনুশীলনের জন্য প্রস্তুত। মাঠকে জীবানু মুক্ত করার বিষটি হচ্ছে একটি নিয়মিত প্রক্রিয়া। এমনকি করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাবের আগেও মাঠ নিয়মিত ভাবে জীবানুমুক্ত করা হতো। তবে পার্থক্য হচ্ছে এখন আমরা আরো বেশী সতর্কতার সঙ্গে মাঠকে জীবানুমুক্ত করার কাজটি করছি।
কক্সবাজার ছাড়া বাকী সবগুলো ভেন্যু ক্রিকেটারদের স্বাগত জানাতে প্রস্তুত রয়েছে উল্লেখ করে বাতেন বলেন, কক্সবাজার এখন লকডাউনে রয়েছে। তাই এই মুহূর্তে সেখানকার ভেন্যু ব্যবহার করা যাবে না। তবে আমরা সেখানেও নিয়মিত জীবানু নাশক কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছি। আশা করছি ২০ জুন লকডাউন তুলে নেয়ার পর থেকে সেখানে ক্রিকেটাররা অনুশীলন করতে পারবে।
এদিকে আগামী ২৫ জুন থেকে মিরপুরের শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়াম খেলোয়াড়দের অনুশীলনের জন্য খুলে দেয়ার পরিকল্পনা করছে বিসিবি। তবে একই সময় শুধুমাত্র একজন ক্রিকেটার দুইজন ক্রিকেট স্টাফকে সাথে নিয়ে অনুশীলণ করতে পারবে। এজন্য একেক জন খেলোয়াড়ের জন্য সর্বমোট সময় বরাদ্ধ ১ ঘণ্টা।
একক অনুশীলণ পরিচালনা করার পর ধাপে ধাপে দলগত অনুশীলন শুরু করবে বিসিবি। প্রথম ধাপে একত্রে ৩ জনের বেশি ক্রিকেটার একই ভেুন্যতে একত্রে অনুশীলন করতে পারবে না। এদিকে ৩৭ জন খেলোয়াড় নিয়ে একটি পুল গঠন করেছে বোর্ড। তারাই কেবল মাত্র শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অনুশীলনের সুযোগ পাবে।
কোভিড-১৯ এর মাহামারীর কারণে গত ১৬ মার্চ থেকে বন্ধ রয়েছে দেশের সব ধরনের ক্রিকেটীয় কর্মকাণ্ড। মাত্র ১ রাউন্ড শেষেই বন্ধ হয়ে গেছে ঢাকা প্রিমিয়ার লীগ (ডিপিএল)। বিশ্বব্যাপী ছড়িয়ে পড়া এই ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশ বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে ওয়ানডে ও টেস্ট ক্রিকেটের পাকিস্তান সফর সুচি। সেই সাথে অনির্দিষ্টকালের জন্য স্থগিত হয়ে গেছে আয়ারল্যান্ড ও ইংল্যান্ড সফর সুচি। এমনকি জুন-জুলাইয়ের পুর্ব নির্ধারিত শ্রীলংকা সফল সুচিও হুমকীতে পড়েছে।

Related posts