শনিবার, ৬ মার্চ ২০২১ | ২১ ফাল্গুন ১৪২৭

Select your Top Menu from wp menus

প্রধানমন্ত্রী নারীর ক্ষমতায়নে কাজ করে চলেছেন: ইন্দিরা

স্টাফ রিপোর্টার: ‘জয়িতা অন্বেষণে বাংলাদেশ’ শীর্ষক কর্মসূচির আওতায় খুলনা বিভাগীয় পর্যায়ে ২০১৯-২০২০ অর্থবছরের শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের সম্মাননা প্রদান অনুষ্ঠান সোমবার (১৯ জানুয়ারি) খুলনা পাবলিক কলেজ মিলনায়তনে অনুষ্ঠিত হয়। মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেছা ইন্দিরা ঢাকা শিশু একাডেমি প্রান্ত হতে অনলাইনে ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে প্রধান অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানে যুক্ত হন।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা স্বাধীন বাংলাদেশে নারীদের রাজনৈতিক ক্ষমতায়নের পদক্ষেপ গ্রহণ করেন। তাঁরই কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নারী শিক্ষা ও নারীর ক্ষমতায়নে কাজ করে চলেছেন। তিনিই ২০১০ সালে জয়িতা সম্মাননা চালু করেন। প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, নারী-পুরুষ সমতাভিত্তিক সমাজ নিশ্চিতে পৃথিবীর একশ ৫৩টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ৫০তম। স্থানীয় সরকার নির্বাচনে প্রায় ২০ হাজার নারী নির্বাচিত হয়ে জনপ্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির অংশ হিসেবে ভিজিডি কর্মসূচির আওতায় ১০ লাখ নারী, মাতৃত্বকালীন ভাতার আওতায় সাত লাখ ৭০ হাজার নারী এবং ল্যাকটেটিং মাদার সহায়তা কর্মসূচির আওতায় দুই লাখ ৭৫ হাজার জন নারী আর্থিক সহায়তা পাচ্ছেন। নারীদের স্বাবলম্বী করতে মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তর ৩৫টি ট্রেডে প্রশিক্ষণ প্রদান করে। প্রতিমন্ত্রী খুলনা বিভাগে বিজয়ী জয়িতাদের অভিনন্দন জানিয়ে বলেন, জয়িতারা জীবনের সবখানে বিজয়ী হবেন।
মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের খুলনা জেলা কার্যালয়ের উদ্যোগে ও বিভাগীয় প্রশাসনের আয়োজনে এ অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেন। ভার্চুয়াল পদ্ধতিতে বিশেষ অতিথি ছিলেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব কাজী রওশন আক্তার। এসময় অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) সৈয়দ রবিউল আলম, খুলনা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের স্থানীয় সরকার বিভাগের উপপরিচালক মোঃ ইকবাল হোসেন, খুলনা পাবলিক কলেজের অধ্যক্ষ লে. কর্নেল আবদুল মোক্তাদের, জেলা মহিলা বিষয়ক কার্যালয়ের উপপরিচালক নার্গিস ফাতেমা জামিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানে সরকারি কর্মকর্তা, বিভিন্ন নারী সংগঠনের প্রতিনিধি, সাবেক ও বর্তমান জয়িতাসহ গণমাধ্যমকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে খুলনা বিভাগে নির্বাচিত শ্রেষ্ঠ জয়িতাদের হাতে প্রধান অতিথির পক্ষে পুরস্কারের চেক, সনদপত্র ও সম্মাননা স্মারক তুলে দেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার মোঃ ইসমাইল হোসেন।
খুলনা বিভাগের ১০ জেলা হতে নির্বাচিত ৫০ জন জয়িতার মধ্য হতে বিভাগীয় পর্যায়ে নির্বাচিত পাঁচজন শ্রেষ্ঠ জয়িতা হলেন, অর্থনৈতিকভাবে সাফল্য অর্জনকারী নারী ক্যাটাগরিতে ঝিনাইদহের লাভলী ইয়াসমিন, শিক্ষা ও চাকুরী ক্ষেত্রে সাফল্য অর্জনকারী নারী ক্যাটাগরিতে নড়াইলের ড. শেখ মুসলিমা মুন, সফল জননী নারী ক্যাটাগরিতে খুলনার রাবেয়া বেগম, নির্যাতনের বিভীষিকা মুছে ফেলে নতুন উদ্যমে জীবন শুরু করা নারী ক্যাটাগরিতে নড়াইলের সানজিদা রহমান আদরী এবং সমাজ উন্নয়নে অসামান্য অবদান রেখেছেন যে নারী ক্যাটাগরিতে খুলনার অঞ্জনা বালা বিশ^াস। এসময় নির্বাচিত পাঁচজন রানার-আপ জয়িতা এবং খুলনা বিভাগের জেলা পর্যায়ে নির্বাচিত সকল জয়িতাকে সম্মাননা স্মারক, পুরস্কারের চেক ও সনদপত্র প্রদান করা হয়।

Related posts