বৃহস্পতিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১ | ১২ ফাল্গুন ১৪২৭

Select your Top Menu from wp menus

পৌরসভায় মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন যারা

এসবিনিউজ ডেস্ক: দ্বিতীয় দফায় বেশির ভাগ পৌরসভায় মেয়র পদে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা জয়লাভ করেছেন। শনিবার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ২৪ পৌরসভায় ভোটগহণ করা হয়। ভোট শেষে গণনা শুরু হয়। এই দফায় অর্ধেক পৌরসভায় ইভিএম এবং বাকিগুলোতে ব্যালট পেপারে ভোট নেয়া হয়। ইভিএমে দ্রুতই ফল ঘোষণা করা হয়।
এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ৬০ পৌরসভার মধ্যে ৪১টির ফলে ৩১টিতে আওয়ামী লীগ, ৪টিতে বিএনপি ১টিতে জাসদ, ১টিতে জাতীয় পার্টি এবং ৪টিতে স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়লাভ করেছেন। অপরদিকে চারটি পৌরসভায় মেয়র পদে প্রার্থীরা বিনাপ্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়লাভ করেন। নির্বাচনে যারা জয় লাভ করেছেন তাদের মধ্যে রয়েছে।
ফেনী: ফেনীর দাগনভূঞা পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ওমর ফারুক খান ৮ হাজার ২৪০ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে বিজয়ী হয়েছেন ফারুক। নিকটতম বিএনপির কাজী সাইফুর রহমান পেয়েছেন ৯২৭ ভোট।
বগুড়া: সান্তাহার পৌরসভায় মেয়র পদে বিএনপি প্রার্থী তোফাজ্জল হোসেন ভুট্টু ৭ হাজার ৭৮৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম আওয়ামী লীগের মোঃ আশরাফুল ইসলাম ইসলাম মন্টু পেয়েছেন ৭ হাজার ৪০২ ভোট। সারিয়াকান্দি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মতিউর রহমান (নৌকা) ৬ হাজার ৫৭৪ ভোট পেয়ে বেসরকারী ফলে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্রপ্রার্থী আলমগীর শাহী সুমন (নারিকেল গাছ) পেয়েছেন ২ হাজার ৭৯৬ ভোট।
নোয়াখালী: কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌর নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের আবদুল কাদের মির্জা ১০৯ হাজার ৭৩৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম বিএনপির কামাল উদ্দিন পেয়েছেন ১ হাজার ৭৭৮ ভোট।
ঝিনাইদহ: শৈলকুপা পৌর মেয়র পদে আওয়ামী লীগের কাজী আশরাফুল আজম ১০ হাজার ৮৮৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম স্বতন্ত্র প্রার্থী তৈয়বুর রহমান খান পেয়েছেন ৭ হাজার ২৮১ ভোট।
মেহেরপুর: গাংনী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের আহম্মেদ আলী ৯ হাজার ৪৬৭ ভোট নির্বাচিত হয়েছেন। নিকটতম বর্তমান য়ের আশরাফুল ইসলাম পেয়েছেন ২ হাজার ৬৫১ ভোট।
বাগেরহাট: মংলা পোর্ট পৌরসভার নির্বাচনে আ’লীগের শেখ আব্দুর রহমান ১১ হাজার ৫৮৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম বিএনপির জুলফিকার আলী পেয়েছেন ৫৮২ ভোট।
দিনাজপুর: বীরগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে স্বতন্ত্র প্রার্থী বর্তমান মেয়র মোঃ মোশারফ হোসেন বাবুল ৩ হাজার ৯৯৩ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী পেয়েছেন ৩ হাজার ৯৪৬ ভোট। সদরে মেয়র বিএনপি নেতা সৈয়দ জাহাঙ্গীর আলম ৪৪ হাজার ৯শ’ ৩৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের রাশেদ পারভেজ (নৌকা) পান ২৪ হাজার ২শ’ ৬২ ভোট। বিরামপুর পৌরসভায় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী আক্কাস আলী মেয়র পদে বিজয়ী হয়েছেন। তিনি ভোট পান ১৫ হাজার ৩শ’ ৫৯ ভোট। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুজ্জামান সরকার (নারিকেল গাছ) পান ৮ হাজার ৬শ’ ৮৬ ভোট।
পাবনা: সাঁথিয়া পৌর নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী মাহবুবুল আলম বেসরকারীভাবে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী হলেন বিএনপির সিরাজুল ইসলাম সিরাজ। ফরিদপুর পৌর মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র খ ম কামরুজ্জামান বিএনপির এনামুল হককে পরাজিত করে বিজয়ী হয়েছেন।
সুনামগঞ্জ: ছাতকে চতুর্থবারের মতো মেয়র হলেন আওয়ামী লীগের নৌকার মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র আবুল কালাম। তিনি ১২ হাজার ৮২৩ ভোটে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী ন্যান্সি ৭ হাজার ৯০৮ ভোট পেয়েছেন। সদরে মেয়র পদে দ্বিতীয়বারের মতো আওয়ামী লীগের নৌকার মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র নাদের বখত ২১ হাজার ৬৮৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মনোনীত ধানের শীষের প্রার্থী মুর্শেদ আলম পেয়েছেন ৫ হাজার ৮৭০ ভোট। জগন্নাথপুর পৌরসভায় বিএনপির বিদ্রোহী প্রার্থী সাবেক মেয়র আক্তারুজ্জামান আক্তার চামচ প্রতীক নিয়ে ৮ হাজার ৩৭৮ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের মিজানুর রশীদ ভূঁইয়া নৌকা প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৮ হাজার ১৮ ভোট।
রাজশাহী: আড়ানী পৌরসভায় বেসরকারীভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও বর্তমান মেয়র মোঃ মুক্তার আলী। স্বতন্ত্র হিসেবে তিনি পেয়েছেন ৫৯০২ ভোট। নিকটতম আওয়ামী লীগের শহীদুজ্জামান সাইদ পেয়েছেন ৪১১৯ ভোট। গোদাগাড়ী উপজেলার কাকনহাট পৌরসভার মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন আওয়ীমী লীগের একেএম আতাউর রহমান খান। তিনি ভোট পেয়েছেন ৫ হাজার ৫৮৫ ভোট। তার নিকটতম বিএনপির হাফিজুর রহমান হাফিজ ধানের শীষ প্রতিকে ভোট পেয়েছেন ৫ হাজার ১২২ ভোট। ভবানীগঞ্জ পৌরসভার নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মেয়র প্রার্থী আব্দুল মালেক মণ্ডল তার নৌকা প্রতীকে ৭ হাজার ৩১৯ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছে। তার নিকটতম প্রতীদ্বন্দ্বী জগ প্রতীকের স্বতন্ত্র প্রার্থী এসএম মামুনুর রশিদ পেয়েছেন ২৬৯৯ ভোট।
নেত্রকোনা: মোহনগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এ্যাডভোকেট লতিফুর রহমান রতন (নৌকা) ৯ হাজার ৪শ’ ৫৪ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী তাহমিনা পারভীন বীথি (নারিকেল গাছ) পেয়েছেন ৪ হাজার ২শ’ ৫১ ভোট। কেন্দুয়া পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আসাদুল হক ভূঁইয়া (নৌকা) ৯ হাজার ১শ’ ৯১ ভোট পেয়ে জয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত প্রার্থী শফিকুল ইসলাম (ধানের শীষ) পেয়েছেন ২ হাজার ২শ ৩৯ ভোট।
নরসিংদী: মনোহরদী পৌরসভার নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী বর্তমান মেয়র আমিনুর রশিদ সুজন বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। নির্বাচনে আমিনুর রশিদ সুজন পেয়েছেন ৮ হাজার ৮৮২ ভোট, তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মনোনীত প্রার্থী মাহমুদুল হক পেয়েছেন ৫৮৫ ভোট।
কুষ্টিয়া: চারটি পৌরসভার মধ্যে মেয়র পদে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের তিনজন প্রার্থী এবং একটিতে জাসদের মশাল প্রতীকের প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। সদরে আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মেয়র পদে প্রার্থী আনোয়ার আলী বিজয়ী হয়েছেন।
মিরপুর পৌরসভায় মেয়র পদে আওয়ামী লীগ প্রার্থী এনামুল হক মালিথা জয়ী হয়েছেন। তিনি ১০ হাজার ৪৬৮ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আরিফুল ইসলাম মোবাইল মার্কা প্রতীকে ২ হাজার ৫১৫ ভোট পেয়েছেন। কুমারখালী পৌরসভায় আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকের মেয়র পদে প্রার্থী সামসুজ্জামান অরুণ বিজয়ী হয়েছেন। তিনি ১০ হাজার ১১০ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী বিএনপির আনিচুর রহমান ধানের শীষ প্রতীকে ২ হাজার ৩৮৬ ভোট পেয়েছেন। ভেড়ামারায় জাসদ মনোনীত মশাল প্রতীকের মেয়র পদে প্রার্থী আনোয়ার কবির টুটুল জয়ী হয়েছেন। তিনি ৭ হাজার ৯৩৫ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকে ৫ হাজার ৫৪৯ ভোট পেয়েছেন।
নাটোর: তিনটি পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন। নাটোরের নলডাঙ্গা পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী মনিরুজ্জামান মনির বেসরকারী ফলে নির্বাচিত হয়েছেন। গোপালপুর পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী রুখসানা মোর্তজা লিলি ৬৫৭৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী মঞ্জুরুল ইসলাম বিমল পেয়েছেন ৫১৩৫ ভোট এবং গুরুদাসপুর পৌরসভায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী শাহনেওয়াজ আলী মোল্লা ৭৫৯৮ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ আলী ৪৪৬৫ ভোট।
নওগাঁ: নজিপুর পৌরসভা নির্বাচনে নৌকা প্রতীকের প্রার্থী রেজাউল কবির চৌধুরী বালু বাবু ৭ হাজার ৬৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম একমাত্র প্রার্থী বিএনপির ধানের শীষের সাবেক মেয়র মোঃ আনোয়ার হোসেন পেয়েছেন ৫ হাজার ২০৩ ভোট।
হবিগঞ্জ: মাধবপুর পৌরসভা নির্বাচনে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী হাবিবুর রহমান (ধানের শীষ) ৫ হাজার ৩১ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে মেয়র নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী স্বতন্ত্র (নারিকেল গাছ) পংকজ কুমার সাহা পেয়েছেন ৪ হাজার ১শ’ ৮৫ ভোট।
কুমিল্লা: চান্দিনা পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী শওকত হোসেন ভূঁইয়া ৯ হাজার ৪৫১ ভোট পেয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী শামীম হোসেন জগ প্রতীকে ৩ হাজার ১৫৫ ভোট পেয়েছেন।
খাগড়াছড়ি পৌরসভা নির্বাচনে জয়ী হয়েছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নির্মলেন্দু চৌধুরী। তিনি পেয়েছেন ৯ হাজার ৩২ ভোট। নিকটতম আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী টানা দুই বারের মেয়র মোঃ রফিকুল আলম পেয়েছেন ৮ হাজার ৭৪৯ ভোট।
সাভার: পৌরসভায় মেয়র পদে আওয়ামী লীগের ‘নৌকা’ প্রতীকে হাজী আব্দুল গনি বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি নৌকা প্রতীকে ৫৬,৮০৪ ভোট পেয়েছেন। তার প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত মোঃ রেফাত উল্লাহ ‘ধানের শীষ’ প্রতীকে পেয়েছেন ৫, হাজার ৩৩০ ভোট।
ময়মনসিংহের মুক্তাগাছা পৌরসভার নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী বিল্লাল হোসেন সরকার নৌকা প্রতীকে ১৭৩২০ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হযেছেন। ফুলবাড়িয়া পৌরসভার নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী গোলাম কিবরিয়া নৌকা প্রতীকে ৫৬০৬ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।
গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে জাতীয় পার্টির প্রার্থী আব্দুর রশিদ রেজা সরকার বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি ভোট পেয়েছেন ২ হাজার ৭০৪। তার নিকটতম প্রার্থী নৌকা সমর্থিত বর্তমান মেয়র আব্দুল্লাহ আল মামুন ভোট পেয়েছেন ২ হাজার ৫শ’ ৫৮।
সিরাজগঞ্জে ৫ পৌরসভার নির্বাচনে ইতোমধ্যেই চারটি পৌরসভার বেসরকারী ফল পাওয়া গেছে। প্রাপ্ত ফলে রায়গঞ্জ পৌরসভায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী আব্দুল্লাহ আল পাঠান নৌকা প্রতীকে ৮৯৭০ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকের জাহিদুল ইসলাম জাহিদ পেয়েছেন মাত্র ৫৭৫ ভোট। কাজিপুর পৌরসভায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আব্দুল হান্নান তালকদার বিজয়ী হয়েছেন। বেলকুচি পৌরসভায় যুবলীগ থেকে বহিষ্কৃত সাজ্জাদুল হক রেজা স্বতন্ত্র প্রার্থী নারিকেল গাছ প্রতীকে ১৮৩৮৭ ভোট পেয়ে বেসরকারীভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী আশানুর বিশ্বাস পেয়েছেন ১২৭৮৪ ভোট। উল্লাপাড়া পৌরসভায় আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী এসএম নজরুল ইসলাম নৌকা প্রতীকের ২৪৫০৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত ধানের শীষ প্রতীকে ভোট পেয়েছেন ১০৭৬ ভোট।
বান্দরবানের লামা পৌরসভা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী মোঃ জহিরুল ইসলাম বেসরকারীভাবে বিজয়ী হয়েছেন। নৌকা প্রতীক নিয়ে তার প্রাপ্ত ভোটের সংখ্যা ৯ হাজার ৪০৫। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী ধানের শীষ প্রতীকে মোহাম্মদ শাহীন পেয়েছেন এক হাজার ৬২ ভোট।
এদিকে কিশোরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে মেয়র পদে এগিয়ে রয়েছেন আওয়ামী লীগ প্রার্থী বর্তমান মেয়র মোঃ পারভেজ মিয়া (নৌকা)। বেসরকারীভাবে পাওয়া ফলে মোট ২৮ কেন্দ্রের মধ্যে ২৭ কেন্দ্রে পারভেজ ৪৩৮ ভোটে এগিয়ে রয়েছেন। অন্যদিকে স্থগিত ওয়ালীনেওয়াজ খান কলেজের পূর্ব তিনতলা ভবন কেন্দ্রে ভোটার সংখ্যা ১৮৫২ জন। ফলে নির্বাচনে জয়-পরাজয় ওই কেন্দ্রের ফলের ওপর নির্ভর করছে।
বেসরকারীভাবে পাওয়া ফলে ২৭ কেন্দ্রে আওয়ামী লীগ প্রার্থী বর্তমান মেয়র মোঃ পারভেজ মিয়া (নৌকা) পেয়েছেন ২০ হাজার ৯২০ ভোট। অন্যদিকে বিএনপি প্রার্থী জেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক মোঃ ইসরাইল মিঞা (ধানের শীষ) পেয়েছেন ২০ হাজার ৪৮২ ভোট।

Related posts