সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯ | ৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

ধেয়ে আসছে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল: মোকাবেলায় সর্বাত্মক প্রস্তুতি

স্টাফ রিপোর্টার: বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ এর প্রভাবে উপকূলীয় জেলা খুলনার আকাশ মেঘাচ্ছন্ন রয়েছে।  শুক্রবার (৮নভেম্বর) সকাল থেকে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি হচ্ছে। ঘুর্ণিঝড় বুলবুলের মোকাবিলায় খুলনা সদরসহ ৯ উপজেলায় কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। সরকারি-বেসরকারি ৩৪৯টি সাইক্লোন শেল্টার প্রস্তুত রয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট প্রবল শক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’ শনিবার দুপুর অথবা বিকেলের দিকে দক্ষিণ-পশ্চিম উপক’ল সুন্দরবন ও খুলনায় আঘাত হানতে পারে।

আবহাওয়া অফিস জানায়, ঘূর্ণিঝড় ‘বুলবুল’-এর কারণে সাগর উত্তাল হয়ে উঠেছে। শুক্রবার ভোর ছয়টা থেকে মংলা সমুদ্রবন্দরকে ৪ নম্বর সতর্কতা সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

খুলনা আবহাওয়া অফিসের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা আমিরুল আজাদ জানিয়েছেন, ‘শুক্রবার বেলা ১২টা নাগাদ মোংলা সমুদ্রবন্দরের জন্য ৪ নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারি সংকেত অব্যাহত রাখা হচ্ছে। বেলা ১২টা পর্যন্ত মোংলা থেকে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল ৫৮৫ কিলোমিটার দূরে অবস্থান করছিল। ঘূর্ণিঝড়টি ভারতের উড়িষ্যা, পশ্চিমবঙ্গ হয়ে বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম করার আশঙ্কা রয়েছে। এর প্রভাবে শুক্রবার সকাল ৯টার পর থেকে খুলনার আকাশে মেঘমালা দেখা যায়। দুপরের পর থেকে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি শুরু হয়। তিনি জানান, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১০০ কিলোমিটার। যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। সাগর উত্তাল রয়েছে।

এদিকে, ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবেলায় জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভা  শুক্রবার (৮নভেম্বর) বিকেলে খুলনা সার্কিট হাউস সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন সভায় সভাপতিত্ব করেন।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল মোকাবেলায় ইতোমধ্যে ৩৪৯টি ঘূর্ণিঝড় আশ্রয়কেন্দ্র প্রস্তুত রাখা হয়েছে। সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভবনগুলো আশ্রয়প্রার্থীদের জন্য খুলে রাখা হয়েছে। উপজেলা প্রশাসনসহ জনপ্রতিনিধিদের কাছে দুর্যোগকালীন করণীয় সম্পর্কে ইতোমধ্যে বার্তা পৌঁছানো হয়েছে এবং খুলনায় একটি নিয়ন্ত্রণ কক্ষও খোলা হয়েছে যার নম্বর ০৪১-২৮৩০০৫১।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুল বিকেল পাঁচটায় মোংলা বন্দর হতে ৫৮৫ কিঃমিঃ দক্ষিণ পশ্চিমে অবস্থান করছে। এটি শনিবার সন্ধ্যায় খুলনা উপকূলে আঘাত হানার আশংঙ্কা আছে।

ঘূর্ণিঝড় বুলবুলের কারণে ইতোমধ্যে রাসমেলামুখী সকল নৌযান চলাচল বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। রেডক্রিসেন্টসহ উদ্ধারকর্মীরা প্রস্তুত আছে। পর্যাপ্ত শুকনো খাবার, অর্থ, ওষুধ এবং পানি বিশুদ্ধকরণ ট্যাবলেট মজুদ রাখা হয়েছে। পানি উন্নয়ন বোর্ড, সড়ক বিভাগ,মৎস্য বিভাগ, প্রাণিসম্পদ বিভাগ, কৃষি বিভাগমহ সকল বিভাগ তাদের অধিক্ষেত্রে সম্পদ রক্ষার সকল প্রস্তুতি ইতোমধ্যে গ্রহণ করেছে এবং কর্মকর্তা ও কর্মচারী তাদের  ছুটি বাতিল করেছে। খুলনা জেলার কয়রা, পাইকগাছা, দাকোপ ও বটিয়াঘাটায় আক্রান্ত প্রবণ এলাকা। এই সকল এলাকায় অতিরিক্ত সতর্কতা জারি ও প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

ইতোমধ্যে উপজেলা এবং ইউনিয়ন পর্যায়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাও অনুষ্ঠিত হয়েছে।

পরে একই স্থানে খুলনার ভারপ্রাপ্ত বিভাগীয় কমিশনার সুবাস চন্দ্র সাহার সভাপতিত্বে খুলনা বিভাগীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়। বিভাগীয় পর্যায়ে যে নিয়ন্ত্রণ কক্ষটি খোলা হয়েছে তার নম্বর-০৪১-৮১৩৯৪০ এবং ০৪১-৮১৩৯৮১। সভায় জানানো হয়, খুলনা, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট জেলায় ইতোমধ্যে ঘূর্ণিঝড় মোকাবেলায় প্রয়োজনীয় প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে।

Related posts