শুক্রবার, ১০ জুলাই ২০২০ | ২৬ আষাঢ় ১৪২৭

Select your Top Menu from wp menus

ডিজিটাল অ্যাপসের মাধ্যমে শ্রম পরিদর্শন করার ঘোষণা শ্রম প্রতিমন্ত্রীর

স্টাফ রিপোর্টার: স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা এবং বিশ^াসযোগ্যতা আনায়নে কলকারখানার শ্রম পরিদর্শনের সকল কার্মকান্ড ডিজিটাল অ্যাপস ‘লিমার’ মাধ্যমে করার ঘোষণা দিয়েছেন শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান।

রোববার (১৫ সেপ্টেম্বর) খুলনা মহানগরীর একটি হোটেলে শ্রম পরিদর্শকের জন্য তিনদিন ব্যাপী লিমা রিফ্রেসার প্রশিক্ষণের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এ ঘোষণা দেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, শ্রম পরিদর্শনে ডিজিটাল অ্যাপস ব্যবহার করলে কম সময়ে সুচারুরূপে করা সম্ভব হবে। কারখানা পরিদর্শনের অনেক তথ্য যে কেউ জানতে পারবেন। পরিদর্শন সিস্টেমকে আপডেট করা হবে।  ডিজিটাল সিস্টেমে যোগ্য করে তুলতে কারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তরের সকল পরিদর্শককে নিয়মিত প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হবে।

গত বছর ৭ মার্চ কলকারখানার শ্রম পরিদর্শনে ডিজিটাল অ্যাপস ‘লেবার ইনসপেকশন ম্যানেজমেন্ট অ্যাপস লিমা’ আনুষ্ঠানিকভাবে চালু করা হয়। গত জানুয়ারি থেকে শ্রম পরিদর্শকগণ পরিদর্শন কার্যক্রমে মোবাইল ও ট্যাব লিমা অ্যাপসের মাধ্যম চেকলিস্ট পূরণ করছেন। গামের্ন্টস খাতের জন্য চেকলিস্ট ১০০টি প্রশ্ন রয়েছে। গামের্ন্টস ছাড়াও আরো চারটি সেক্টরের জন্য চেকলিস্টতে অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। ভবিষ্যতে সকল সেক্টরের চেকলিস্ট এ অন্তর্ভুক্ত করা হবে। লিমার কার্যক্রম বিস্তৃত করা হচ্ছে।

এবছর জানুয়ারিতে দুইশত তিনটি কারখানার শ্রম পরিদর্শন লিমার সিস্টেমে করা হয়। আগস্টে এটি দাঁড়িয়েছে এক হাজার ৮২টি তে। এ পর্যন্ত ২৯ হাজার পাঁচশ ১০টি কারখানার তথ্য এ অ্যাপসে অন্তর্ভুক্ত হয়েছে।

তিনদিন ব্যাপি এ প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান অধিদপ্তারের খুলনা বিভাগের ২৭ জন শ্রম পরিদর্শক অংশ গ্রহণ করেন। কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর এবং আইএলও বাংলাদেশ যৌথভাবে এ প্রশিক্ষণের আয়োজন করে।

কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক শিবনাথ রায়ের সভাপতিত্বে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে মন্ত্রণালয়ের সচিব কে এম আলী আজম, খুলনার বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া, মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. মোল্লা জালাল উদ্দিন, শ্রম অধিদপ্তরের মহাপরিচালক এ কে এম  মিজানুর রহমান, বাংলাদেশ শ্রমিক কল্যাণ ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক ড. আনিসুল আওয়াল, জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ হেলাল হোসেন এবং আইএলও বাংলাদেশের চীফ টেকনিক্যাল অ্যাডভাইজার জর্জ ফেলার। স্বাগত বক্তৃতা করেন কলকারখানা ও প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন অধিদপ্তর খুলনার উপমহাপরিদর্শক মোঃ আরিফুল ইসলাম।

Related posts