সোমবার, ৯ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

খুলনা শিপইয়ার্ডে পাঁচটি প্যাট্রোল ক্র্যাফ্টের কিল লেয়িং অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার: খুলনা শিপইয়ার্ডে বাংলাদেশ নৌবাহিনীর জন্য নির্মিতব্য পাঁচটি প্যাট্রোল ক্র্যাফ্টের কিল লেয়িং (নির্মাণ কাজের উদ্বোধন) অনুষ্ঠান সোমবার (২ ডিসেম্বর) বিকেলে শিপইয়ার্ড প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন নৌবাহিনী প্রধান এডমিরাল আওরঙ্গজেব চৌধুরী।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি নৌবাহিনী প্রধান বলেন, খুলনা শিপইয়ার্ড এপর্যন্ত যুদ্ধ জাহাজসহ মোট ৭৩১টি জাহাজ নির্মাণ ও ২৩৩১টি জাহাজ মেরামতের কাজ সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করেছে। ইতোমধ্যে এ প্রতিষ্ঠান দেশের মাটিতে যুদ্ধ জাহাজ অর্থাৎ পাঁচটি প্যাট্রোল ক্র্যাফ্ট এবং দুইটি লার্জ প্যাট্রোল ক্র্যাফ্ট নির্মাণ করে নৌবাহিনীকে হস্তান্তর করেছে। এর ধারাবাহিকতায় আরও পাঁচটি প্যাট্রোল ক্র্যাফ্টের কিল লেয়িং অনুষ্ঠান আজ সম্পন্ন হয়েছে।

সমুদ্র জয়ের ফলে প্রাপ্ত বাংলাদেশের বিশাল সমুদ্র এলাকার নিরাপত্তা এবং ব্লু ইকনমি কার্যক্রমের কৌশলগত পরিকল্পনার অংশ হিসাবে স্বল্প মেয়াদী স্তরে নৌবাহিনীর জন্য এই পাঁচটি প্যাট্রোল ক্র্যাফ্ট নির্মাণ করা হচ্ছে। জাহাজসমূহ দ্বারা উপকূলীয় এলাকায় নিয়মিত টহল প্রদান, চোরাচালান বিরোধী অভিযান, দুর্ঘটনা পরবর্তী উদ্ধার ও অনুসন্ধান কার্যক্রম, মৎস্যসম্পদ সংরক্ষণ, প্রাকৃতিক দুর্যোগ পরবর্তী উদ্ধার ও ত্রাণ তৎপরতা পরিচালনা, পরিবেশ দুষণ প্রতিরোধসহ নানাবিধ কার্যক্রম পরিচালনার পাশাপাশি নৌবাহিনীর অপারেশনাল সক্ষমতা বৃদ্ধি করা সম্ভব হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুলনা শিপইয়ার্ডকে ১৯৯৯ সালে নৌবাহিনীর নিকট হস্তান্তর করেন। মৃতপ্রায় এ প্রতিষ্ঠান নৌবাহিনীর দক্ষ ব্যবস্থাপনায় আজ একটি লাভজনক প্রতিষ্ঠানে পরিণত হয়েছে।

এসময় নৌবাহিনী প্রধান অর্থনৈতিক সক্ষমতা অর্জনের মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা গড়তে জাহাজ নির্মাণের ক্ষেত্রে নিজস্ব ডিজাইন সক্ষমতা অর্জনে খুলনা শিপইয়ার্ডের প্রতি আহ্বান জানান।

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সহকারী নৌবাহিনী প্রধান (ম্যাটেরিয়েল) রিয়ার এডমিরাল এম মঈনুল হক, মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান রিয়ার এডমিরাল এম মোজাম্মেল হক ও খুলনা নেভাল এরিয়া কমান্ডার রিয়ার এডমিরাল মোহাম্মদ মুসা। অনুষ্ঠানে স্বাগত জানান খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ক্যাপ্টেন এম সাজেদুল করিম।

Related posts