বৃহস্পতিবার, ২৬ জানুয়ারি ২০২৩ ❙ ১২ মাঘ ১৪২৯

খুবি কোয়ালিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হচ্ছে: উপাচার্য

স্টাফ রিপোর্টার: খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউশনাল কোয়ালিটি অ্যাসুরেন্স সেলের (আউকিউএসি) উদ্যোগে প্রথম বর্ষে ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের জন্য ৫দিনব্যাপী একাডেমিক কাউন্সিলিং এন্ড মোটিভেশন শীর্ষক কর্মশালার তৃতীয় দিন অনুষ্ঠিত হয়।
রোববার লিয়াকত আলী মিলনায়তনে আইকিউএসির পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ সারওয়ার জাহানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন ও পাওয়ার পয়েন্টে কীইস টু সাকসেস ইন হায়ার এডুকেশন শীর্ষক নিবন্ধ উপস্থাপন করেন উপাচার্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েক উজ্জামান। তিনি বলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়কে একটি কোয়ালিটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত করতে একেবারে প্রথমবর্ষে শিক্ষার্থী ভর্তি থেকে শিক্ষা কোর্স সমাপ্তি পর্যন্ত সকল দিকে নজর দেয়া হচ্ছে। এ কারণে সাধারণ বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি পরীক্ষায় অংশগ্রহণের জন্য সবচেয়ে বেশি সিজিপিএ চাওয়া হয়, যাতে এখানে মেধাবী শিক্ষার্থীরা ভর্তি হতে পারে।
তিনি আরও বলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয় অন্যতম বিশ্ববিদ্যালয় যেখানে ¯œাতক(সম্মান) পর্যায়ে থিসিস রয়েছে এবং আমরা গবেষণাকে উৎসাহিত করছি। তবে তিনি উল্লেখ করেন স্কুল এবং কলেজ পর্যায়ে যথাযথভাবে ব্যবহারিক শিক্ষা না পাওয়ায় বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর ওইসব শিক্ষার্থীকে ব্যবহারিক শিক্ষায় দুর্বলতা কাটিয়ে উঠতে বেশ বেগ পোহাতে হচ্ছে। তিনি বলেন কেবল ব্যবহারিক ক্লাসই নয়, কোচিং নির্ভর পড়াশোনার কারণে তাদের অনুধাবন ক্ষমতায় দুর্বলতাও স্পষ্ট। এসব কাটিয়ে উঠতে তিনি স্কুল ও কলেজ পর্যায়ে শিক্ষার্থীদের ক্লাসমুখী করা এবং ব্যবহারিক শিক্ষার প্রতি গুরুত্বারোপ করেন।
খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তিকৃত আশপাশের শিক্ষার্থীদের পরিবহন সুবিধার জন্য খুব শীঘ্রই পশ্চিমে ডুমুরিয়া এবং পূর্বে কাটাখালি পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় বাস সার্ভিস চালুর বিষয়টি সক্রিয়ভাবে বিবেচনা করা হচ্ছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন। তিনি আরও বলেন শিক্ষার্থীদেরকে জীবনে সফল হতে হলে প্রথম প্রয়োজন সময়ানুবর্তিতা, নিষ্ঠা এবং অনুধাবনের ক্ষমতা। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পর মনোযোগ দিয়ে পড়াশোনার জন্য পরামর্শ দেন এবং তাদের চিত্ত প্রফুল্ল রাখতে সহশিক্ষামূলক কর্মকান্ডে যুক্ত হওয়ার আহবান জানান।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন জীব বিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ রায়হান আলী। স্বাগত বক্তব্য দেন আইকিউএসির অতিরিক্ত পরিচালক প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জিয়াউল হায়দার। উদ্বোধনী পর্বের পর কয়েকটি সেশনে বিভিন্ন বিষয়ের ওপর পাওয়ার পয়েন্টে নিবন্ধ উপস্থাপন করেন প্রফেসর ড. মোহাম্মদ আব্দুর রউফ, প্রফেসর মোঃ শরীফ হাসান লিমন, প্রফেসর ড. কামরুল হাসান তালুকদার এবং পুনর্নিবেশ করেন আইকিউএসির পরিচালক প্রফেসর ড. মোঃ সারওয়ার জাহান।
পাঁচদিনব্যাপী ওয়ার্কশপের তৃতীয় দিনে ৫টি ডিসিপ্লিনের শিক্ষর্থীরা এই কর্মশালায় অংশ নেয়। ডিসিপ্লিনগুলো হচ্ছে এনভারয়নমেন্টাল সায়েন্স, ফিশারিজ এন্ড মেরিন রিসোর্স টেকনোলজি, ফরেষ্ট্রি এন্ড উড টেকনোলজি, ফার্মেসী এবং সয়েল ওয়াটার এন্ড এনভায়রমেন্ট ডিসিপ্লিন। কর্মশালার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট ডিসিপ্লিনসমূহের প্রধানবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

Related posts