শনিবার, ৬ মার্চ ২০২১ | ২১ ফাল্গুন ১৪২৭

Select your Top Menu from wp menus

কয়রায় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত কাশিরহাটের বেড়িবাঁধ অবশেষে মেরামত

কয়রা(খুলনা)প্রতিনিধি: দীর্ঘ ৮ মাস পর অবশেষে সামুদ্রিক ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত পানি উন্নয়ন বোর্ডের ১৩-১৪/১ পোল্ডারের কয়রা উপজেলার উত্তর বেদকাশির কাশিরহাটের বেড়িবাঁধ মেরামত সম্পন্ন হয়েছে।
১৬ কোটি টাকা ব্যয়ে সেনাবাহিনীর ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান ঈগল রিজ্্ড লিমিটেড গত দু’মাস ধরে কাজ করে গত রোববার দুপুর তিনটায় ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধটি আটকাতে সক্ষম হয়। সকাল থেকে বিপুল সংখ্যক শ্রমিক বালু ভর্তি জিওব্যাগ, বস্তাভর্তি মাটি ও টিউবে বালু ভরে বাঁধে ফেলতে শুরু করে। দুপুর আড়াইটায় জোয়ার শুরু হওয়ার মুহুর্তে নদীর পানি থমথমা বিরাজ করা অবস্থায় একটি বড় পন্টুনের ওপর রক্ষিত হাজার হাজার মাটি ভর্তি বস্তা শ্রমিকরা বৃষ্টির মত বাঁধে নিক্ষেপ করা শুরু করে। একই সাথে ক্ষতিগ্রস্ত বাঁধের মাঝখানে বলগেডের সাহায্যে টিউবে বালু ভর্তি করে ফেলানো শুরু হয়। সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় দেড়ঘন্টার মধ্যে বাঁধটি পানির স্তর থেকে উঁচু হলে তাৎক্ষনিক কপোতাক্ষ নদের লোনা পানি ওঠানামা বন্ধ হয়ে যায়। এ সময় বাঁধে উপস্থিত হাজার হাজার মানুষ আনন্দে উৎফুল্ল হয়ে পড়ে।
স্থানীয় সংসদ সদস্য আলহাজ আক্তারুজ্জামান বাবু, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান ঈগল রিজ্ডের চেয়ারম্যান (অবঃ) লেফটেন্যান্ট জেনারেল আবুল হোসেন, ব্যবস্থাপনা পরিচালক (অবঃ) লেঃ কর্নেল ইকবাল হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ এসএম শফিকুল ইসলাম, পাউবোর সেকশন কর্মকর্তা মোঃ মশিউল আবেদীন, মোঃ সাজ্জাদ হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান আলহাজ সরদার নুরুল ইসলাম কোম্পানি, মোহাঃ হুমায়ুন কবির, ঈগল রিজ্ডের অফিস এক্সিকিউটিভ মিরাজুল ইসলাম, স্থানীয় জনপ্রতিনিধিসহ বিপুল সংখ্যক মানুষ কাশিরহাটের বাঁধ মেরামত কাজে অংশ নেন।
উল্লেখ্য, গত বছরের ২০ মে ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের আঘাতে কয়রার কাশিরহাট, ঘাটাখালি, ২নং কয়রা, দশালিয়া, গাববুনি, গোলখালি ও আংটিহারা বেড়িবাঁধ ভেঙে গিয়ে বিস্তীর্ণ এলাকা লোনা পানিতে প্লাবিত হয়ে মানুষের বসতবাড়ি, জমিজায়গা, গবাদিপশু, গাছপালা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়। সর্বশেষ সোমবার (২৫ জানুয়ারি) ভয়াবহ কাশিরহাটের বাঁধটির মেরামত কাজ সম্পন্ন হলে এলাকাটি লোনাপানি মুক্ত হয়েছে বলে জানান পাউবো কর্মকর্তারা।

Related posts