বুধবার, ১২ আগস্ট ২০২০ | ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭

Select your Top Menu from wp menus

কে এই মো.সাহেদ

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি: সাতক্ষীরার ছেলে সাহেদ করিম, ঢাকায় গিয়ে হয়েছেন মো. সাহেদ। সাহেদের বাড়ি সাতক্ষীরা শহরের কামাননগরে। এখানে বর্তমানে তার আর কিছুই নেই। সব বিক্রি করে অনেক আগেই তারা পাড়ি জমিয়েছেন ঢাকাতে। তার বাবার নাম সিরাজুল করিম ও মায়ের নাম মিসেস সাফিয়া করিম। তার মা এক সময় সাতক্ষীরা জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদিকা ছিলেন।
তবে, সাতক্ষীরার আপামর মানুষ আলোচিত এই মো: সাহেদের ঘৃণিত অপরাধের দায়িত্ব নিতে রাজি নয়। তাকে বেশীরভাগ মানুষ না চিনলেও সবাই এক বাক্যে তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেছেন। এদিকে পুলিশসহ সরকারের বিভিন্ন বিভাগ সাহেদের ব্যাপারে অধিকতর তদন্তে নেমেছেন। সাতক্ষীরার দলীয় নেতাকর্মীসহ প্রত্যেকেই তার অপকর্মের শাস্তি দাবি করেছেন।
পুলিশ তার ব্যাপারে বিস্তারিত তথ্য সংগ্রহে এবং তার অপরাধ কর্মকান্ডের ব্যাপারে খোঁজখবর নিতে মাঠে নেমেছেন।
খোঁজ খবর নিয়ে জানা যায়, সাহেদের বাবা সিরাজুল করিম ও মা মিসেস সাফিয়া করিম সাহেদের অনৈতিক কর্মকান্ড ও তার বিরুদ্ধে মামলার পাহাড় নিয়ে চিন্তিত ছিলেন। সাহেদ বরাবরই ঢাকাতে থাকতো সাতক্ষীরায় আসতো কম। সাতক্ষীরার সাধারণ মানুষ তার বিরুদ্ধে তেমন কিছুই জানতো না। তার ভিন্নধর্মি শারিরীক অবয়ব ও টেলিভিশন টকশো’তে তাকে দেখে চিনতো, কিন্তু সাহেদ করিম যে সাতক্ষীরার সেটা বেশীরভাগ মানুষ জানতো না। তার মা মারা যাওয়ার পর তার বাবা অনেক আগেই তাদের নামে শহরের প্রাণকেন্দ্রে কামালনগরে যে করিম সুপার মার্কেট ও তাদের বসতভিটা ছিল তা বিক্রি করে স্থায়ীভাবে সাতক্ষীরা ছেড়ে ঢাকায় চলে যান। সাতক্ষীরা নাগরিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক হাফিজুর রহমান মাসুম ও পৌর আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন জানান, সাহেদকে সাতক্ষীরাবাসী প্রতারক হিসেবে চেনেন। তারা এই প্রতারকের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবী জানান।
সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ¦ নজরুল ইসলাম জানান, স্বাস্থ্য সেবার নামে সাহেদ যেভাবে মানুষকে প্রতারণা করেছে এটি নিঃসন্দেহে লজ্জাজনক ও দুঃখজনক। আইনের সর্বোচ্চ প্রযোগের মাধ্যমে এ ধরনের প্রতারকের শাস্তি হওয়া উচিত বলে তিনি মন্তব্য করেন।

Related posts