রবিবার, ৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ ❙ ২২ মাঘ ১৪২৯

করোনা: কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে: মেয়র

মোংলা (বাগেরহাট) প্রতিনিধি: খুলনার সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, ঘূর্ণিঝড়ের ক্ষত দূর হবে শিগগীরই। কিন্তু স্বাস্থ্যবিধি না মানা হলে করোনার আঘাত থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে না। করেনার ভয়াল থাবা থেকে নিজেকে, পরিবারকে সর্বোপরি দেশের মানুষকে রক্ষা করতে হলে প্রত্যেককেই কঠোরভাবে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে হবে।

তিনি বৃহস্পতিবার (৪ জুন) মোংলা উপজেলার চাঁদপাই ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে ঘূর্ণিঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণকালে এ কথা বলেন। ইউকেএইড-এর অর্থায়নে, স্টার্টফান্ড বাংলাদেশ ও কনসার্ন ওয়ার্ল্ডওয়াইডের সহযোগিতায় “সাইক্লোন আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের জন্য, জীবন রক্ষাকারী জরুরী সহায়তা কার্যক্রম” প্রকল্পের আওতায় বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা রূপান্তর-এর উদ্যোগে এই ত্রাণ বিতরণ করা হয়।

সিটি মেয়র বলেন, সুন্দরবন বরাবরের মতো এবারেও ঘূর্ণিঝড় আম্ফানের প্রথম আঘাত বুক পেতে নিয়ে আমাদের রক্ষা করেছে। এই বনকে রক্ষা করতে সকলকে ভূমিকা পালন করতে হবে। ঘুর্ণঝড় আম্ফানে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষকে এভাবে সহায়তা করা এবং করোনার হাত থেকে মানুষকে রক্ষা করতে রূপান্তররে কর্মকা-ের ভূয়সী প্রশংসা করে মেয়র বলেন, সরকার মানুষের এই দুর্যোগ মোকাবেলার জন্য নানাবিধ ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। সরকার এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠানকে একযোগে কাজ করে সব সংকট দূর করতে হবে।

অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন মোংলা উপজেলার চেয়ারম্যান আবু তাহের হাওলাদার, উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ রাহাত মান্নান, চাঁদপাই ইউপি চেয়ারম্যান তারিকুল ইসলাম, রূপান্তর-এর নির্বাহী পরিচালক রফিকুল ইসলাম খোকন, রূপান্তর দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিভাগের প্রধান ফারুক আহমেদ, কর্মসূচী সমন্বয়কারী সেখ জার্জিস উল্লাহ, কার্ত্তিক রায়, অনুপ রায় প্রমুখ।

উল্লেখ্য, এ প্রকল্পের আওতায় নির্বাচিত ক্ষতিগ্রস্ত পরিবার প্রতি নগদ ৩০০০ টাকা করে এবং কিছু বিশেষ চাহিদাসম্পন্ন পরিবারের মাঝে পরিবারপ্রতি নগদ ৪০০০ টাকা করে প্রদান করা হচ্ছে। এছাড়াও প্রতিটি পরিবারকে হাইজিন কিটস্ (পরিবার প্রতি-১৮২১ টাকার সমপরিমাণ দ্রবাদি) প্রদান করা হচ্ছে।

Related posts