মঙ্গলবার, ১৮ মে ২০২১ | ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৮

Select your Top Menu from wp menus

করোনা আক্রান্তের দেখাশোনা করছেন, সাবধান থাকতে কী করবেন?

এসবিনিউজ ডেস্ক: খুব বেশি বাড়াবাড়ি না হলে বাড়িতেই করোনা আক্রান্ত রোগীর যত্ন নেওয়ার কথা বলছেন চিকিৎসকরা। তাছাড়া, হাসপাতালেও শয্যার সঙ্কট রয়েছে। এ কারণে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে নিজেদেরই দেখাশোনা করতে হচ্ছে রোগীর। এক্ষেত্রে যারা করোনা আক্রান্ত রোগীদের দেখাশোনা করছেন তাদেরকে সাবধানে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন চিকিৎসকরা। তা না হলে পরিবারের একজনের থেকে অন্যদের আক্রান্ত হয়ে পড়ার ঝুঁকি রয়েছে।
বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বাড়িতে করোনা আক্রান্ত রোগীর দেখাশোনার জন্য অন্তত তিনটি মাস্ক পরা উচিত। রোগীকে ছুঁয়ে দেখতে হলে হাতে গ্লাভস থাকাও জরুরি। তবে কোনও ভাবেই করোনা আক্রান্তের মুখে বা নাকে হাত দেওয়া চলবে না। চিকিৎসকরা বলছেন, বাড়িতে একজন করোনায় আক্রান্ত হলেই বাকিদেরও বিপদের আশঙ্কা থাকে। ফলে রোগীর ব্যবহার করা কোনও জিনিসে হাত না দেওয়াই ভালো। করোনা আক্রান্তের পোশাক, বিছানার চাদর, বাসন পরিষ্কার করতে হলে গ্লাভস পরে নিতে হবে। সে সময়েও মুখে মাস্ক থাকা জরুরি। আশপাশে রোগী নেই বলে অসাবধান হওয়া যাবে না। কাজ হয়ে গেলে সেই গ্লাভস ও মাস্ক সাবধানে সরিয়ে একটি জীবাণুমুক্ত ব্যাগে ভরে রাখুন।
রোগীর সঙ্গে এক ঘরে বসে খাওয়াদাওয়া করা ঠিক নয়। চিকিৎসকরা বরছেন, রোগীকে খাওয়াদাওয়া সারতে হবে নিজের ঘরে বসেই। তার ব্যবহার করা সব বাসন রাখতে হবে একেবারে আলাদা। বাড়ির আর কেউ সে সবে হাত না দেওয়াই ভালো।
রোগীর ঘরে বারবার না যাওয়াই ভাল। প্রয়োজন হলে তবেই যেতে হবে। একসঙ্গে বসে গান শোনা, টিভি দেখার মতো কাজ একেবারেই করা যাবে না। যতটা সম্ভব দূরত্ব বজায় রাখতে হবে বাড়ির মধ্যেও।
মাস্ক খোলা ও পরার নিয়ম ভালো ভাবে জেনে নেওয়া জরুরি। রোগীর ঘর থেকে বেরিয়ে এসে হাতে সাবান দিয়ে ভালো করে ধুতে হবে। তারপর মাস্কে হাত দেবেন। ব্যবহৃত মাস্কের সামনের অংশে কখনও হাত দেওয়া যাবে না। কানের পাশের ইলাস্টিকে হাত দিয়ে মুখ থেকে মাস্ক সরাতে হবে। তার পরে আবার হাত স্যানিটাইজ করে নেওয়া জরুরি। মনে রাখবেন, নিজে সুস্থ থাকলে তবেই বাড়ির সকলের যত্ন নেওয়া সম্ভব।

Related posts