রবিবার, ১৮ এপ্রিল ২০২১ | ৫ বৈশাখ ১৪২৮

Select your Top Menu from wp menus

করোনার পর স্বাদ-গন্ধের অনুভূতি ফেরাতে কী করবেন

এসবিনিউজ ডেস্ক: যে কোনও ভাইরাস আক্রমণের পর পরই মুখের স্বাদ নষ্ট হয়। সেরে উঠলেও মুখের স্বাদ ফিরতে বেশ কিছুদিন সময় লাগে। এখন অন্য ভাইরাসের পাশাপাশি করোনাও আক্রমণ করছে শ্বাসযন্ত্রে। এজন্য অনেকে সেরে উঠলেও স্বাদ আর ঘ্রাণের অনুভূতি হারাচ্ছেন। বিভিন্ন গবেষণায় দেখা গেছে, যেসব কোষ ঘ্রাণশক্তিকে সক্রিয় রাখে করোনাভাইরাস সেই কোষকেই আক্রমণ করে। এসব কোষ তখন শরীরের অন্য সংক্রমণ প্রতিরোধে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। যে কারণে ঘ্রাণ কোষ আর কাজ করে না। কোনও জিনিসের ঘ্রাণ পলেও সেই সংকেত মস্তিষ্ক পর্যন্ত পৌঁছায় না।
করোনা আক্রান্তদের জ্বর বা সর্দি খুব বেশি না থাকলেও দেখা যাচ্ছে আক্রান্ত হবার পাঁচ দিনের মাথায় তাদের স্বাদ আর গন্ধের অনুভূতি হারিয়ে যাচ্ছে। চিকিৎসাবিজ্ঞানের ভাষায় যেটাকে বলা হয়‘অ্যানোস্মিয়া’। মাত্র ১৬ শতাংশের ক্ষেত্রে করোনা থেকে সেরে যাওয়ার পরও অনেকের ফিরছে না ঘ্রাণশক্তি। কেউ কেউ আবার একটি গন্ধের সঙ্গে অন্য গন্ধকে গুলিয়ে ফেলছেন । এছাড়াও যাদের কোনও শারীরিক সমস্যা থাকছে না তাদেরও ক্লান্তি কাটতে আর মুখের স্বাদ ফিরতে বেশ সময় লাগছে। যারা এমন সমস্যায় ভূগছেন তাদের অবশ্যই চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত। এছাড়াও স্বাদ-গন্ধের অনুভূতি ফেরাতে করোনামুক্ত হয়ে কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন। যেমন-
রসুন : রসুনের নিজস্ব একটা গন্ধ আছে। এছাড়াও স্বাদ ফেরাতে এটি খুবই উপকারী। ২ থেকে ৩ কোয়া রসুন পানিতে ফেলে গরম করুন। একটু ঠান্ডা করে খেয়ে নিন। এই ভাবে নিয়মিত দুবার খান। এতে ঘ্রাণকোষ ঠিকমতো কাজ করবে আর অল্পদিনের মধ্যে স্বাদও ফিরবে।
লেবু : লেবুতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে। এছাড়াও এর গন্ধ খুব কড়া। ভাইরাল, ব্যাকটেরিয়ার সঙ্গে লড়াই করার ক্ষমতা রাখে লেবু। আর তাই লেবু খেলে বন্ধ নাক খোলা, সর্দি কফ দূর করার ক্ষেত্রে উপকার পাওয়া যায়। করোনা আক্রান্তরা যদি প্রতিদিন সকালে হালকা গরম পানিতে লেবু আর মধু দিয়ে খেতে পারেন তাহলে উপকার পাবেন। এটা একটানা বেশ কিছুদিন খেতে হবে। সেই সঙ্গে ভাত বা রুটির সঙ্গেও লেবুর আচার খান। লেবুর আচার না পেলেও অন্য যে কোনও আচার খেতে পারেন। এতেও রুচি ফিরবে।
পুদিনা : পুদিনার বেশ সুন্দর একটি গন্ধ রয়েছে। এই গন্ধ মন আর শরীরকে ফুরফুরে করে। সেই সঙ্গে স্নায়ুকে শান্ত রাখে। এই পাতা স্বাদ ফেরাতেও সাহায্য করে। চা বানানোর সময় পানির মধ্যে চা পাতার সঙ্গে কিছু পুদিনা পাতাও দিয়ে দিতে পারেন। এরপর ছেঁকে নিয়ে খান। এতে স্বাদ, গন্ধ দুটোই ফিরবে। গ্রিন টিয়ের মধ্যে দিতে পারলে আরও ভালো।
ভাপ নিন : একটি পাতিল বা বড় মুখ কোনও পাত্রে পানি গরম করুন। পানিটা ফুটে উঠলে নামিয়ে মাথা কাপড় দিয়ে ঢেকে ভাপ নিন। মুখ খুলে ভালোভাবে শ্বাস নিয়ে নাক দিয়ে ছাড়–ন। এভাবে বেশ কয়েকবার করুন। এতে নাকে-বুকে আটকা ভাব দূর হবে। সেই সঙ্গে ভালো করে শ্বাসও নিতে পারবেন। জমে থাকা কফ, সর্দি দূর হলেই গন্ধের অনুভূতি ফিরে আসবে। প্রতিদিন সকালে এটা করলে উপকার পাওয়া যাবে। শিশুদেরও এই অভ্যাস গড়ে তুলুন।
হালকা গরম পানি খান : যত বারই পানি খাবেন একদম ঠান্ডা না খেয়ে হালকা গরম পানি খাওয়ার চেষ্টা করুন। তবে কখনই খুব গরম পানি খাওয়া ঠিক নয়। দিনে অন্তত দুবার হলেও গরম পানি খান। এতেও উপকার পাওয়া যাবে।

Related posts