শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০ | ২৬ আষাঢ় ১৪২৭

Select your Top Menu from wp menus

একটি মোবাইল ক্রেনে পাল্টে গেছে মোংলা বন্দরের অপারেশন কার্যক্রম

স্টাফ রিপোর্টার: জার্মান থেকে আমদানী করা অত্যাধুনিক একটি মোবাইল ক্রেন পাল্টে দিয়েছে মোংলা বন্দর জেটির অপারেশন কার্যক্রম। জাহাজ থেকে বন্দর জেটিতে মাত্র তিন মিনিটে একটি কনটেইনার হ্যান্ডলিং করছে এ মোবাইল ক্রেনটি। দ্রুত গতির এ মোবাইল ক্রেনটির অপারেশনাল কার্যক্রম শুরু হওয়ায় স্বস্তি ফিরেছে বন্দর কর্তৃপক্ষ ও ব্যবসায়ীদের মধ্যে।

বন্দরের সরঞ্জাম বহরে মোবাইল হারবার ক্রেনটি যুক্ত হওয়ার মোংলা বন্দরের সঙ্গে যুক্ত হচ্ছে পানগাঁও বন্দর। ফলে পানগাঁও বন্দর থেকে আসা কনটেইনারবাহী জাহাজ এখন থেকে হ্যান্ডলিং করবে মোংলা বন্দর। অপর দিকে আর্ন্তজাতিক নৌরুটে চলাচলকারী গিয়ার ও ক্রেনবিহীন দেশী-বিদেশী বানিজ্যিক জাহাজের কনটেইনার হ্যান্ডলিং করবে এ ক্রেনটি। এতে কনটেইনারবাহী জাহাজ ও আমদানী-রফতানি বৃদ্ধির পাশাপাশি বাড়বে বন্দরের রাজস্ব আয়ও। গত বুধবার বন্দরে আগত সিঙ্গাপুর পতাকাবাহী ‘এম ভি কোটা রিয়া’ জাহাজ থেকে কন্টেইনার খালাস করে এর অপারেশনাল কার্যক্রম শুরু হয়।

বন্দরের যান্ত্রিক ও তড়িৎ বিভাগের উপ প্রধান প্রকৌশলী এবং প্রকল্প পরিচালক মাহাবুবুর রহমান মিনা জানান, ৬৪ টি চাকাযুক্ত এই ক্রেনটি বন্দর জেটির লোড সহনশীলতার সীমার মধ্যে ৫ থেকে ৯ নম্বর জেটি বরাবর চলাচল করতে পারবে। এটি দিয়ে বছরে অতিরিক্ত ৩৬ টি কন্টেইনারবাহী জাহাজ ও বার্জ হ্যান্ডলিং এর মাধ্যমে বন্দরে ১২ কোটি টাকারও বেশি বাড়তি অর্থ আয় হবে বলেও তিনি জানান। মিনা আরও জানান, ৪৪ কোটি টাকা ব্যয়ে গত ২৬ জুন আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স সাইফ পাওয়ার টেক লিঃ অত্যাধুনিক এই মোবাইল ক্রেনটি মোংলা বন্দরে সরবরাহ করে। চার’শ টন ধারন ক্ষমতা সম্পন্ন এই ক্রেনটি জার্মানের রোসটেক বন্দর থেকে আমদানী করা হয়।

অপারেশন কার্যক্রম উদ্বোধন করেন মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ইয়াসমিন আফসানা। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বন্দরের সদস্য (প্রকৌশল ও উন্নয়ন) প্রকৌশলী আলতাফ হোসেন খান, পরিচালক ট্রাফিক মোঃ মোস্তফা কামাল, সচিব মোঃ ওহিউদ্দিন চৌধুরী, সিভিল ও হাইড্রোলিক বিভাগের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ শওকত আলী, যান্ত্রিক ও তড়িৎ বিভাগের উপ প্রধান এবং প্রকল্প পরিচালক মাহাবুবুর রহমান মিনা, সহকারী ট্রাফিক ম্যানেজার মোঃ সোহাগ, মোঃ কুদরত আলী, মেকানিক্যাল বিভাগের সহকারী প্রকৌশলী মোঃ সোহেল রানা ও উপ সচিব মোঃ মাকরুজ্জামান উপস্থিত ছিলেন।

ক্রেনটির আমদানীকারক প্রতিষ্ঠান মেসার্স সাইফ পাওয়ার টেক লিঃ এর খুলনা বিভাগের রিজোনাল ম্যানেজার মোঃ কামাল ফারুকী জাহান জানান, মোংলা বন্দরের সক্ষমতা বৃদ্ধি ও গতিশীল করতে প্রথম বারেরমত অত্যাধুনিক এই মোবাইল হারবার ক্রেনটি আমদানী করা হয়েছে। এটি দিয়ে বন্দরে স্প্রেডার অপারেশন, গ্রাব অপারেশন এবং হুক অপারেশন করা হবে। মূলত কন্টেইনার অপারেশন কাজে এ ক্রেনটি সরাবরাহ করা হয় বলেও জানান তিনি। যা আগে মোংলা বন্দরে ছিল না।

মোংলা বন্দর কর্তৃপক্ষের সদস্য (প্রকৌশল ও উন্নয়ন) প্রকৌশলী আলতাফ হোসেন খান জানান, অত্যাধুনিক এ মোবাইল ক্রেনটি মাত্র ৩ মিনিট একটি কনটেইনার জাহাজে লোডিং-আনলোডিং করতে সক্ষম। আর প্রতি ঘন্টায় করবে ২০টি কনেটেইনার। ক্রেনটি সংযোজনের ফলে মোংলা বন্দরে অনেক গতিশীলতা বৃদ্ধি পাবে এবং অনেক ওপর থেকে কন্টেইনার হ্যান্ডলিং করতে পারবে। এরফলে সামগ্রিকভাবে বন্দরের কার্যক্রম অধিক গতিশীল হবে।

বন্দরের ট্রাফিক ও যান্ত্রিক বিভাগ সূত্র জানায়, ২০২১ সালে পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজ শেষ হলে মোংলা বন্দরের ওপর যে চাপ পড়বে তা মোকাবেলার সক্ষমতা অর্জনের প্রস্তুতি হিসেবে এ মোবাইল হারবার ক্রেনটি সংগ্রহ করা হয়েছে।

Related posts