মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ | ১৩ আশ্বিন ১৪২৭

Select your Top Menu from wp menus

আজ জম্মু ও কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা বাতিলের এক বছর

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : আজ ৫ আগস্ট বুধবার ভারত জম্মু ও কাশ্মীরকে বিশেষ মর্যাদা দানকারী অনুচ্ছেদ ৩৭০ বাতিল করার এবং এই অঞ্চলটিকে- অর্থাৎ জম্মু ও কাশ্মীর এবং লাদাখ নামে দুটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত করার এক বছর পূর্ণ হবে। গত এই এক বছরে জম্মু ও কাশ্মীরে ব্যাপক উন্নয়ন করেছে দেশটির কেন্দ্রীয় সরকার। এসব উন্নয়নের মধে জম্মু ও কাশ্মীরে আধুনিক লাইব্রেরি, অডিটোরিয়াম, অন্যান্য সুবিধাসহ গান্ডেরবাল সরকারি ডিগ্রি কলেজের ব্যাপক আধুনিকায়ন অন্যতম। জম্মু ও কাশ্মীরের সরকারি সূত্রে জানা গেছে, সেখানকার গান্ডেরবাল সরকারি ডিগ্রি কলেজে বেশ কয়েকটি নতুন স্থাপনা নির্মাণ কাজ গত শুক্রবার থেকে শুরু হয়েছে।
গান্ডেরবালের জেলা প্রশাসক শাফকত ইকবালের মতে, একটি অডিটরিয়াম, নতুন শ্রেণিকক্ষ, একটি আধুনিক গ্রন্থাগার, একটি সম্মেলন হল, একটি সাংস্কৃতিক হল এবং একটি বিতর্ক হল ইত্যাদি অনেকগুলো নতুন স্থাপনা নির্মাণ করা হচ্ছে। তিনি বলেন, গান্ডেরবাল জেলায় শিক্ষাব্যবস্থা উন্নত করার জন্য কেন্দ্রীয় সরকার প্রদত্ত তহবিলের সহায়তায় নির্মাণ কাজ পুরোদমে শুরু হয়েছে। এর আগে আমরা অর্থায়ন নিয়ে অনেক সমস্যার মুখোমুখি হতাম। তবে গত বছর আমাদের রাজ্য কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের মর্যাদা পাবার পর থেকে উন্নয়ন কাজে গতি এসেছে।
কেন্দ্র পরিচালিত উন্নয়নমূলক প্রকল্পগুলির প্রশংসা করে শাফকত ইকবাল বলেন, বড় অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য অবকাঠামো না থাকায় প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা আগে অনেক সমস্যার মুখোমুখি হত। এছাড়া আমাদের সকল শিক্ষার্থীর জন্য পর্যাপ্ত আবাসন ব্যবস্থা ছিল না। নতুন স্থাপনাগুলির সাহায্যে আমরা আরও ১০০ জন শিক্ষার্থীকে আবাসন সুবিধা দিতে পারব এবং কলেজের নতুন শিক্ষার্থীরা বিভিন্ন অনুষ্ঠান আয়োজন করতে পারবে এবং একটি ভাল পরিবেশে মানসম্পন্ন শিক্ষালাভ করতে সক্ষম হবে।
তিনি বলেন, গত বছর ‘ব্যাক টু ভিলেজ’ কার্যক্রম শুরু করতে পেরে জনগণ খুশি। প্রোগ্রামে তারা পরিদর্শনকারী কর্মকর্তাদের কাছ থেকে প্রাপ্ত প্রতিবেদনগুলো বিশ্লেষণ করে এবং পুরো সম্প্রদায়ের উপকারে আসবে এমন গুরুত্বপূর্ণ প্রকল্পগুলি শনাক্ত করে।
ইকবাল বলেন, এই জনমুখী কাজের জন্য কেন্দ্র আমাদের জেলাকে অতিরিক্ত ৫ কোটি রুপি দিয়েছে। আমাদের বলা হয়েছে যে, প্রয়োজনে এই প্রকল্পগুলির জন্য আরও অর্থ বরাদ্দ দেয়া হবে ভবিষ্যতে। কেন্দ্রের অর্থায়নে এতগুলি চলমান প্রকল্প নিয়ে আমরা সত্যি অনেক সন্তুষ্ট। তিনি বলেন, নতুন স্থাপনাসমূহের নির্মাণ প্রক্রিয়া গত বছর শুরু হলেও রাজনৈতিক অস্থিরতা, ভারি তুষারপাত এবং কোভিড-১৯ মহামারীর কারণে সময় মতো কাজ শেষ হয়নি।
কলেজের প্রাক্তন ছাত্র মোমিন মেরাজ বলেন, নতুন অবকাঠামো আসন্ন ব্যাচগুলির জন্য খুব উপকারী হবে। কেন্দ্রের অর্থায়নে পরিচালিত কলেজের প্রকল্পগুলির প্রশংসা করে তিনি বলেন, আমি আমার পাসিং সার্টিফিকেট সংগ্রহ করতে আজ কলেজ ক্যাম্পাসে এসেছি এবং পরিবর্তনগুলি দেখে খুব খুশি হয়েছি। সবখানে নতুন ভবন নির্মিত হচ্ছে এবং সবকিছুই একেবারে নতুন দেখাচ্ছে। এটি আগে খুব কঠিন ছিল এবং আমি আনন্দিত যে আমরা যেসব সমস্যার মুখোমুখি হয়েছিলাম নতুন শিক্ষার্থীদের সেগুলোর মুখোমুখি হতে হবে না।
গান্ডেরবাল ডিগ্রি কলেজের শিক্ষার্থী আদনান আহমদের মতে, নতুন অবকাঠামো শিক্ষার্থীদের শিক্ষাপদ্ধতির জন্য খুব উপকারী হবে। ভাল অবকাঠামো একজন শিক্ষার্থীর সামগ্রিক শিক্ষার জন্য আবশ্যিক। নতুন শ্রেণিকক্ষ এবং অডিটোরিয়ামগুলি শিক্ষার্থী এবং শিক্ষক উভয়ের জন্যই খুব উপকারী হবে। ডিজিটাল শ্রেণিকক্ষগুলি আমাদের আরও ভাল অভিজ্ঞতা অর্জন করতে সক্ষম করবে এবং বিভিন্ন উপায়ে শিখতে পারব আমরা। আশা করি নতুন অবকাঠামোর মাধ্যমে আরও অনেক বেশি জানতে পারব। নতুন অডিটোরিয়াম নিয়েও আমরা খুব উচ্ছ্বসিত কারণ এই শহরে আমাদের কলেজেই প্রথম অডিটোরিয়াম হবে।

Related posts