সোমবার, ১৪ অক্টোবর ২০১৯ ♦ 29 Ashin 1426

Select your Top Menu from wp menus

অর্গানিক খাদ্যের মান কেমন?

বাংলাদেশে সাম্প্রতিক সময়ে দেশের ৫২ টি পণ্য বাজার থেকে তুলে নেয়ার জন্য আদালতের আদেশের পর খাদ্যে ভেজাল নিয়ে ব্যাপক আলোচনা শুরু হয়েছে। যার ফলে অনেক ক্রেতারাই প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে উৎপাদিত অর্থাৎ অর্গানিক খাদ্যসামগ্রী বেশি কিনছেন। বিক্রেতারাও বলছেন ক্রেতার সংখ্যা হঠাৎ করেই অনেকটা বেড়ে গেছে।
এমন কি ফল ও সবজিতে রাসায়নিক পদার্থ বা খাদ্যে ভেজালের কারণে অনেকেই এই ব্যবসাতেও আগ্রহী হয়ে উঠছেন। অর্গানিক পণ্যের দোকানগুলোতে একটু অন্য আকৃতির লাউ, কলা, কুমড়ো বা মৌসুমি ফল বিক্রি হয়। এছাড়া অনেক ধরনের সবজিও দেখা যায়। এমন কি সরিষার তেল, ঘি বা মধুর বোতলও পাওয়া যাবে এই দোকানগুলোতে।
এমন অনেক প্রতিষ্ঠানের কর্মীরা বলেন, নিজেদের ডেইরি খামারে দুধ, দই হয়। এছাড়া ঘানিতে সরিষার তেল, নিজেদের ফার্মে ঘি হয়। চালডাল গুলো গ্রামে কৃষকের কাছ থেকে সংগ্রহ করা হয়। কিন্তু কৃষক তাদের কি দিচ্ছেন কিভাবে যাচাই করা হয় সেটি?
ব্যবসায়ীরা বলছেন, নির্দিষ্ট কিছু কৃষক আছে আমাদের। আমরা নিজেরা মাঠে গিয়ে পরিদর্শন করি। জিনিসটা দেখে যাচাই বাছাই করেই তারপরই আমাদের ভোক্তাদের কাছে পৌঁছে দেয়া হয়।
অর্গানিক কিনা সেটি কিভাবে নিশ্চিত হচ্ছে? ভোক্তারা বলেন, দাম অনেক বেশি। তারপর সব জায়গায় পাওয়াও যায়না। যেন একটু ভেজাল কম খাই। সেই চিন্তা থেকে যাই।
তবে যেসব খাদ্য সামগ্রী প্রাকৃতিক পদ্ধতিতে উৎপাদিত বা অর্গানিক বলে বিক্রি হচ্ছে তা পরীক্ষা করা হয়না বলে জানিয়েছে খাদ্যের মান পরীক্ষা করার সরকারি সংস্থা বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন বা বিএসটিআই।
প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা আরো বলেন, ফল বা সবজির মতো সামগ্রী তাদের আওতায় পরে না। কিন্তু ভোক্তারা কিভাবে বুঝবেন তিনি আসলে কি খাচ্ছেন?
প্রথমতই দেখতে হবে। এরপরে পরীক্ষা হবে রান্নায়। প্রচুর সার বা অন্যান্য রাসায়নিক দেয়া সবজি বা ফল রান্না করার সময় প্রচুর পানি বের হয়। আর শেষ পরীক্ষা হবে খাবার টেবিলে।
রাসায়নিক সার যদি দেয়া খাবারের আসল স্বাদ পাবেন না। যেমন রাসায়নিক যুক্ত পুঁইশাক খেতে গেলে রাবারের মতো লাগবে। কিন্তু যদি রাসায়নিক না দেয়া থাকে তাহলে সে পুইশাকের যে আদি স্বাদ যে ঘ্রাণ সেটাই সে পাবে।
আবার বেশিরভাগ ক্রেতা মনে করেন সবজি বা ফল চক চক করলে বা তা দেখতে সুন্দর হলে সেগুলোই ভাল। কিন্তু বাস্তবে তা নয়। আর তাদেরকে সে বিষয়টি বোঝানো কঠিন।

Related posts