পরিকল্পিত উন্নয়ন দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের অবস্থা পাল্টে দিতে পারে: তথ্য উপদেষ্টা


ফেব্রুয়ারি ১১ ২০১৮

স্টাফ রিপোর্টার: দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে খুলনাসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের গুরুত্ব অপরিসীম। পরিকল্পিত উন্নয়ন এ অঞ্চলের বর্তমান অবস্থা পাল্টে দিতে পারে। বিশেষ করে পদ্মাসেতু, মোংলা বন্দরের আধুনিকীকরণ, রামপাল বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন, বিশেষ অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠা, মোংলার সাথে রেলসংযোগ প্রকল্প গ্রহণ, ভোমরা বন্দরের আধুনিকীকরণ, খুলনায় কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারে। সাংবাদিকরা শুধু রুটি রুজির জন্যই কাজ করে না, তারা এলাকার উন্নয়ন, মানুষের কল্যানেও চিন্তা করে। রাজনীতিবিদদের সাথে নিয়ে উন্নয়ন পরিকল্পনা বাস্তবায়নে কাজ করেন।

বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন বিএফইজে’র নির্বাহী পরিষদের সভা উপলক্ষে খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন (কেইউজে)’র উদ্যোগে ‘দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের উন্নয়ন সমস্যা ও সম্ভাবনা শীর্ষক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রীর তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরী এসব কথা বলেন। রোববার (১১ফেব্রুয়ারি) বিকালে খুলনা প্রেস ক্লাবের লিয়াকত আলী মিলনায়তনে এ সেমিনারের আয়োজন করা হয়।

কেইউজের সভাপতি এস এম জাহিদ হোসেনের সভাপতিত্বে সেমিনারে বিশেষ অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের জেলা সভাপতি ও জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান শেখ হারুনুর রশিদ, বিএফইউজে’র সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, মহাসচিব ওমর ফারুক, বাংলাদেশ জুট এ্যাসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান শেখ সৈয়দ আলী, খুলনা প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফারুক আহমেদ।

তথ্য উপদেষ্টা বলেন, খুলনা অঞ্চলে বিমান বন্দরের বাস্তবায়ন, সম্ভাবনাপূর্ণ পাটের বাজার বিকাশ, হিমায়িত চিংড়ি রপ্তানীর মত বিষয়ে সরকারের পৃষ্ঠপোষকতা পেলে দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চল উন্নয়নের যে ব্যাপক সম্ভাবনা তার সুফল যেন আমাদের ভবিষ্যৎ প্রজন্ম পায়।

বাংলাদেশ এক নতুন ধারার যুগে প্রবেশ করেছে  উল্লেখ করে তিনি বলেন, কয়েকটি বিষয়ে যদি পরিকল্পনা নেয়া হয় তবে এ অঞ্চলে ব্যাপক অর্থনৈতিক গতিশীলতা সৃষ্টি হবে। এক সময়ের বঞ্চিত দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চল যদি উন্নয়নের বর্তমান ধারাবাহিকতায় যুক্ত হয়, তবে তা হবে সারা দেশের সার্বিক উন্নয়নের সমান। এ অঞ্চলে পদ্মা সেতুর মাধ্যমে উন্নয়নের যে জোয়ার সৃষ্টি হয়েছে, তা শুধু সরকারের দৃঢ় অঙ্গীকারের জন্যই না বরং এ অঞ্চলের মানুষের মাঝে যে উদ্যোগ ও একাত্বতা লক্ষ্য করা যায় তাও যথেষ্ট ভূমিকা রাখে। আগামীতে এ অঞ্চলের সম্ভাবনার দিকগুলো কিভাবে নতুনভাবে বিকশিত করা যায় তার পরিকল্পনা নিতে হবে।

সেমিনারে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিএফইজে’র কার্যনির্বাহী সদস্য সিনিয়র সাংবাদিক গৌরাঙ্গ নন্দী। আলোচনায় অংশ নেন বিএফইউজের কোষাধ্যক্ষ মধুসুদন মন্ডল,খুলনা প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি বেগম ফেরদৌসী আলী ও মকবুল হোসেন মিন্টু, সম্মিলিত নাগরিক সমাজের আহবায়ক অ্যাডভোকেট সাইফুল ইসলাম, বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটির মহাসচিব শেখ আশরাফ-উজ-জামান, বিএফইউজের সহ-সভাপতি মনোতোষ বসু, যুগ্ম মহাসচিব মোজ্জামেল হক হাওলাদার প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন সংগঠনের সহ-সভাপতি মল্লিক সুধাংশু ও কৌশিক দে।


এক্সক্লুসিভ


সাক্ষাৎকার

Ad Space

আইন-আদালত


শিল্প-সাহিত্য

Ad Space

ভ্রমণ

ফিচার

Ad Space

পরিবেশ

Ad Space

আবহাওয়া

Ad Space

রাশিফল


Ad Space