গাজী শহীদুল্লাহ ছিলেন দেশপ্রেমিক রাজনীতিবিদ: মেয়র


ফেব্রুয়ারি ১০ ২০১৮

স্টাফ রিপোর্টার: খুলনা সিটি কর্পোরেশনের উদ্যোগে শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে নগরীর শহীদ হাদিস পার্কে স্বাধীনতা পরবর্তী খুলনা পৌরসভার প্রথম নির্বাচিত চেয়ারম্যান, ভাষাসৈনিক ও প্রবীণ রাজনীতিবিদ গাজী শহীদুল্লাহ স্মরণে নাগরিক শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়। শোকসভায় সভাপতিত্ব করেন সিটি মেয়র মোহাম্মদ মনিরুজ্জামান।

সভাপতির বক্তৃতায় সিটি মেয়র মরহুম গাজী শহীদুল্লাহ’র স্মৃতিচারণ করে বলেন, তিনি ছিলেন একজন জনদরদী ও দেশপ্রেমিক রাজনীতিবিদ। নিজের শ্রম, নিষ্ঠা, মেধা ও সম্পদ উৎসর্গ করে মানুষের শ্রদ্ধা-ভালোবাসা এবং আস্থা অর্জনে তিনি সক্ষম হয়েছেন। সিটি মেয়র বলেন, গাজী শহীদুল্লাহ ছিলেন বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী একজন মেধাবী ছাত্র এবং বলিষ্ঠ নেতৃত্বদানের ক্ষমতাসম্পন্ন একজন আদর্শ রাজনীতিবিদ। স্বাধীন বাংলাদেশে খুলনা পৌরসভার প্রথম চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়ে তিনি ইতিহাসে স্থান করে নিয়েছেন। চেয়ারম্যান পদে দায়িত্ব পালনকালে তিনি সততার যে দৃষ্টান্ত রেখে গেছেন তা কিংবদন্তী হয়ে আছে। গাজী শহীদুল্লাহ’র রাজনৈতিক জীবনের বর্ণনা দিতে গিয়ে সিটি মেয়র বলেন, আদর্শের ওপর আজীবন তিনি সুদৃঢ় ছিলেন। মজলুম জননেতা মাওলানা ভাসানীর প্রতি ছিল তাঁর গভীর আস্থা। তাঁর জীবনের বড় ঘটনা ছিল ঐতিহাসিক ফারাক্কা মিছিলের আয়োজন ও অংশগ্রহণ।

শোকসভায় মরহুম গাজী শহীদুল্লাহ’র স্মৃতিচারণ করে বক্তৃতা করেন সাবেক সংসদ সদস্য ভাষাসৈনিক এম নুরুল ইসলাম দাদুভাই, ভাষাসৈনিক এ্যাড. বজলার রহমান, খুলনা পৌরসভার সাবেক চেয়ারম্যান এ্যাড. এনায়েত আলী, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ অধ্যাপক জাফর ইমাম, অধ্যক্ষ মুজিবুর রহমান, অধ্যাপক আনোয়ারুল কাদির, বিশিষ্ট আইনজীবী গাজী আব্দুল বারী, সমাজসেবক গজনছর আলী, নাগরিক নেতা শেখ আশরাফ উজ্জামান, এ্যাড. শামীমা সুলতানা শিলু, এ্যাড. কুদরত-ই-খুদা, নিযাম-উর-রহমান লালু, মাহবুবুর রহমান খোকন, খুলনা পৌরসভার সাবেক কমিশনার এস এম আব্দুর রাজ্জাক, কেসিসি’র প্যানেল মেয়র মোঃ আনিছুর রহমান বিশ্বাষ, শেখ হাফিজুর রহমান হাফিজ ও মরহুমের আত্মীয়া হীরা পারভেজ।

শোকসভায় বক্তারা মরহুম গাজী শহীদুল্লাহ’কে বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী ও বলিষ্ঠ নেতৃত্বদানের ক্ষমতা সম্পন্ন একজন রাজনীতিবিদ হিসেবে উল্লেখ করেন এবং তাঁর রুহের মাগফেরাত কামনা করেন। কেসিসি’র প্যানেল মেয়র মোঃ আনিছুর রহমান বিশ্বাষ মরহুম গাজী শহীদুল্লাহর স্মৃতি রক্ষার্থে ১৬নং ওয়ার্ডের কমিউনিটি সেন্টারটি তাঁর নামে নামকরণের প্রস্তাব করেন।

অন্যান্যের মধ্যে সাবেক সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম মঞ্জু, ভাষাসৈনিক লোকমান হাকিম, কেসিসি’র কাউন্সিলর মোঃ গিয়াস উদ্দিন বনি, মোঃ মাহবুব কায়সার, মোঃ হাফিজুর রহমান মনি, মোঃ শমশের আলী মিন্টু, মোঃ ফারুক হিল্টন, প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা পলাশ কান্তি বালা, শিক্ষাবিদ অধ্যাপক আব্দুল মান্নান, খুলনা পৌরসভার সাবেক কমিশনার শরিয়াতুল ইসলাম ময়না, নাগরিক নেতা এস এম দাউদ আলী, ইঞ্জিনিয়ার আজাদুল হক, এ্যাড. মীনা মিজানুর রহমান, এস এম দেলওয়ার হোসেন, স্বপন গুহ, শাহিন জামান পন, মাসুদ মাহমুদ, এইচ এম জামাল উদ্দিন, আনছার আলী মোল্লা, এ্যাড. নুরুল ইসলাম রুবা, এ্যাড. এস আর ফারুক, সিরাজ উদ্দিন সেন্টু, এস এ রহমান বাবুল, মোঃ কামরুল ইসলাম বাবলু, শিক্ষক হামিদা বানু প্রমুখ শোকসভায় উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা ও সঞ্চালনা করেন কেসিসি’র উপ-সহকারী প্রকৌশলী আজমল হোসেন, সহকারী কঞ্জারভেন্সী অফিসার মোল্যা মারুফ রশীদ ও জিয়া হল সুপার মোঃ মনিরুজ্জামান রহিম।

শোকসভার শুরুতে ভাষাসৈনিকদের স্মরণে এক মিনিট নীরাবতা পালন করা হয়। এছাড়া মরহুম গাজী শহীদুল্লাহ’র বর্ণাঢ্য জীবনের ওপর একটি ডকুমেন্টারী প্রদর্শন ও সংক্ষিপ্ত জীবনীর একটি ব্রুশিয়ার প্রকাশ করা হয়। উল্লেখ্য, গত ৫ ফেব্রুয়ারী ভোর ৫টায় গাজী শহীদুল্লাহ ৮১ বছর বয়সে ইন্তেকাল করেন।

 

 


এক্সক্লুসিভ


সাক্ষাৎকার

Ad Space

আইন-আদালত


শিল্প-সাহিত্য

Ad Space

ভ্রমণ

ফিচার

Ad Space

পরিবেশ

Ad Space

আবহাওয়া

Ad Space

রাশিফল


Ad Space