শনিবার খুবিতে ‘ওয়ান বাংলাদেশ’ কর্মসূচি শুরু


জানুয়ারি ১২ ২০১৮

স্টাফ রিপোর্টার: ‘এক তর্জনী এক দেশ, বঙ্গবন্ধুর বাংলাদেশ’ এই শ্লোগানকে সামনে রেখে ঙহব ইধহমষধফবংয কর্মসূচির সূচনা হবে  শনিবার (১৩ জানুয়ারি)। এক তর্জনীতে জেগে ওঠে দেশ, এক তর্জনী এঁকে দেয় পথ, এক তর্জনীতে আসে স্বাধীনতা। আমাদের সেই একজনই নেতা, স্বাধীন ও সার্বভৌম বাংলাদেশের দার্শনিক স্বপ্নের কারুণিক যিনি, বঙ্গবন্ধু, তাঁর উত্থিত এক তর্জনী, আর আমাদের এই এক দেশ।

এক তর্জনী এক দেশের এই স্বপ্ন আমাদের, যা বাঙালি জাতির হাজার বছরের ত্যাগ আর মুক্তিযুদ্ধের ত্রিশ লাখ শহিদের রক্তে কেনা, যা মানবিক মর্যাদা ও সাম্যের চেতনায় জারিত ও প্রতিষ্ঠামান। এই দেশে সর্বোতভাবে মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে প্রতিষ্ঠা করার প্রত্যয় নিয়ে ৭ মার্চের ঐতিহাসিক সেই তর্জনীর নির্দেশনা মতো সেন্টার ফর রিসার্চ এন্ড ইনফর্মেশন (সিআরআই) ঙহব ইধহমষধফবংয শিরোনামে একটি নতুন কর্মসূচি শুরু করতে যাচ্ছে। এর মাধ্যমে বঙ্গবন্ধুর আদর্শে ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বাংলাদেশের সংবিধানের চারটি মূলনীতি (জাতীয়তাবাদ, গণতন্ত্র, ধর্মনিরপেক্ষতা, সমাজতন্ত্র) বাস্তবায়নের লক্ষ্যে মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকলকে নিয়ে নতুন এক বাংলাদেশ গঠনের অভিযাত্রা শুরু হবে।

এতদ্উপলক্ষে অনুষ্ঠিতব্য কর্মসূচির মাধ্যমে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে সম্মিলন ঘটবে চারটি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাগ্রসরমাণ একঝাঁক স্বপ্নবান তরুণ-শিক্ষকের। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদের ব্যবস্থাপনায় ও সিআরআই কর্তৃক আয়োজিত এই কর্মসূচিতে সমবেত হবেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুষ্টিয়া) দুই শতাধিক তরুণ-শিক্ষক। প্রজ্ঞামান নির্দেশনাসহ থাকবেন অধ্যাপকবৃন্দও। সম্মেলন চলবে সকাল ১০টা থেকে বিকেল সাড়ে ৪টা পর্যন্ত। সকাল সাড়ে ১০টায় ঙহব ইধহমষধফবংয প্রসঙ্গে পরিচিতিমূলক আলোচনার মধ্য দিয়ে কর্মসূচির প্রথম পর্ব শুরু হবে। বেলা ১১টা থেকে দুপুর ১টা পর্যন্ত চলবে প্রবুদ্ধকরণপর্ব। সেখানে শিক্ষকবৃন্দ বাংলাদেশের আত্মপরিচয়, গণতন্ত্র, কর্মশক্তি, কর্ম-উদ্যোগ, উন্নয়নের ধারাবাহিকতা প্রভৃতি প্রসঙ্গে তাদের সুচিন্তিত ভাবনা বিনিময় করবেন। দুপুর ২টা থেকে সিআরআই-এর উপস্থাপনার মধ্য দিয়ে সম্মেলনের দ্বিতীয় পর্ব শুরু হবে। খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়, খুলনা প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়, যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় ও ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যবৃন্দের দিকনির্দেশনামূলক আলোচনার মধ্য দিয়ে কর্মসূচির সমাপ্তি ঘোষণা হবে।


এক্সক্লুসিভ


সাক্ষাৎকার

Ad Space

আইন-আদালত


শিল্প-সাহিত্য

Ad Space

ভ্রমণ

ফিচার

Ad Space

পরিবেশ

Ad Space

আবহাওয়া

Ad Space

রাশিফল


Ad Space