সুন্দরবনে অস্ত্রসহ ২ জলদস্যু গ্রেফতার,১৭ জেলে উদ্ধার


নভেম্বর ৯ ২০১৭

স্টাফ রিপোর্টার: অন্যান্য আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি র‌্যাপিড এ্যাকশন ব্যাটালিয়ন সুন্দরবন অঞ্চলের দুর্ধর্ষ জলদস্যু ও ডাকাতদের গ্রেফতারে নিয়মিত অভিযান পরিচালনা করে আসছে। যেসব জলদস্যু বাহিনী দস্যুতা ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চায় তাদেরকে র‌্যাব পুনর্বাসনের ব্যবস্থাও করছে।

র‌্যাব-৬ জানায়, যেসব বাহিনী এখনও আতœসমর্পণ করেনি তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করছে। এরই ধারাবাহিকতায় র‌্যাব-৬ এর মুন্সিগঞ্জ ক্যাম্পের চৌকষ সদস্যরা বুধবার (৯ নভেম্বর) পশ্চিম সুন্দরবনের মালঞ্চ নদীর টাটের ভাড়ানী এলাকায় অভিযান চালায়। সেখান থেকে জলদস্যু নুর আলমবাহিনীর ২জন সদস্যকে ২টি দেশীয় অস্ত্রসহ গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতদের মধ্যে রয়েছে সাতক্ষীরা জেলার তালা থানাধীন মাছিয়াড়া গ্রামের মোঃ খাইরুল গাজী ও  খুলনা জেলার পাইকগাছা থানাধীন রামনগর গ্রামের মোঃ সেলিম গাজী। অভিযানকালে র‌্যাবের উপস্থিতি টের পেয়ে ৫জন জলদস্যু সুন্দরবনের গহীন জঙ্গলে পালিয়ে যায়। অভিযানকালে ডাকাতদের ব্যবহৃত ২টি ডিঙ্গী নৌকা জব্দ করা হয়েছে। এছাড়া জলদস্যু কর্তৃক অপহৃত ১৭জন সাধারণ জেলে ও কাঁকড়া চাষীদের সুন্দরবনের ভিতর হতে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয়। পরবর্তীতে উদ্ধারকৃত আহত জেলেদের মুন্সিগঞ্জ ক্যাম্পে নিয়ে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। গ্রেফতারকৃত জলদস্যুদের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় যে, ১০/১২ দিন আগে মালঞ্চ ও কলাগাছিয়া নদীর বিভিন্ন খাল হতে ১৭জন সাধারণ জেলেদের অপহরণ করে তাদের পরিবারের কাছ থেকে বিভিন্ন অংকের মুক্তিপনের টাকা দাবি করা হয়।

 

র‌্যাব জানায়, সুন্দরবনের এসব দুর্ধর্ষ জলদস্যুদের আইনের আওতায় নিয়ে আসা এবং এ ধরনের উদ্ধার অভিযান ভবিষ্যতে অব্যাহত থাকবে।

 

এক্সক্লুসিভ

সাক্ষাৎকার

আইন-আদালত

শিল্প-সাহিত্য

ভ্রমণ

ফিচার

পরিবেশ

আবহাওয়া

রাশিফল


Ad Space