জামায়াত শিবিরের কারো আওয়ামীলীগে স্থান নেই


নভেম্বর ১১ ২০১৭

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি: খুলনা জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও জেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ হারুনুর রশীদ বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’র নেতৃত্বে দেশ যখন এগিয়ে যাচ্ছে তখন দেশের এই অগ্রযাত্রাকে থামিয়ে দিতে জামায়াত-বিএনপি চক্র সরকার ও দেশের বিরুদ্ধে নানা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। ষড়যন্ত্রকারীদের সকল ষড়যন্ত্র প্রতিহত করার মাধ্যমে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দলীয় মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থীকে বিজয়ী করার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার জন্য তিনি আ’লীগ ও সকল সহযোগী সংগঠনকে বিভেদ ভুলে গিয়ে ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করার জন্য আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, সরকারের উন্নয়ন ও বঙ্গবন্ধুর আদর্শে বিশ্বাসী হয়ে অনেকেই আওয়ামীলীগে যোগদান করছেন। তবে জামায়াত, শিবির ও কোন কাউয়া নেতার আওয়ামীলীগে স্থান নেই উল্লেখ করে এ ধরণের কেউ যাতে দলে প্রবেশ করতে না পারে এ জন্য তিনি সবাইকে সজাগ থাকার আহ্বান জানান। বর্তমান উপজেলা যুবলীগের সভাপতি এসএম শামছুর রহমানকে উদ্দেশ্যে করে তিনি বলেন, নির্বাচনে যারা একটি ভোটও পায়না, জনগণ যাদের প্রত্যাখান করে সেই ধরণের নেতাদের দলে প্রয়োজন নাই উল্লেখ করে তিনি আরো বলেন, আগামী নির্বাচনে দল যাকে মনোনয়ন দেবে দ্বিধাবিভক্ত না হয়ে সকল ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে দলীয় প্রার্থীকে নির্বাচিত করার জন্য সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হয়ে এখন থেকেই কাজ শুরু করতে হবে। তিনি শনিবার (১১নভেম্বর) বিকালে যুবলীগের ৪৫তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে পাইকগাছা পৌরসভা যুবলীগ আয়োজিত যুব সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

পাইকগাছা পৌরসভা মাঠে পৌর যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি আজিবর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা আওয়ামীলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক গাজী আব্দুল হাদি। বিশেষ অতিথি ছিলেন, জেলা আওয়ামীলীগের সিনিয়র সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুজ্জামান জামাল, স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক ডাঃ শেখ মোঃ শহীদ উল্লাহ, পৌর মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর, মুক্তিযোদ্ধা গাজী রফিকুল ইসলাম, শেখ শাহাদাৎ হোসেন বাচ্চু, আ’লীগনেতা লুৎফর রহমান, শেখ মনিরুল ইসলাম, আব্দুর রাজ্জাক মলঙ্গী, রতন ভদ্র, জেলা যুবলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক সরদার জাকির হোসেন, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক জামিল খান, ত্রাণ ও সমাজ কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক শেখ আনিছুর রহমান মুক্ত, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ইমরান হোসেন, জেলা যুব স্বেচ্ছাসেবকলীগের সভাপতি রেজাউল করিম, যুগ্ম-আহবায়ক সাইফুল ইসলাম খান, আরিফ চৌধুরী, জেলা তরুণ লীগের সভাপতি আমিন বেগ, সাধারণ সম্পাদক তাপস জোয়াদ্দার, অনুপম বিশ্বাস, মাহফুজুর রহমান সোহাগ, জেলা তাঁতীলীগের আহবায়ক সুমন আহমেদ খান, যুগ্ম-আহবায়ক বনানী রায়, জেলা যুবলীগনেতা বিধান রায়, জেলা পরিষদ সদস্য শেখ কামরুল হাসান টিপু, আব্দুল মান্নান গাজী, নাহার আক্তার। পৌর যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক জগদীশ চন্দ্র রায়ের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, অধ্যক্ষ রবিউল ইসলাম, গোপাল ঘোষ, ইউপি চেয়ারম্যান দিবাকর বিশ্বাস, রিপন কুমার মন্ডল, আ’লীগনেতা বিজন বিহারী সরকার, আখতারুজ্জামান সুজা, মুনছুর আলী গাজী, হেদায়েত আলী টুকু, সরদার গোলাম মোস্তফা, যুবলীগনেতা শেখ রাশেদুল ইসলাম রাসেল, শেখ শহীদ হোসেন বাবুল, শেখ মাসুদুর রহমান, প্রণব কান্তি মন্ডল, শেখ জিয়াদুল ইসলাম, প্রভাষক ময়নুল ইসলাম, আসিফ ইকবাল রনি, তরুণলীগ নেতা মিনারুল ইসলাম সানা, মহিলা আ’লীগনেত্রী খাদিজা আক্তার, জুলি শেখ, পাপিয়া সরোয়ার, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি শেখ আবুল কালাম আজাদ, সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম আমিনুর রহমান লিটু, বর্তমান সভাপতি এসএম মশিয়ার রহমান, পৌর সভাপতি মাসুদ পারভেজ রাজু, সাধারণ সম্পাদক রায়হান পারভেজ রনি সহ আ’লীগ, যুবলীগ ও ছাত্রলীগের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ। সমাবেশের শুরুতেই প্রধান অতিথি শেখ হারুনুর রশীদের হাতে ফুলের তোড়া দিয়ে আওয়ামীলীগে যোগদান করেন সোলাদানা ইউনিয়নের ৮ বার নির্বাচিত সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান এসএমএ মাজেদসহ অর্ধশতাধিক নেতাকর্মী।

 

 

এক্সক্লুসিভ

সাক্ষাৎকার

আইন-আদালত

শিল্প-সাহিত্য

ভ্রমণ

ফিচার

পরিবেশ

আবহাওয়া

রাশিফল


Ad Space