কিমের সঙ্গে সাক্ষাতের আগ্রহ ট্রাম্পের


মে ২ ২০১৭

এসবিএন ডেস্ক : যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প বলেছেন, ‘যথাযথ পরিস্থিতিতে’ উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উনের সঙ্গে সাক্ষাৎ হলে তিনি ‘সম্মানিত’ বোধ করবেন।

বিবিসি জানিয়েছেন, সোমবার ব্লুমবার্গকে এ কথা বলেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট, যিনি আগের দিন সিবিএস চ্যানেলে এক সাক্ষাৎকারে কিম জং উনকে  বর্ণনা করেন ‘খুব সেয়ানা’ লোক হিসেবে।

ব্লুমবার্গকে ট্রাম্প বলেন, “তার সাথে আমার সাক্ষাতের মত পরিস্থিতি হলে আমি অবশ্যই দেখা করব। দেখা হলে আমি সম্মানিত বোধ করব।”

উত্তর কোরিয়ার পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে ক্রমবর্ধমান উত্তেজনার মধ্যেই যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্টের এমন বক্তব্য এল।

বিবিসি লিখেছে, ট্রাম্প সাক্ষাতের ‘যথাযথ পরিস্থিতি’ বলতে কী বুঝিয়েছেন তার একটি ব্যাখ্যা এসেছে হোয়াইট হাউস থেকে।

সেখানে বলা হয়েছে, দুই নেতার মধ্য বৈঠক হতে হলে তার আগে উত্তর কোরিয়াকে বেশ কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে।

হোয়াইট হাউসের মুখপাত্র শন স্পাইসার বলেন, উত্তর কোরিয়ার ‘উসকানিমূলক কর্মকাণ্ড’ অবিলম্বে বন্ধ হবে বলেই ওয়াশিংটন প্রত্যাশা করে।

রোববার সিবিএসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে ট্রাম্প বলেন, কঠিন কিছু মানুষের মোকাবিলা করে তরুণ বয়সেই রাষ্ট্র ক্ষমতায় এসেছেন কিম জং উন।

উত্তর কোরিয়ার ক্ষমতায় আসার দুই বছরের মাথায় নিজের একমাত্র ফুফার মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করেন কিম। সম্প্রতি মালয়েশিয়ায় নিহত নিজের সৎ ভাইকে হত্যার নির্দেশদাতা হিসেবেও তাকে সন্দেহ করা হয়।

ট্রাম্প বলেন, “লোকজন বলছে, ‘তার (কিম) মাথা ঠিক আছে তো?’, (এ বিষয়ে) আমার কোনো ধারণা নেই। তবে তার বাবা যখন মারা যান, সে ২৬ কি ২৭ বছরের একজন যুবক। নিশ্চিতভাবেই তাকে খুব কঠিন লোকজনের সঙ্গে বোঝাপড়া করতে হয়েছে, বিশষে করে জেনারেলদের সঙ্গে,  অন্যদের সঙ্গে।”

“ওই রকম তরুণ বয়সে সে ক্ষমতা গ্রহণ করতে পেরেছে। আমি নিশ্চিত, অনেক মানুষই তার কাছ থেকে ক্ষমতা কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছে, সে তার ফুফা বা অন্য যেই হোক। কিন্তু সে (কিম) ক্ষমতা রক্ষা করতে পেরেছে। এটা তো স্পষ্ট, সে বেশ সেয়ানা লোক।”

এক্সক্লুসিভ

সাক্ষাৎকার

আইন-আদালত

শিল্প-সাহিত্য

ভ্রমণ

ফিচার

পরিবেশ

আবহাওয়া

রাশিফল


Ad Space