বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ♦ ৪ আশ্বিন ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

হৃদরোগের ঝুঁকি কমাবে যে ৭ টি খাবার

এসবিনিউজ ডেস্ক:  গোটা বিশ্বে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মৃতের ঘটনা বাড়ছে। বিশেষজ্ঞদের মতে, বয়সজনিত কারণ তো বটেই এছাড়া অতিরিক্ত মেদ, উচ্চ কোলস্টেরলের সমস্যা, উচ্চ রক্তচাপ, অস্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাস, অ্যালকোহল পান, মানসিক চাপ ইত্যাদি কারণে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে অকাল মৃত্যুর ঘটনা বেশি ঘটছে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নিয়ন্ত্রিত জীবনযাপন ও খাদ্যাভাসের মাধ্যমে হৃদরোগের ঝুঁকি অনেকটা কমানো সম্ভব।কিছু খাবার আছে যেগুলি নিয়মিত খেলে হৃৎপিণ্ড সুস্থ থাকে। যেমন-

বেদানা: বেদানায় প্রচুর পরিমাণে ফাইটোকেমিক্যাল নামের অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকায় এটি আর্টারির স্বাস্থ্য ভাল রাখতে সাহায্য করে। ফলে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে।

খেজুর: খেজুরে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট ও পলিফেনল থাকায় এটি রক্তে কোলেস্টেরল ও ট্রাইগ্লিসারাইডের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে।এতে হৃৎপিণ্ড সুস্থ থাকে।

হলুদ: হলুদে থাকা অ্যান্টিঅক্সিড্যান্ট আর্টারিতে রক্ত জমাট বাঁধতে দেয় না। ফলে রক্ত সঞ্চালন স্বাভাবিক থাকে এবং হৃদরোগের ঝুঁকি অনেকটা কমে যায়।

ব্রকলি: ব্রকলিতে থাকা ভিটামিন কে আর্টারির কর্মক্ষমতা বাড়াতে সাহায্য করে। এছাড়া এতে থাকা ফাইবার রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখে।

দারুচিনি: দারুচিনিতেও প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে। এ কারণে এটি রক্তে ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের পরিমাণ কমিয়ে হৃদরোগের ঝুঁকি কমায়।

বাদাম: আখরোট, কাজু, পেস্তা, চীনাবাদামসহ প্রায় সব ধরণের বাদাম হৃৎপিণ্ড সুস্থ রাখতে দারুণ কার্যকরী। বাদামে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড, ভিটামিন ই, ফাইবার থাকায় এটি খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়। এতে হৃদরোগের ঝুঁকি কমে। 

গ্রিন টি: গবেষণা বলছে, দিনে অন্তত ২ কাপ গ্রিন টি খেতে পারলে তা রক্তের ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। এতে হৃৎপিণ্ডও সুস্থ থাকে। সূত্র: জি নিউজ

Related posts