শুক্রবার, ১৩ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

সৌমিত্র, অপর্ণাসহ ৪৯ জনের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহিতার মামলা

এসবিনিউজ ডেস্ক: চলচ্চিত্র অভিনেতা সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, অভিনেত্রী অপর্ণা সেনসহ ভারতের ৪৯ জন বিশিষ্ট ব্যক্তির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহের অভিযোগে মামলা হয়েছে। সুধীর কুমার ওঝা নামের একজন আইনজীবী বিহারের একটি আদালতে মামলাটি করেছেন। রাষ্ট্রদ্রোহের পাশাপাশি তাদের বিরুদ্ধে ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত এবং দেশের অখণ্ডতা ক্ষুণ্ন করার অভিযোগ করা হয়েছে। আগামী ৩ আগস্ট এই মামলার শুনানি হবে।

ধর্মের নামে সহিংসতা বন্ধে গত মঙ্গলবার ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে খোলা চিঠি লেখেন সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, অপর্ণা সেন, আদুর গোপালকৃষ্ণন, শ্যাম বেনেগাল, রামচন্দ্র গুহ, বিনায়ক সেন, মণিরত্নম, গৌতম ঘোষ, শুভা মুদ্গল, অনুরাগ কাশ্যপ, কৌশিক সেন, কঙ্কনা সেনশর্মা, রূপম ইসলামসহ ভারতের ৪৯ জন বিশিষ্ট নাগরিক। চিঠিতে তারা লেখেন, ‘?জয় শ্রীরাম’? ধ্বনি তুলে যে হিংসা চলছে, তা বন্ধের দায়িত্ব নিতে হবে প্রধানমন্ত্রীকে। তাদের বক্তব্য ছিল, ?গুজবের জেরে পিটিয়ে খুন করা হয়েছে বহু মানুষকে। দলিত বা সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষের ওপর এ ধরনের হিংসার ঘটনা বেড়ে চলেছে। দুঃখজনকভাবে ‘জয় শ্রীরাম’ ধ্বনি এখন উসকানিমূলক রণহুংকার হয়ে উঠেছে, যার কারণে আইনশৃঙ্খলার সমস্যা হচ্ছে। ধর্মের নামে এত হিংসা অবিশ্বাস্য! এটা মধ্যযুগ নয়! দেশের সংখ্যাগুরু সমাজের অনেকের কাছেই রামের নাম অতি পবিত্র। শীর্ষস্তরের প্রশাসক হিসেবে, রামের নামে কালি ছিটানো প্রতিরোধের দায়টা কিন্তু আপনারই (প্রধানমন্ত্রীর)!’ চিঠিটি নিয়ে ভারত জুড়ে তোলপাড় শুরু হয়।

ঐ চিঠির পালটা হিসেবে বলিউড অভিনেত্রী কঙ্গনা রানাউত, পরিচালক মধুর ভান্ডারকর, বিবেক অগ্নিহোত্রীসহ দেশের ৬১ জন বিশিষ্ট নাগরিক সরব হন। বিহার আদালতে করা আবেদনে সুধীর কুমার ওঝা ঐ ৬১ জনকে ‘সাক্ষী’ হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

শনিবার বিহারের মুজফ্ফরপুরের মুখ্য বিচার বিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে দাখিল করা এক পিটিশনে সুধীর কুমার ওঝা দাবি করেছেন, ভারতের ভাবমূর্তি নষ্ট করতেই এ কাজ করেছেন ঐ ৪৯ জন। প্রধানমন্ত্রীর চমকপ্রদ সাফল্যকে খাটো করে দেখানোই তাদের উদ্দেশ্য। রাষ্ট্রদ্রোহ ছাড়াও ভারতের সার্বিক অখণ্ডতা নষ্ট করা, তথা ধর্মীয় ভাবাবেগে আঘাত হানার অভিযোগও করেছেন তিনি। পাশাপাশি, ওই বিশিষ্টজনেরা বিচ্ছিন্নতাবাদী প্রবণতার বশবর্তী হয়েই এ কাজ করেছেন বলেও দাবি করেছেন তিনি।

এদিকে এই চিঠির পর নাট্যব্যক্তিত্ব কৌশিক সেন ও অভিনেতা-পরিচালক অনুরাগ কাশ্যপ খুনের হুমকি পান। দুই বিশিষ্টজনকে হত্যার হুমকির পরিপ্রেক্ষিতে মোদিপন্থীদের কটাক্ষ করে অপর্ণা সেন বলেছেন, ‘এত ভয়! মাত্র ৪৯ জন চিঠি দিল, তাতেই দুটো প্রাণনাশের হুমকি চলে এল! আমার হাসি পাচ্ছে। তার মানে, কোথাও গিয়ে তাদের আঁতে ঘা লেগেছে।’ সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায় বলেন, ‘আমার বক্তব্য চিঠিতে স্পষ্ট করে বলেছি। তাতে কার আপত্তি হলো, কে কী বলল, তা নিয়ে আমার বিন্দুমাত্র মাথাব্যথা নেই।’

Related posts