শনিবার, ১৬ নভেম্বর ২০১৯ | ১ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

‘সুবিধা বাড়িয়ে দেবো, গ্রাম পর্যায়ে সুচিকিৎসা দিন’

এসবিনিউজ ডেস্ক: সুযোগ-সুবিধা আরও বাড়িয়ে দেবো। গ্রাম-ইউনিয়ন-উপজেলা পর্যায়ে সবাইকে সুচিকিৎসা দিন। গ্রামের মানুষের স্বাস্থ্যসেবার প্রতি খেয়াল রাখুন।

মঙ্গলবার (১০ সেপ্টেম্বর) হোটেল সোনারগাঁওয়ে ‘স্টেকহোল্ডার্স মিটিং টু রিভিউ দ্য প্রোগ্রেস টুওয়ার্ড অ্যান্ড টিবি (টিউবারকিউলোসিস) ইন বাংলাদেশ’ শীর্ষক আলোচনা সভায় পরিকল্পনামন্ত্রী এমএ মান্নান একথা বলেন।
 
মন্ত্রী বলেন, আপনাদের (ডাক্তার-নার্স) বেতন-ভাতা বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এ বিষয়ে আপনারা সরকারের প্রশংসা করেছেন। দরকার হয় বেতন-ভাতা আরও বাড়িয়ে দেবো আপনারা গ্রামের মানুষকে সুচিকিৎসা দিন। আপনারা ইউনিয়ন-উপজেলা পর্যায়ে থেকে চিকিৎসা দিন।
 
দুঃখপ্রকাশ করে পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, আমি গ্রামের মানুষ, হাওরে বেড়ে উঠেছি। প্রতি সপ্তাহে আমি গ্রামে যাই। একটি বিষয়ে আমি খুব কষ্ট পাই, দুঃখ পাই। গ্রাম-ইউনিয়ন-উপজেলা পর্যায়ে ডাক্তার থাকে না। শুধু ডাক্তার নয় তাদের সহকারী নার্সও থাকে না। অথচ আমাদের সরকার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলো চমৎকারভাবে নির্মাণ করেছে। এগুলোর পরিবেশও ভালো। অথচ গ্রামের মানুষ চিকিৎসা পাচ্ছেন না।
 
মন্ত্রী আরও বলেন, সরকারের স্বাস্থ্যখাতে সাফল্য এসেছে আপনাদের হাত ধরে। তবে মাঝে মধ্যে কিছু ডাক্তার গ্রামে থাকতে চাচ্ছেন না। এসব ডাক্তার আমাদের অর্জন ম্লান করছে। এটা দেখে আমি খুব কষ্ট পাচ্ছি। সরকার বেতন বাড়িয়েছে অথচ কেন এমন হচ্ছে? প্রধানমন্ত্রী সব খাতে উদার, ওনার নেতৃত্বে আমরা কাজ করছি। প্রধানমন্ত্রী জনগণের জন্য কাজ করছেন। আপনাদেরও দায়িত্ব মানুষকে সেবা করা।
 
পরিকল্পনামন্ত্রী বলেন, জনগণের পক্ষ থেকে আপনাদের দায়িত্বে আছি। আপনাদেরও যে দায়িত্ব আছে সেগুলো পালন করবেন। আপনি যে কাজটি করছেন তা ভালোভাবে করেন।
 
ডাক্তারদের উদ্দেশ্য করে মন্ত্রী বলেন, শুধু টাকা দিয়ে কাজ হবে না। নেতৃত্বের প্রয়োজন আছে, কমিটমেন্ট থাকতে হবে গ্রামের মানুষকে চিকিৎসা দেওয়ার। দেশকে ভালোবাসতে হবে, দেশের সব মানুষের জন্য কাজ করতে হবে।
 
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব আসাদুল ইসলাম, স্বাস্থ্য, শিক্ষা ও পরিবারকল্যাণ বিভাগের সচিব শেখ ইউসুফ হারুন প্রমুখ।
 

Related posts