রবিবার, ২১ জুলাই ২০১৯ ♦ ৫ শ্রাবণ ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

শিক্ষার্থীদের সুস্থ সাংস্কৃতিক চর্চার প্রয়োজন: নিশ্চিন্ত

স্টাফ রিপোর্টার: জাতীয় শিক্ষা সপ্তাহ-২০১৯ উপলক্ষে খুলনা বিভাগীয় পর্যায়ে বিভিন্ন প্রতিযোগিতার সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠান শুক্রবার (৫এপ্রিল) সন্ধ্যায় খুলনা সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। এতে প্রধান অতিথি ছিলেন খুলনার অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) নিশ্চিন্ত কুমার পোদ্দার। মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, খুলনা অঞ্চল এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
প্রধান অতিথি বলেন, মেধাধী শিক্ষার্থীরাই দেশকে সামনের দিকে এগিয়ে নিবে। পড়াশুনার পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের সুস্থ সাংস্কৃতিক চর্চা করা প্রয়োজন। সর্ব ক্ষেত্রে শিক্ষা সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন। ২০৪১ সালের মধ্যে দেশকে উন্নয়শীল রাষ্ট্রে পরিণত করতে হলে সকল শিক্ষার্থীকে সুশিক্ষায় শিক্ষিত হতে হবে। উন্নত বাংলাদেশ নির্মাণের জন্য তাদের প্রস্তুত করতে হবে। তিনি বলেন, তরুণ ও কিশোরদের সকল ক্ষেত্রে বিকশিত করতে হবে এবং শরীরকে সঠিকভাবে তৈরি করতে হবে।
মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, খুলনা অঞ্চলের পরিচালক প্রফেসর শেখ হারুনর রশীদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার প্রফেসর সাধন রঞ্জন ঘোষ, মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, খুলনা অঞ্চলের উপপরিচালক নিভা রানী পাঠক এবং সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ফারহানা নাজ। স্বাগত বক্তৃতা করেন মাধ্যমিক ও উচ্চ শিক্ষা অধিদপ্তর, খুলনা অঞ্চল কলেজ শাখার উপপরিচালক মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান।
প্রতিযোগিতায় খুলনা বিভাগের ১০ জেলার বিভিন্ন মাধ্যমিক, মাদ্রাসা ও কলেজ পর্যায়ে প্রায় আটশত ৯০ জন শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন। এর মধ্যে থেকে ৮৯ জন শিক্ষার্থী শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন করে। এই শ্রেষ্ঠত্ব অর্জনকারীরা জাতীয় পর্যায়ে অংশগ্রহণ করবে।
পরে প্রধান অতিথি বিজয়ী শিক্ষার্থীদের মাঝে ক্রেস্ট ও সনদপত্র প্রদান করেন।
প্রতিযোগিতার মধ্যে ছিলো: কেরাত, হামদ, না’ত, রচনা, কবিতা আবৃতি, বিতর্ক, তাৎক্ষনিক অভিনয়, রবীন্দ্র ও দেশাত্মবোধক গান, নজরুল, উচ্চাঙ্গ সংগীত, লোক সংগীত, জারি গান, নৃত্য ও লোকনৃত্য, শ্রেষ্ঠ স্কাউট, স্কাউট গ্রুপ, স্কাউট শিক্ষক, শ্রেষ্ঠ গার্লস গাইড, গার্লস গাইড গ্রুপ, গার্লস গাইড শিক্ষক, শ্রেষ্ঠ রোভার, রোভার গ্রুপ, রোভার শিক্ষক, শ্রেষ্ঠ রেঞ্জার, রেঞ্জার গ্রুপ, রেঞ্জার শিক্ষক, শ্রেষ্ঠ বিএনসিসি, বিএনসিসি গ্রুপ, বিএনসিসি শিক্ষক, শ্রেষ্ঠ শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, এবং শ্রেষ্ঠ জেলা শিক্ষা অফিসার প্রমুখ।

Related posts