বৃহস্পতিবার, ১৭ অক্টোবর ২০১৯ | ১ কার্তিক ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

লাদাখে ভারত ও চীনা সেনাদের ফের সংঘর্ষ

এসবিনিউজ ডেস্ক: ভারতের উত্তরতম প্রান্তে লাদাখের প্যাংগং হ্রদের তীরে বুধবার প্রায় সারা দিন ধরে ভারতীয় ও চীনা সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘাত হয়েছে বলে দিল্লিতে সামরিক সূত্রগুলো নিশ্চিত করেছে।

তবে দিনের শেষে দুই দেশের সেনাবাহিনীর প্রতিনিধি পর্যায়ের বৈঠকের পর সেই বিরোধের অবসান হয়। এখন পরিস্থিতি সেখানে শান্ত বলেই জানা যাচ্ছে। গত মাসের ৫ তারিখে ভারত সরকার লাদাখকে একটি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে ঘোষণা করার পর এই প্রথম দুই দেশের সেনাবাহিনী কোনো মুখোমুখি সংঘাতে জড়াল।

এর আগেই লাদাখ অঞ্চলকে ভারতের কেন্দ্রীয় শাসনের অধীনে নেওয়ার সিদ্ধান্তের কড়া সমালোচনা করেছে বেইজিং। লাদাখের যে প্যাংগং হ্রদের ধারে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে, সেটি দুই দেশের বর্তমান সীমান্ত বরাবর অবস্থিত। প্রায় ১৩৫ কিলোমিটার লম্বা এই সুদীর্ঘ হ্রদটি চীনের তিব্বত থেকে ভারতের লাদাখ পর্যন্ত বিস্তৃত।

ভারত এই হ্রদের প্রায় এক-তৃতীয়াংশ নিয়ন্ত্রণ করে থাকে। প্যাংগং লেকের বাদবাকি অংশ রয়েছে চীনের নিয়ন্ত্রণে। প্যাংগং হ্রদের তীর ঘেঁষে ও হ্রদের বুকেও দুই দেশের সেনারা পায়ে হেঁটে বা স্পিডবোটে নিয়মিত টহল দিয়ে থাকে।

দিল্লিতে ‘দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া’ পত্রিকা লিখেছে, বুধবার সকালে ভারতীয় সেনাবাহিনীর সদস্যরা যখন লেকের ধারে রুটিন টহলদারি চালাচ্ছিল তখনই চীনের পিপলস লিবারেশন আর্মির (পিএলএ) ফৌজ তাদের বাধা দেয়।

এর পরই দুই পক্ষ সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে, দুই দেশের সেনাদের মধ্যে হাতাহাতি পর্যন্ত হয়। দুই পক্ষই বাড়তি ফৌজ চেয়ে পাঠায়, আর দফায় দফায় এই সংঘাত চলে বুধবার প্রায় সারা দিন ধরেই।

ভারত ও চীনের মধ্যে লাদাখে যে ‘লাইন অব অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল’ (প্রকৃত নিয়ন্ত্রণরেখা) সীমান্তের কাজ করে, দুই পক্ষের মধ্যে তার ব্যাখ্যার তারতম্যের কারণেই এ ধরনের ঘটনা ঘটেছে বলে ভারতীয় সেনাবাহিনীর দাবি। দুই বছর আগে ২০১৭ সালের আগস্ট মাসেও ভারত ও চীনের সেনারা প্যাংগং লেকের ধারে এক সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়েছিল।- বিবিসি

 

 

Related posts