মঙ্গলবার, ১৮ ডিসেম্বর ২০১৮ ♦ ৪ পৌষ ১৪২৫

Select your Top Menu from wp menus

যেখানে সবাই চলে ঘড়ির কাটা ধরে

রুবাইয়া হাসনাত বর্ণা

সময়জ্ঞান সম্পর্কে কথা উঠলে সুইজারল্যান্ডের ছবি ভেসে ওঠে চোখের সামনে।  ঘড়ি তৈরির জন্য বিখ্যাত এই দেশের নাগরিকরা সময় নিয়ে অনেক বেশি সচেতন। দেশের প্রতিটি মানুষ ঘড়ির কাটা অনুসারে চলে।

আপনি হয়তো কোন সুইস ভদ্রলোকের সাথে কোনও রেস্টুরেন্টে দেখা করতে চাইলেন, সময় দিলেন দুপুর ২টায়। সুইস ভদ্রলোক কখন হাজির হবে জানেন? ১:৫৫ নাকি ২:১০ এ? না, একদম ২টার সময়ই তিনি হাজির হবেন। এর আগেও না, পরেও না।

সময়মতো হাজির হওয়া, পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকাই সুইসদের চিরাচরিত অভ্যাস। সঠিক সময়ে যদি কোনও সুইস যদি আপনার সাথে দেখা করতে আসে তার মানে হলো তিনি আপনাকে সম্মান করলেন, আপনার দেওয়া সময়কে সম্মান করলেন।

সুইজারল্যান্ডে ট্রেন, বাস, ট্যাক্সি সবই ঘড়ির কাটা ধরে চলে। ট্রেন, প্লেন বা বাসের শিডিউল বিপর্যয় হয়েছে, দেশটির ইতিহাসে এমন ঘটনা বিরল। সম্প্রতি সুইস কর্তৃপক্ষ ফেডারেল ট্রেনের নির্দিষ্ট স্টেশনে পৌছাতে তিন মিনিট দেরী হওয়ার বিষয়টি নিয়ে বিচলিত হয়ে পড়েছিলো।

সুইসরা শুধু যে সময় মেনে চলে তা নয়, তারা অনেক পরিচ্ছন্নও। তাদের পাবলিক টয়লেটে গেলে তা বোঝা যায়। স্ইুসদের পাবলিক টয়লেটের পানি আপনি চাইলে পানও করতে পারবেন। তাদের পানির সরবরাহ সরাসরি আসে পাহাড়ি ঝর্নাধারা থেকে।

সুইজারল্যান্ডে কখনও যদি ঘুরে আসতে চান, তবে এ বিষয়ে গ্যারান্টি দেওয়া যায় যে আপনি আপনার জীবন-যাত্রার ধরণ খুব দ্রুত পাল্টে ফেলবেন। অফিসে দেরিতে আসার জন্য বসের ধমকও খেতে হবে না।

সূত্র: বিবিসি

 

Related posts