মঙ্গলবার, ২০ অগাস্ট ২০১৯ ♦ ৪ ভাদ্র ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

ভারতীয় মালহার উৎসবে মুগ্ধ খুলনার শ্রোতারা

স্টাফ রিপোর্টার: এই প্রথম বারের মতো খুলনায় অনুষ্ঠিত হলো ভারতীয় মালহার উৎসব। মহানগরীর সিএসএস আভা সেন্টারে রোববার সন্ধ্যায় প্রদীপ প্রজ্জলনের মাধ্যমে বর্ষাকে আহবান করতে এই উৎসবের আয়োজন করা হয়। সহকারী ভারতীয় হাই কমিশন এবং উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী যৌথভাবে মালহার অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, খুলনাস্থ ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার রাজেশ কুমার রায়না এবং উদীচীর খুলনা শাখার সভাপতি সুখেন রায়সহ বিশিষ্টজনেরা মঙ্গল প্রদীপ প্রজ্জলনের মাধ্যমে মালহার উৎসবের উদ্বোধন করেন।

সারদ আর তবলার তালে তালে বর্ষাকে আহবান করাই হলো মালহার উৎসব। ভারতের সুপরিচিত দুই বাদকশিল্পী পন্ডিত দেবজ্যোতি বোস ও  পন্ডিত শুভংকর ব্যানার্জ্যি সারদ আর তবলার সুরের মুর্চ্ছনায় মাতিয়ে তুললেন সংস্কৃতিমনা শ্রোতাদের। বার বার হাতে তালি দিয়ে অতিথি শিল্পীদ্বয়কে সম্মান জানালেন খুলনার মানুষ। মন্ত্রমুগ্ধ শ্রোতারা আয়োজকদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বার বার এমন অনুষ্ঠানের আয়োজনের দাবি জানালেন।

স্বাগত বক্তব্যে ভারতীয় সহকারী হাই কমিশনার রায়না জানান, ভারতের সুপরিচিত সারদবাদক পন্ডিত দেবজ্যোতি বোস ও তবলাবাদক পন্ডিত শুভংকার ব্যানার্জির মালহার উৎসব খুলনার মানুষের জন্য একটি সেরা উপহার। খুলনাকে লোক ও শাস্ত্রীয় সংগীতের রাজধানী মনে করেই এ অঞ্চলের সংস্কৃতিমনা মানুষের জন্যে এই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে।

তিনি পন্ডিত শুভংকর ব্যানার্জি ও পন্ডিত দেবজ্যোতি বোস এর পরিচয় তুলে ধরে বলেন, পন্ডিত শুভংকর ব্যানার্জি শান্ত্রীয় তবলা বাদক হিসেবে দক্ষ পন্ডিত শুভংকর ব্যানার্জি কে ভারতীয় সংগীতে মশাল বাহক হিসেবে মনে করা হয় তার মেধাবী ও নানামুখি সংগীত কৌশলের জন্যে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অসাধরণ কৃতিত্বের জন্যে সমাদৃত।

অনুষ্ঠানে খুলনার বিভাগীয় কমিশনার মো: লোকমান হোসেন মিয়া, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য প্রফেসর ড. ফায়েক উজ্জামানসহ বিভিন্ন শ্রেনী পেশার সংস্কৃতিমনা মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

Related posts