বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯ | ২৯ কার্তিক ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে দেশকে পিছিয়ে দেয়া হয়েছিলো : মেয়র

স্টাফ রিপোর্টার: খুলনা সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক বলেছেন, ‘জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যার মধ্য দিয়ে দেশকে পিছিয়ে দেওয়া হয়েছিলো। মুক্তিযুদ্ধের পরাজিত শক্তি ভেবেছিলো বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ নিশ্চিহ্ন হয়ে যাবে। আর কোনো দিন খুনিদের বিচার হবে না, কিন্তু তাদের সে আশা পূরণ হয়নি। এ মাটিতেই খুনিদের বিচার হয়েছে, দেশও আবার এগিয়ে যাচ্ছে।’

তিনি বলেন, ‘বঙ্গবন্ধুকে হত্যার মাধ্যমে স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও মানুষের অধিকারকেও হত্যা করা হয়েছিল। বঙ্গবন্ধু চেয়েছিলেন বাংলাদেশ বিশ্বের বুকে মাথা উঁচু করে দাঁড়াবে, কিন্তু তাকে হত্যার মধ্য দিয়ে দেশকে পিছিয়ে দেওয়া হয়। আর (প্রধানমন্ত্রী) শেখ হাসিনা ক্ষমতায় এসে তার বাবার মতো মানুষের কল্যাণে কাজ করে যাচ্ছেন।’

বৃহস্পতিবার বঙ্গবন্ধুর ৪৪তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে খুলনা সাংবাদিক ইউনিয়ন (কেইউজে) এর উদ্যোগে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন ইউনিয়নের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি মো. হুমায়ুন কবীর। পরিচালনা করেন প্রচার ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক এস এম নূর হাসান জনি। সভার শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানসহ ১৫ই আগস্টের নিহত সকল শহীদদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।

সভায় বক্তৃতা করেন ও উপস্থিত ছিলেন ওয়াদুদুর রহমান পান্না, মুক্তিযোদ্ধা মকবুল হোসেন মিন্টু, এ কে হিরু, এস এম জাহিদ হোসেন, এস এম হাবিব, ফারুক আহমেদ, নেয়ামুল হোসেন কচি, মো. সাহেব আলী, মোজাম্মেল হক হাওলাদার, সুবীর রায়, অমিয় কান্তি পাল, এস এম ফরিদ রানা, আসাদুজ্জামান রিয়াজ, সাবেক ছাত্রনেতা শেখ মো. আবু হানিফ, অভিজিৎ পাল, মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মালেক, আল মাহমুদ প্রিন্স, আবু সাঈদ, শেখ আব্দুল্লাহ, শরিফুল ইসলাম বনি, মামুন রেজা, মল্লিক সুধাংশু, অরুণ সাহা, মহেন্দ্র নাথ সেন, জয়নাল ফরাজী, বিমল সাহা, ওয়াহেদ উজ জামান বুলু, দেবনাথ রণজিৎ কুমার, আলমগীর হান্নান, কাজী শামীম আহমেদ, সুনীল দাস, আমিরুল ইসলাম, মিলন হোসেন, নাজমা বেগম, বাবুল আকতার, লিয়াকত হোসেন, তপু বিশ্বাস, দিলীপ পাল, হাসান আল মামুন, মেহেদী মাসুদ খান, হাসানুর রহমান তানজির, এস এম বাহাউদ্দিন, রাজু সাহা বিপ্লব, আব্দুর রাজ্জাক, হেলাল মোল্লা, আবুল বাশার, শশাঙ্ক স্বর্ণকার, সোহেল রানা প্রমুখ।

সভা শেষে ১৫ই আগস্টে নিহত সকল শহীদদের রুহের মাগফিরাত কামনায় দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত হয়। দোয়া মাহফিল শেষে তবারক বিতরণ করা হয়। এর আগে সকালে খুলনা প্রেস ক্লাবস্থ বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্যে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন নেতৃবৃন্দ। এছাড়া দিনব্যাপী বঙ্গবন্ধুর ৭ই মার্চের ভাষণ সম্প্রচার ও সন্ধ্যার পর ক্লাব চত্বরে বঙ্গবন্ধুর জীবনীর উপর প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শনী করা হয়।

Related posts