বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯ ♦ ৫ আষাঢ় ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের অভাবে অরক্ষিত তালার অসংখ্য স্থাপনা

সেলিম হায়দার, তালা (সাতক্ষীরা):
জমি অধিগ্রহণ প্রক্রিয়া ও কর্তৃপক্ষের সমন্বয়হীনতায় আটকে গেছে প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার ভিত্তিক প্রকল্পের অধিনে তালায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন স্থাপনের কাজ। উপজেলার সরকারি-বেসরকারি অধিকাংশ অফিসসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানগুলিতে প্রতিদিন জীবনের ঝুঁকি নিয়ে কাজ করছেন শত শত কর্মকর্তা-কর্মারী ও নানাকাজে অফিসপাড়ামূখী হাজার হাজার মানুষ। শুষ্ক মৌসুমে সারাদেশে অগ্নিকান্ডের ঘটনা বেড়ে যাওয়ায় এবং তালায় কোন প্রতিষ্ঠানে অগ্নিনির্বাপন ব্যবস্থা না থাকায় তালাবাসী নানা আশংকায়।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়,প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকার ভিত্তিক প্রকল্পের অধিনে সাতক্ষীরার তালা উপজেলায় একটি ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণের উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়। স্থানীয় (তালা-কলারোয়া) সংসদ সদস্য, এ্যাড.মুস্তফা লুৎফল্লাহ উপজেলা চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার ও স্থানীয় বে-সরকারি সাহায্যসেবী প্রতিষ্ঠান উত্তরণ পরিচালক শহীদুল ইসলামের ঐকান্তিক প্রচেষ্ঠায় প্রকল্প বাস্তবায়নে অনেক দূর এগিয়ে যায়। খুলনা বিভাগীয় উপ-পরিচালক আবুল হোসেন, জেলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশন এর উপ-পরিচালক স্থানীয়দের সাথে নিয়ে সদরের পেট্রোল পাম্প এলাকায় স্থান নির্ধারণ করে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রনালয়ে প্রস্তাবনা পাঠিয়েছেন।
সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়,গত ৫ মার্চ ভয়াবহ অগ্নিকান্ডে তালা বাজারের ৮ টি দোকান পুড়ে ভষ্মীভূত হয়। ১০ এপ্রিল উপজেলার মহন্দী এলাকায় অবস্থিত একটি খ্রিস্টান মিশনে আগুন লেগে প্রায় ২০ লক্ষ টাকার ক্ষতি সাধন হয়েছে। এছাড়া ২৯ মার্চ উপজেলার তেরছি এলাকার একটি পাটের গুদামে অগ্নিকান্ডে সেখানে রক্ষিত ২ শ’মন পাট ভষ্মীভূত ও ৫ টি গরু দগ্ধ হয়। এছাড়া পার্শ্ববর্তী পাইকগাছা ও কয়রা উপজেলা এলাকায় প্রায়ই অগ্নিকান্ডের ঘটনা ঘটে চলেছে। বিভিন্ন সময় ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় খুলনার ডুমুরিয়া ও সাতক্ষীরা জেলা ফায়ার সার্ভিস স্টেশনে খবর দিলে অগ্নিনির্বাপন কর্মীরা দীর্ঘ পথ পাড়ি দিয়ে ঘটনাস্থলে পৌছানোর আগেই সব কিছু পুড়ে শেষ হয়ে যায়। জলবায়ু পরিবর্তনে আবহাওয়ার বৈরী আচরণে বর্তমানে শুষ্ক মৌসুমে এলাকার পাশাপাশি দেশের বিভিন্ন স্থানে একের পর এক ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ঘটনায় জনপদের সাধারণ মানুষ রীতিমত আতংকগ্রস্ত হয়ে পড়েছে।
এ প্রসঙ্গে তালা প্রেসক্লাবের সভাপতি ও সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান প্রনব ঘোষ বাবলু বলেন, তালায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণ সময়ের দাবী। সরকারি-বেসরকারি যেকোন জায়গায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণ জরুরী হয়ে পড়েছে বলেও জানান তিনি।
তালা উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার বলেন, সুন্দরবন উপকূলীয় সাতক্ষীরার তালা আয়তন ও জনসংখ্যার অনুপাতে একটি বড় উপজেলা। এর ক্যাচমেন্ট এরিয়াও
প্রসারিত। এনজিও পাড়া খ্যাত উপজেলায় অনেক বহুতল ভবন,শিল্প কারখানা ও ব্যবসা
প্রতিষ্ঠান রয়েছে। পাশের উপজেলাগুলোর অবস্থা আরো অরক্ষিত। ঠিক এমন পরিস্থিতিতে ফায়ার সার্ভিস স্টেশন বাস্তবায়ন একান্ত জরুরী হয়ে পড়েছে।
এব্যাপারে সাতক্ষীরা ফায়ার স্টেশনের স্টেশন অফিসার আজিজুর রহমান বলেন,তালা উপজেলায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন বাস্তবায়ন প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। ইতোমধ্যে যথাযথ কর্তৃপক্ষ জমি অধিগ্রহণ থেকে বিভিন্ন বিষয়ে প্রস্তাবনা পাঠানো হয়েছে।
অবহেলিত জনপদের বঞ্চিত মানুষের অন্তত অগ্নি নিরাপত্তায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন চালু হলে উন্নয়ন ও অগ্রগতির পথে তালা এগিয়ে যাবে আরো এক ধাপ।

Related posts