শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০১৯ ♦ ৭ বৈশাখ ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

‘পুকুরে মাছ চাষে ব্যবহৃত খাদ্যের ৬০ ভাগই অপচয় হয়’

স্টাফ রিপোর্টার: খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে সফররত নেদারল্যান্ডসের ওয়াগনেন বিশ্ববিদ্যালয়ের দুইজন গবেষক প্রফেসর ড. এডোলপ ডেবপোর্ট অ্যাকোয়াকালচার এবং প্রফেসর ড. মার্ক ম্যানগ্রোভ নিয়ে নিবন্ধ উপস্থাপন করেছেন।
বৃহস্পতিবার (২১মার্চ) খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংবাদিক লিয়াকত আলী মিলনায়তনে জীববিজ্ঞান স্কুলের ডিন প্রফেসর ড. মোঃ রায়হান আলীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ কর্মশালায় গবেষকদ্বয়ের মধ্যে প্রফেসর ড. এডোলপ ডেবপোর্ট পুকুরে মাছ চাষের ক্ষেত্রে ব্যবহৃত ফিড বিষয়ে অধিকতর সতর্কতা অবলম্বনের জন্য আহাবান জানান। তিনি বলেন পুকুরে বা পুকুরের আকারের ঘেরে মাছ চাষে যে খাদ্য দেওয়া হয় তার ৬০ভাগই অপচয় হয় যা তলানি হিসেবে মাটি এবং কিছু অংশ পানির সাথে মিশে যায়। পানিতে নাইট্রোজেনের অংশ আনুপাতিক হারে বেশি হওয়ার কারণ এটি যেমন, তেমনি মাটি দূষণের অংশ। এছাড়া মাছে ক্ষতিকর হেভিমেটালের উপস্থিতিরও কারণ এটি। তিনি এমনসব উপাদান মিশিয়ে বা ন্যাচারাল পদ্ধতিতে খাদ্য উপাদান তৈরি বা ব্যবহার করতে পরামর্শ দেন যাতে পানি, মাটির গুণাগুণ ভালো থাকে এবং পরিবেশ দূষিত না হয়।
তিনি ইন্দোনেশিয়ার জাভা ও চিনের বিভিন্ন অংশে পুকুরে মাছ চাষের নমুনা উপস্থাপন করে দেখান কী পরিমাণ নাইট্রোজেন বছরে পানিতে মিশে যাচ্ছে। অপর গবেষক ম্যানগ্রোভের হুমকিসমূহ তুলে ধরেন এবং ইন্দোনেশিয়ার ম্যানগ্রোভের কয়েকটি উল্লেখযোগ্য দিক তুলে ধরেন। সভাপতি দুইজন গবেষককে তাদের নিবন্ধ উপস্থাপনের জন্য ধন্যবাদ জানান এবং এই নিবন্ধে তুলে ধরা তথ্য-উপাত্তে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, গবেষক, শিক্ষার্থীদের প্রভূত উপকারে আসবে বলে উল্লেখ করেন। কর্মশালায় জীববিজ্ঞান স্কুলের অধীন বিভিন্ন ডিসিপ্লিনের শিক্ষক, শিক্ষার্থী অংশ নেয়।

Related posts