বুধবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৯ | ৭ কার্তিক ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

চাঁদাবাজির প্রমাণ পেলেই ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার: ভারপ্রাপ্ত সভাপতি

এসবিনিউজ ডেস্ক: চাঁদাবাজির অভিযোগের প্রেক্ষাপটে ছাত্রলীগের দুই শীর্ষনেতা বাদ পড়ায় ভারপ্রাপ্ত সভাপতির দায়িত্বে আসা আল নাহিয়ান খান জয় এ বিষয়ে সংগঠনের নেতা-কর্মীদের প্রথমেই হুঁশিয়ার করে দিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, “কারও বিরুদ্ধে যদি চাঁদাবাজি বা টেন্ডারবাজির অভিযোগের প্রমাণ পাই এবং তারা যদি ছাত্রলীগের সুনাম নষ্ট করে, তাহলে সাথে সাথেই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।”

রোববার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক ভট্টাচার্য্যকে পাশে রেখে এক সংবাদ সম্মেলনে একথা বলেন নাহিয়ান।

চাঁদাবাজির কয়েকটি ঘটনায় অভিযোগের মুখে ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন এবং সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীকে শনিবার নেতৃত্ব ছাড়তে হয়।

কমিটির মেয়াদের প্রায় এক বছর বাকি থাকতে দুই শীর্ষনেতার বিদায়ে ১ নম্বর সহ-সভাপতি নাহিয়ান ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এবং ১ নম্বর যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক লেখক ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব নিয়েছেন।

দায়িত্ব নেওয়ার রোববার দুপুরে মধুর ক্যান্টিনে প্রথম সংবাদ সম্মেলনে আসেন তারা।

নাহিয়ান বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে ছাত্রলীগকে পরিচালিত করব। তিনি যেভাবে বলবেন, ঠিক সেইভাবে ছাত্রলীগ চলবে। কোনো ধরনের কালিমা আমাদের গায়ে যেন না লাগে, সে জন্য আমরা সব সময় সচেষ্ট থাকব।”

নিজেদের কর্মপরিকল্পনার বিষয়ে ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বলেন, “একটা ছক আঁকব। সেই ছক অনুযায়ী বাকি যে ১০ মাস সময় আছে.. আমাদের যেসব কমিটি বিলুপ্ত হয়েছে বা যেসব কমিটি মেয়াদোত্তীর্ণ হয়েছে, সেগুলো বিলুপ্ত করে সুন্দর ও যুগোপযোগী ছাত্রলীগ গড়ে তুলব।”

ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক লেখক কমিটির সদস্যদের আশ্বস্ত করে বলেছেন, শোভন-রাব্বানীর সঙ্গে যারা কাজ করছেন, তাদের কাউকে ‘বঞ্চিত’ করা হবে না।

“শোভন-রাব্বানীর কমিটিতে যারা কাজ করেছে, তারাও ভালো কাজ করেছেন। তবে যেহেতু কিছু অভিযোগ এসেছে আমরা সেগুলো আবার হতে দেব না। তবে যারা ছাত্রলীগের জন্য ত্যাগ স্বীকার করেছেন, তাদের কাউকে বঞ্চিত করা হবে না।”

তিনি বলেন, “ইতিহাস এবং ঐতিহ্যের সঙ্গে তাল মিলিয়ে আমরা ছাত্রলীগকে একটি ব্যানারের নিচে দাঁড় করাতে চাই। এখানে অমুক-তমুকের ছাত্রলীগ বলে কিছু নেই। ছাত্রলীগ একটাই, সেটা হচ্ছে শেখ হাসিনার ছাত্রলীগ।”

লেখক বলেন, “আমাদের প্রথম কাজ হচ্ছে শোভন-রাব্বানীর বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ উঠেছে, সেগুলো ওভারকাম করা। তাদের বিরুদ্ধে যেসব অভিযোগ আসছে, সেগুলো যেন আমাদের বিরুদ্ধে না আসে।”

পরবর্তী সম্মেলনকে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হিসাবে উল্লেখ করেন লেখক।

তিনি বলেন, “শেখ হাসিনা আমাদের ছাত্রলীগের দায়িত্ব দিয়েছেন। এই মুহূর্তে এটি আমাদের জন্য চ্যালেঞ্জ। তবে আমরা মনে করি, যত চ্যালেঞ্জই আসুক, সব মোকাবিলা করে বঙ্গবন্ধুর হাতে গড়া সংগঠন ছাত্রলীগকে আমরা এগিয়ে নিয়ে যাব।”

সোমবার সকাল ১১টায় ধানমন্ডির ৩২ নম্বর সড়কে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে শ্রদ্ধা জানিয়ে আওয়ামী লীগের সভানেত্রী ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করে আনুষ্ঠানিকভাবে দায়িত্ব পালন শুরু করবেন বলে জানান নাহিয়ান ও লেখক।

Related posts