বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯ | ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

খুলনা বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের বোর্ড অব ট্রাষ্টিজের নতুন চেয়ারম্যান সিটি মেয়র

স্টাফ রিপোর্টার: খুলনার শিরোমণি বিএনএসবি চক্ষু হাসপাতালের বোর্ড অব ট্রাষ্টিজের সভায় প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান পরিবর্তন করে নতুন চেয়ারম্যান, নতুন দুইজন ভাইস-চেয়ারম্যান, ম্যানেজিং ট্রাষ্ট ও গঠনতন্ত্র পুনঃগঠন, সৃষ্ট সকল ঘটনার জন্য তদন্ত কমিটি গঠন, যার জন্য প্রতিষ্ঠানের এই অবস্থা হাসপতালের এ্যাডমিনিস্ট্রেটর (সিসি) মাহমুদুল হাসানের সাসপেন্ড বহালসহ গুরুত্বপুর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়েছে।
শুক্রবার প্রতিষ্ঠানের কনফারেন্স কক্ষে হাসপাতালের চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদের সভাপতিত্বে বোর্ড অব ট্রাষ্টিজের সর্বোচ্চ এ সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়। সভায় নগর পিতা আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক, প্রতিষ্ঠানের ট্রেজারার সৈয়দা লুৎফুন নাহার, ট্রাষ্টি বোর্ড সদস্য প্রফেসর কাজী শহিদুল আলম, শেখ আকরাম হোসেন, সৈয়দ হাফিজুর রহমান, মিসেস হালিমা ইসলাম, বি.এম এ সালাম, এ্যাডঃ মেমরী সুফিয়া রহমান শুনু, স্বাস্থ্য সেবা প্রতিনিধি এস এম জাহাঙ্গীর হোসেন, ম্যানিজিং ট্রাষ্টি ডা. মোঃ আব্দুল হান্নান, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী অধ্যক্ষ ডা. মোঃ মেহেদী নেওয়াজ, শেখ মোয়াজ্জেম হোসেন, হারুন অর রশিদ, ডা. এস এম সামছুল আহসান মাসুমসহ সকল বোর্ড অব ট্রাষ্টিজের সকল সদস্য উপস্থিত ছিলেন।
দীর্ঘ দুই ঘন্টা বোর্ড অব ট্রাষ্ট্রিজের সর্বোচ্চ সভায় আলোচনা শেষে বোর্ড অব ট্রাষ্টিজের সকল সদস্য অডিটরিয়ামে প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তা ও কর্মচারীসহ উপস্থিত সকলের সাথে বৈঠক করেন। বৈঠকে হাসপাতালের নতুন চেয়ারম্যন নগর পিতা আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেকের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন হাসপাতলের বিদায়ী চেয়ারম্যান প্রফেসর ডা. মোঃ শারফুদ্দিন আহমেদ।
তিনি তার বক্তৃতা বলেন, বোর্ড সভায় চুলচেড়া বিশ্লেষনেরর পর সর্বসম্মতিক্রমে প্রতিষ্ঠানের স্বার্থে এই অঞ্চলের জনমানুষের নেতা নগর পিতা আলহাজ্জ তালুকদার আব্দুল খালেককে ২৩ আগস্ট শুক্রবার থেকেই বোার্ড অব ট্রাষ্টিজের নতুন চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে একই সাথে ভাইস-চেয়ারম্যান হিসাবে আমি নিজে আছি এবং ট্রাষ্টিজ বোর্ড সদস্য প্রফেসর কাজী শহিদুল আলমকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। এছাড়া প্রতিষ্ঠানের স্বার্থে ম্যানিজিং ট্রাষ্টি ও গঠনতন্ত্র পুনঃগঠন এবং বিগত সময়ে সৃষ্ট ঘটনার সুষ্ট ও নিরপেক্ষ তদন্তের জন্য একটি উচ্চ ক্ষমতার তদন্ত কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করা হয়েছে। তিনি নতুন চেয়ারম্যান সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেকের নেতৃত্বে আগামীতে হাসপাতালটিকে আরো এগিয়ে নেওয়ার আহবান জানান।
বৈঠকের সভাপতি সিটি মেয়র আলহাজ্ব তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, খুলনা তথা দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের এই ঐতিহ্যবাহী প্রতিষ্ঠানের সুনাম অক্ষুন্ন রাখতে এবং সমসাময়িকের যে সৃষ্ট সমস্যা তার সমাধানে তার উপর যে দায়িত্ব অর্পন করা হয়েছে তা সততা এবং নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালনে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ। তিনি প্রতিষ্ঠানে স্বার্থে বেশ কিছু পরিবর্তনের আভার দেন। তিনি বলেন আমার কাছে প্রতিষ্টানের বেশ কিছু অভিযোগ এসেছে। মাদকের বিরুদ্ধে সরকারের জিরো টলারেন্স এ বিষয়ে কোন ছাড় দেওয়ার সুযোগ নেই। হাসপতালের এ্যাডমিনিস্ট্রেটর (সিসি) মাহমুদুল হাসান তারিফ যেহেতু পুলিশের হাতে ফেন্সিডিল সহ আটক হয়েছে সেহেতু তার চুড়ান্ত রায় না হওয়া পর্যন্ত সে সাসপেন্ডে থাকবে এবং প্রতিষ্ঠানে প্রবেশ করতে পারবেনা। এছাড়া আরো কয়েজনের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ এসেছে তাদের বিরুদ্ধে সঠিক তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে এবং প্রতিষ্ঠানের যাদেরকে অন্যায় ভাবে বের করে দেওয়া হয়েছে তাদের বিষয়ে তদন্ত করে নির্দোশ প্রমান হলে চাকুরীতে বহাল করা হবে। তিনি প্রতিষ্ঠানের সকলকে সকল মতভেদ এবং গ্রুপিং বাদ দিয়ে প্রতিষ্ঠানে কাজে মনোযোগি হওয়ার আহবান জানান।
বৈঠক শেষে বোর্ড অব ট্রাষ্টিজের নতুন ভাইস-চেয়ারম্যান প্রফেসর কাজী শহিদুল আলম এই প্রতিনিধিকে বলেন প্রতিষ্ঠানের সকল অনিয়ম ও দুর্নীতিসহ বিভিন্ন অভিযোগের বিষয়ে নিরপেক্ষ ও স্বচ্ছ তদন্তের জন্য একজন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটের নেতৃত্বে তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। তদন্ত কমিটি সকল বিষয়ে তদন্ত করে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিলে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে। এছাড়া অপর এক সদস্য জানিয়েছেন অভিযুক্ত মাহমুদুলের চাকুরীতে দেওয়া সার্টিফিকেটসহ তার বিরুদ্ধে সকল অভিযোগের তদন্ত করা হবে। তদন্তে দোশি এবং সার্টিফিকেট জাল হলে তার বিরুদ্ধে অর্থ ফেরত সহ আইনানুক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি বেগ লিয়াকত আলী, মহানগর সদস্য ও খানজাহান আলী থানা আওয়ামীলীগের সভাপতি শেখ আবিদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শেখ আনিছুর রহমান, মহানগর সদস্য ও খানজাহান আলী থানা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার স.ম রেজওয়ান আলী, কেসিসি ২নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি মোঃ শাকিল আহম্মেদ, সাধারণ সম্পাদক এফ এম জাহিদ হাসান জাকির, ৩৩নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি ইউসুফ আলী খলিফা, সাধারণ সম্পাদক মোড়ল হাবিবুর রহমান, শ্রমিকলীগ নেতা আলহাজ্জ শেখ আনছার আলীসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক ও সামাজিক ব্যক্তিবর্গ।

Related posts