শুক্রবার, ২৩ অগাস্ট ২০১৯ ♦ ৭ ভাদ্র ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

খুলনা জিলা স্কুলের ৯৯ ব্যাচের পুনর্মিলনী

স্টাফ রিপোর্টার:ঐতিহ্যবাহী খুলনা জিলা স্কুলের এসএসসি ১৯৯৯ সালের ব্যাচের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (০৬ জুন) দিনব্যাপী এ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠিত হয়।
সকাল ৮টার আগেই প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের পদচারণে মুখর হয়ে ওঠে খুলনা জিলা স্কুল মাঠ। স্মৃতি হাতড়াতে তারা ছুটে এসেছেন দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে। বিদেশ থেকেও ছুটে এসেছেন অনেকে।
অনুষ্ঠানের সার্বিক তত্ত্বাবধানে ছিলেন রেজওয়ান ওয়ালিদ অন্তু, নাজমুল হোসেন সুমন, তন্ময় বিশ্বাস ইকো, জানে আলম শামস্ রাজু, কাজী সার্জিল হাসান, মনজুরুল ইসলাম বিভাস, কাজী মাসুদুল আলম, খালিদ হোসেন রাজন, প্রশান্ত সাহা, রেজা প্রমুখ।
বিদ্যালয়ের ৯৯ ব্যাচের পুনর্মিলনী উদযাপন পরিষদের আহবায়ক বেসরকারি ব্যাংক কর্মকর্তা রেজওয়ান ওয়ালিদ অন্তু বলেন, ২০ বছর পর খুলনা জিলা স্কুলের ১৯০০/উনবিংশ শতাব্দীর শেষ ব্যাচ, বন্ধুত্বের টানে শৈশবের মধুর স্মৃতিচারনায় ঈদ-ঊল-ফিতরের ২য় দিন এক ব্যতিক্রমধর্মী মিলনমেলার আয়োজন করেছে। ব্যাচের সদস্যরা সমগ্র পৃথিবীব্যাপী অনেকেই বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পেশায় নিয়োজিত।
তিনি জানান, অনুষ্ঠানের ৫% খরচ পিছিয়ে পড়া বন্ধুদের কল্যাণে ব্যয় করা হবে।
প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা বলেন, আমরা শৈশব-কৈশোরের খোঁজে এখানে ছুটে এসেছি, স্বপ্নের দরবারে, স্মৃতির আঙিনায়।
জাঁকজমকপূর্ণ এ আয়োজনে উদ্বোধন করেন জিলা স্কুলের সাবেক প্রধান শিক্ষক ও ঢাকা কলেজিয়েট স্কুলের বর্তমান প্রধান শিক্ষক আরিফুল ইসলাম।
উদ্বোধনের আগে ৯৯ ব্যাচের শিক্ষার্থী সবচেয়ে কম বয়সে মৃত্যু বরণ করা টেস্ট ক্রিকেটার মানজারুল ইসলাম রানাসহ প্রয়াত সহপাঠীদের স্মরণে এক মিনিট নিরবতা পালন করা হয়।
মিলনমেলার অনুষ্ঠান সূচির মধ্যে ছিলো- উপহার থলে প্রদান, র্যা লি, শরীর চর্চা, শ্রেণীক্ষে পাঠদান, টিফিন, বিদ্যালয় পলায়ন, খেলাধুলা, নামাজের বিরতি, প্রমোদতরীতে ওঠা, প্রমোদতরী যাত্রা, দুপুরের খাবার, পানি বিরতি, ওয়াই সি রিসোর্ট প্রবেশ, ওয়াই সি রিসোর্ট হতে প্রস্থান ও প্রমোদতরীতে ওঠা, জলসা, বার-বি-কিউ, প্রমোদতরী হতে প্রস্থান।
প্রাক্তনদের আবেগ যেন একটু বেশিই ছিল। খুনসুটিতেও কেউ কাউকে ছেড়ে দেননি। তাদের আবেগ-স্মৃতিচারণ-আড্ডা ছুঁয়ে যায় বিদ্যালয় প্রাঙ্গণ। আর গানের সেই কলি ‘প্রাণ জুড়াবে তাই’ এর মতোই দীর্ঘদিনের পুরনো বন্ধু, সতীর্থ, শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের পেয়ে প্রাণ জুড়িয়েই শেষ হয় পুনর্মিলনী অনুষ্ঠান।

Related posts