রবিবার, ২০ জানুয়ারী ২০১৯ ♦ ৭ মাঘ ১৪২৫

Select your Top Menu from wp menus

খুলনায় নগর বিএনপির অবস্থান কর্মসূচি পালিত

স্টাফ রিপোর্টার: কেন্দ্র ঘোষিত তিন দিনের কর্মসূচির দ্বিতীয় দিনে মঙ্গলবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) খুলনায় মহানগর বিএনপির উদ্যোগে অবস্থান কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সকাল ১১ টায় নগরীর কে ডি ঘোষ রোডে দলীয় কার্যালয়ের সামনে শুরু হওয়া এ কর্মসূচি চলে দুপুর ১ টা পর্যন্ত। নির্ধারিত সময়ের আগে থেকেই নগরীর সকল থানা ও ওয়ার্ড থেকে হাজার হাজার বিক্ষুব্ধ কর্মীর মিছিল সমাবেশস্থলে এসে হাজির হয়।

নগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু বলেন, নয় বছরের দুঃশাসনকে আরো দীর্ঘায়িত করতে শেখ হাসিনার ইচ্ছায় আদালত সাজানো পাতানো বানোয়াট মামলায় খালেদা জিয়াকে জেলে পাঠিয়েছে। ১৬ কোটি মানুষ এ রায়ে মর্মাহত, হতাশ, ক্ষুব্ধ হয়েছেন। সরকার আজ্ঞাবহ নির্বাচন কমিশনের মাধ্যমে সাজানো পাতানো ভোট করতে চায়। সে চেষ্টা করা হলে পরিণতি ভয়াবহ হবে বলে হুশিয়ার করেন তিনি।

সভা থেকে খুলনায় শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি চলাকালে বিনা উস্কানিতে পুলিশের দফায় দফায় হামলা এবং দলীয় কার্যালয়ের সামনে থেকে সাহারুজ্জামান মোর্ত্তজা, অধ্যক্ষ তারিকুল ইসলাম, মেহেদী হাসান দীপু, শামসুজ্জামান চঞ্চলসহ গ্রেফতারের শিকার হয়ে কারাগারে আটক সকল নেতাকর্মীর নিঃশর্ত মুক্তি দাবি করা হয়। সভা থেকে খুলনায় দায়ের হওয়া পুলিশের মিথ্যা বানোয়াট মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারের জোর দাবি জানানো হয়।

সভায় উপস্থিত ছিলেন ও বক্তব্য রাখেন মনিরুজ্জামান মনি, কাজী সেকেন্দার আলী ডালিম, খেল                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                                           াফত মজলিসের মহানগর সভাপতি মাওলানা গোলাম কিবরিয়া, জেপি (জাফর) মহানগর সভাপতি মোস্তফা কামাল, বিএনপি নেতা মীর কায়সেদ আলী, শেখ মোশারফ হোসেন, জাফরউল্লাহ খান সাচ্চু, মোল্লা আবুল কাশেম, সিরাজুল ইসলাম মেঝো ভাই, বিজেপির মহানগর সাধারণ সম্পাদক সিরাজউদ্দিন সেন্টু, মুসলিম লীগের মহানগর সাধারণ সম্পাদক আক্তার জাহান রুকু, বিএনপি নেতা শাহজালাল বাবলু, স ম আব্দুর রহমান, রেহানা আক্তার, শেখ ইকবাল হোসেন, ফখরুল আলম, শেখ আমজাদ হোসেন, অধ্যাপক আরিফুজ্জামান অপু, সিরাজুল হক নান্নু, মাহবুব কায়সার, আসাদুজ্জামান মুরাদ, শেখ হাফিজুর রহমান, সর্বদলীয় আইনজীবী সমন্বয় পরিষদের সদস্য সচিব এ্যাড. এস আর ফারুক, ড্যাবের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যাপক ডাঃ সেখ মোঃ আখতার উজ জামান, খুলনা জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক মোল্লা মশিউর রহমান নান্নু, মেট্রোপলিটন সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি মোঃ আনিসুজ্জামান, দৈনিক নয়া দিগন্তের খুলনা ব্যুরো প্রধান মোঃ এরশাদ আলী, মহিবুজ্জামান কচি, শফিকুল আলম তুহিন, শাহিনুল ইসলাম পাখী, শের আলম সান্টু, ইকবাল হোসেন খোকন, সাদিকুর রহমান সবুজ, মুজিবর রহমান, আজিজুল হাসান দুলু, শেখ সাদী, ইউসুফ হারুন মজনু, সাজ্জাদ আহসান পরাগ, সাজ্জাদ হোসেন তোতন, শফিকুল ইসলাম হোসেন, একরামুল হক হেলাল, কে এম হুমায়ুন কবীর, মাসুদ পারভেজ বাবু, হাসানুর রশিদ মিরাজ, নিয়াজ আহমেদ তুহিন, মাহবুব হাসান পিয়ারু, নাজমুল হুদা চৌধুরী সাগর, কামরান হাসান, শরিফুল ইসলাম বাবু, হেলাল আহমেদ সুমন, জহর মীর, অধ্যাপক অহেদুজ্জামান, তরিকুল্লাহ খান, হাসান মেহেদী রিজভী, বদরুল আনাম, আবুল কালাম শিকদার, শমসের আলী মিন্টু, হাফিজুর রহমান মনি, আফসারউদ্দিন মাস্টার, শেখ ফারুক হোসেন, হাসানউল্লাহ বুলবুল, এইচ এম এ সালেক, শেখ জামালউদ্দিন, শেখ জামিরুল ইসলাম, কবির হোসেন, ওয়াহিদুর রহমান দীপু, এ্যাড. শেখ মোঃ আলী বাবু, মুজিবর রহমান ফয়েজ, মোঃ সাইফুল ইসলাম, শেখ ইমাম হোসেন, আবু সাঈদ শেখ, হাবিব বিশ্বাস, আশরাফ হোসেন, আবু সাঈদ হাওলাদার আব্বাস, গাউস হোসেন, শরীফুল আনাম, মতলেবুর রহমান মিতুল, মীর কবির হোসেন, শাহাবুদ্দিন মন্টু, নাসির খান, মেজবাহউদ্দিন মিজু, মোল্লা ফরিদ আহমেদ, আব্দুল আলীম, মহিউদ্দিন টারজান, রবিউল ইসলাম রবি, মোস্তফা কামাল, বাচ্চু মীর, বাবু মোড়ল, অহিদুজ্জামান অহিদ, সরদার ইউনুস আলী, লিটন খান, আব্দুল জব্বার, জাহিদ কামাল টিটো, মিজানুর রহমান খোকন, কাজী নেহিবুল হাসান নেহিম, জি এম রফিকুল হাসান, এইচ এম আসলাম, আলমগীর হোসেন, আব্দুল মতিন, তৌহিদুল ইসলাম খোকন, ইমতিয়াজ আলম বাবু, মিজানুর রহমান খোকন, তরিকুল ইসলাম, আনসার আলী, আরমান হোসেন, জাহিদুর রহমান রিপন, সাইমুন ইসলাম রাজ্জাক, মাওলানা আব্দুল গফফার, গাজী সোয়েবউদ্দিন মিন্টু, মোহাম্মদ আলী, রবিউল ইসলাম রুবেল, রিয়াজ শাহেদ, মিজানুর রহমান, মুরাদ মিনা, আসাদুজ্জামান আসাদ, নুরে আব্দুল্লাহ প্রমুখ।

 

Related posts