শনিবার, ২৫ মে ২০১৯ ♦ ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

কর্মীদের তোপের মুখে ফখরুল-মওদুদ

এসবিনিউজ ডেস্ক: দলের তৃণমূল নেতাকর্মীদের তোপের মুখে পড়েছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ। বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনে একুশে ফেব্রুয়ারি মহান শহীদ ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে’ এক আলোচনা সভায় এ ঘটনা ঘটেছে।
বিএনপি আয়োজিত আলোচনা সভায় বিকেল সাড়ে ৪ টায় বক্তব্য দিতে আসেন মওদুদ আহমদ। মওদুদ আহমদের বক্তব্যের প্রায় ৩ মিনিট পার হলে দর্শকসারি থেকে নেতাকর্মীরা স্লোগান ধরেন মুক্তি মুক্তি মুক্তি চাই, খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই, জেলের তালা ভাঙতে হবে খালেদা জিয়াকে আনতে হবে। এসময় মওদুদ আহমদ নীরব দর্শকের ভূমিকায় কর্মীদের স্লোগান শুনেন। স্লোগান শেষ হলে মওদুদ বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে আজ কোর্টে আনার কথা ছিল। কিন্তু অসুস্থতার কারণে তিনি আসতে পারেননি। এই কথাই বলতে চাচ্ছিলাম। আর স্লোগানকে বাস্তবায়ন করতে চান না? আবার স্লোগান। তখন মওদুদ আহমদ বলেন, খালেদা জিয়ার কথা শুনতে চান না। তিনি অত্যন্ত অসুস্থ। আইনী প্রক্রিয়ায় তার মুক্তি সম্ভব না। সুপরিকল্পিত আন্দোলন দিতে হবে। যাতে এবার আমরা পরাজিত না হই। আর বেগম জিয়ার মুক্তি হবে আমাদের এক নাম্বার এজেন্ডা।
মওদুদকে উদ্দেশ্য করে কর্মীরা বলেন, হল খালি কেনো? মুক্তি মুক্তি মুক্তি চাই, খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই। খালেদা জিয়ার ভয় নাই, রাজপথ ছাড়ি নাই।
পরে সভাপতির বক্তব্য রাখেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। বক্তব্যের তিনি বলেন, বেগম জিয়াকে নির্জন কারাগারে রেখে মানবাধিকার লঙ্ঘন করার জন্য তাদের বিচার করা হবে। এরপর নেতাকর্মীরা বলেন, কর্মসূচি দেন। ফখরুল বলেন, কর্মসূচি দেওয়া হবে। পরে আবারও স্লোগান, মুক্তি মুক্তি মুক্তি চাই, খালেদা জিয়ার মুক্তি চাই, জেলের তালা ভাঙতে হবে খালেদা জিয়াকে আনতে হবে।
মির্জা ফখরুল বলেন, দাঁড়ান। দাঁড়ান। চাইলেই কর্মসূচি দেওয়া যায় না। কর্মসূচি পালন করতে হবে। কথা শুনেন। কর্মীরা তখন বলেন, হয়তো কর্মসূচি দেন, না হয় বিএনপি ভেঙে দেন।
নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য করে মির্জা ফখরুল বলেন, বন্ধুগণ, আপনাদের যে ক্ষোভ ও ব্যথা। এটা আমরা বুঝি। কিন্তু আপনাদের বুঝিতে হবে, ফ্যাসিবাদের বিরুদ্ধে যখন গণতান্ত্রিক শক্তি লড়াই করে তখন অতি সহজে সফলতা অর্জন করা যায় না। কেনো বলছেন আপনারা ব্যর্থ হয়েছেন। আপনারা ব্যর্থ হননি। আজকে আপনারা বিজয়ী হয়েছেন। দেশ ও বিশ্বের কাছে প্রকাশ হয়েছে, এটা ফ্যাসিবাদি শক্তি।
মির্জা ফখরুলের সভাপতিত্বে সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান আব্দুল্লাহ আল নোমান, যুগ্ম মহাসচিব খায়রুল কবির খোকন, স্বেচ্ছাসেবক দলের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদের ভূঁইয়া জুয়েল, ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক আকরামুল হাসান, মহিলা দলের যুগ্ম সম্পাদক হেলেন জেরিন খান প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

Related posts