বুধবার, ২০ নভেম্বর ২০১৯ | ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬

Select your Top Menu from wp menus

অনেক রেকর্ডের ম্যাচ জিতে শীর্ষে ইংল্যান্ড

স্পোর্টস ডেস্ক: চলতি বিশ্বকাপের ২৪তম ম্যাচে এশিয়ার দেশ আফগানিস্তানকে ১৫০ রানে হারিয়েছে স্বাগতিক ইংল্যান্ড। ইংলিশদের দেওয়া ৩৯৮ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেটে হারিয়ে ২৪৭ রানের বেশি করতে পারেনি আফগানরা।

এ জয়ে ৮ পয়েন্ট নিয়ে অস্ট্রেলিয়াকে টপকে পয়েন্ট টেবিলের শীর্ষে উঠে গেছে স্বাগতিকরা। অন্যদিকে ৫ ম্যাচ খেলে এখনো জয়ের দেখা পায়নি আফগানিস্তান।

এর আগে অধিনায়ক ইয়ন মরগানের রেকর্ড গড়া সেঞ্চুরিতে ভর করে ৬ উইকেটে ৩৯৭ রান করে ইংলিশরা। এই ম্যাচে ১৭টি ছয় মেরে ওয়ানডেতে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ছয় মারার রেকর্ড গড়েন মরগান। এই ম্যাচে ওয়ানডে ইতিহাসে রেকর্ড ২৫টি ছ্ক্কা মারার রেকর্ড গড়েছে ইংল্যান্ড। এর আগের রেকর্ডেও জড়িয়ে আছে ইংলিশদের নাম। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে চলতি বছরের ২৭ ফেব্রুয়ারিতে হাঁকিয়েছিল ২৪ ছক্কা।

মঙ্গলবার (১৮ জুন) ম্যানচেস্টারের ওল্ড ট্রাফোর্ডে টস জিতে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৪৪ রান যোগ করেন জেমস ভিন্স ও জনি বেয়ারস্টো। ২৬ রান করে আউট হন ভিন্স। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে বেয়ারস্টোকে সাথে নিয়ে ১২০ রান যোগ করেন রুট। অল্পের জন্য সেঞ্চুরি মিস করেন বেয়ারেস্টো। ব্যক্তিগত ৯০ রান করে গুলবাদিন নাঈবের বলে প্যাভিলিয়নে ফেরত যান তিনি।

এরপর তৃতীয় উইকেটে আফগান বোলারদের শাসন করতে থাকেন রুট ও অধিনায়ক ইয়ন মরগান। চার-ছয়ে বল সীমানা পার করতে থাকেন তারা। মরগান বেশি আক্রমণাত্মক ছিলেন। ৫৭ বলে তুলে নেন বিশ্বকাপের চতুর্থ দ্রুততম সেঞ্চুরি। সেই সাথে ১৭টি ছক্কা মেরে ওয়ানডে ক্রিকেটে এক ইনিংসে সর্বোচ্চ ছয় মারার রেকর্ডটিও নিজের করে নেন মরগান।

অন্যদিকে অর্ধশতক তুলে নেন রুট। তবে বেয়ারস্টোর মতো তিনিও সেঞ্চুরি মিস করেন। ৮৮ রান করে গুলবাদিন নাঈবের দ্বিতীয় শিকারে পরিনত হন তিনি। সেই সাথে ভাঙে ১৮৯ রানের তৃতীয় উইকেট জুটি।

রুটের বিদায়ের পর বিদায় নেন মরগান। গুলবাদিন নাঈবের বলে রহমত শাহ’র হাতে ধরা পড়ার আগে খেলেন ৭১ বলে ১৪৮ রানের দুর্দান্ত এক ইনিংস। স্কোরবোর্ডে রান তখন সাড়ে তিনশ’ পেরিয়েছে।

জস বাটলার (২) ও বেন স্টোকস (২) দ্রুত বিদায় নেন। শেষ দিকে মঈন আলীর ৯ বলে ৩১ রানে ঝড়ো ইনিংসের কল্যাণে ৬ উইকেটে ৩৯৭ রানে বিশাল সংগ্রহ দাড় করায় ইংল্যান্ড। আফগানিস্তানের গুলবাদিন নাঈব ও দাওলাত জাদরান ৩টি করে উইকেট নেন।

৩৯৮ রানের বিশাল লক্ষ্য তাড়া করতে নেমে কখনই মনে হয়নি এ লক্ষ্য ছুঁতে পারবে আফগানরা। তবু ওপেনার নুর আলি জাদরান ব্যতীত প্রায় সবাই রান করেছেন কমবেশি। ত্রিশোর্ধ্ব রানের ইনিংস খেলেছেন টপঅর্ডারের চার ব্যাটসম্যান।

দলের পক্ষে সর্বোচ্চ ৭৬ রান করেন হাশমতউল্লাহ শহিদি। তার ১০০ বলের ইনিংসে ৫টি চারের সঙ্গে ছিল ২টি ছয়ের মার। এছাড়া সাবেক অধিনায়ক আসগর আফগান ৪৮ বলে ৪৪, অধিনায়ক গুলবদিন নাইব ২৮ বলে ৩৭ ও রহমাত শাহ খেলেন ৭৪ বলে ৪৬ রানের ইনিংস।

শেষদিকের ব্যাটসম্যানরা তেমন কিছু করতে না পারায় বড় হয়নি আফগানদের সংগ্রহ, তাদের দলীয় ইনিংস থেমে যায় ২৪৭ রানে।

ইংল্যান্ডের পক্ষে ৩টি করে উইকেট নেন আদিল রশিদ ও জোফ্রা আর্চার। এছাড়া মার্ক উডের শিকার ২টি উইকেট।

 

Related posts